দাঙ্গার শঙ্কায় নিরাপত্তা জোরদার

'অবৈধ বাংলাদেশি' ধরতে আসামে নাগরিক তালিকা

প্রকাশ: ৩০ ডিসেম্বর ২০১৭     আপডেট: ৩০ ডিসেম্বর ২০১৭      

সমকাল ডেস্ক

ভারতের আসাম রাজ্যে আগামীকাল রোববার নতুন একটি নাগরিক তালিকা প্রকাশ করা হবে। 'অবৈধ বাংলাদেশিদের' ধরতে এই তালিকা তৈরি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী হিমান্ত বিশ্ব শর্মা। এই তালিকা প্রকাশকে কেন্দ্র করে রাজ্যে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছে রাজ্য সরকার। নিরাপত্তা রক্ষায় রাজ্যে পুলিশ ও আধাসামরিক বাহিনীর প্রায় ৬০ হাজার সদস্য পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

তবে ঢাকায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানান, আসাম থেকে কাউকে বিতাড়িত করার পরিকল্পনার ব্যাপারে ভারত সরকারের কাছ থেকে আনুষ্ঠানিক কিংবা অনানুষ্ঠানিক কোনো ধরনের তথ্যই তারা পাননি। খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

'ন্যাশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেন্স' (এনআরসি) নামে তালিকার খসড়াটি প্রকাশ করছে রাজ্য সরকার। ১৯৫১ সালের পর এটিই রাজ্যটিতে পরিচালিত  প্রথম শুমারি।

অর্থমন্ত্রী ও এনআরসি প্রকল্পের প্রধান হিমান্ত বিশ্ব শর্মা বলেন, 'আসামে বসবাসকারী অবৈধ বাংলাদেশিদের খুঁজে বের করতে এই তালিকা তৈরি করা হয়েছে। তালিকায় যাদের নাম থাকবে না তাদের বিতাড়িত করতে হবে। আর এ ক্ষেত্রে তারা কোনো সুযোগ নিচ্ছেন না বলেও তিনি দাবি করেন।

রাজ্যটিতে বাংলাদেশ থেকে যাওয়া অনেক মানুষ, বিশেষ করে মুসলমানরা অবৈধভাবে বসবাস করছে বলে দাবি করে রাজ্যে ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। আসামে গত বছর প্রথমবারের মতো ক্ষমতায় আসে হিন্দু জাতীয়তাবাদী দল বিজেপি। এরপরই তারা এই রাজ্য থেকে 'অবৈধ মুসলিমদের' বিতাড়নের অঙ্গীকার করে। তারা মনে করে, 'অবৈধ মুসলিমরা' হিন্দুদের চাকরি থেকে বঞ্চিত করছে।

মুসলিম অধিবাসী সংখ্যার দিক দিয়ে ভারতের রাজ্যগুলোর মধ্যে আসামের অবস্থান দ্বিতীয়। স্থানীয় মুসলিম নেতাদের অভিযোগ, মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলিমদের মতো তাদেরও দেশছাড়া করতে নাগরিকদের ওই নতুন তালিকা হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করার পরিকল্পনা নিয়েছে ভারত সরকার। মুসলিমদের বিতাড়নের পাশাপাশি বাংলাদেশে যেসব হিন্দু নিপীড়নের শিকার, তাদের ভারতে আশ্রয় দেওয়ার ঘোষণাও দেন অর্থমন্ত্রী হিমান্ত বিশ্ব শর্মা। তিনি জানান, এ ক্ষেত্রে কেন্দ্রের নীতি অনুসরণ করা হবে। এ ব্যাপারে দিল্লির কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

অভিযোগ করা হয়, আসামে বসবাসকারী ২০ লাখের বেশি মুসলমানের শেকড় বাংলাদেশে। নতুন তালিকায় স্থান পেতে আগ্রহীদের ১৯৭১ সালের ২৪ মার্চের আগে থেকে তারা বা তাদের পূর্বপুরুষ ভারতে বসবাস করছে, সেই প্রমাণ দেখাতে হয়।

তবে প্রয়োজনীয় নথিপত্র না থাকায় এমন প্রক্রিয়ায় যেতেই পারছে না অনেকে।

স্থানীয় এক মাদ্রাসার শিক্ষক আসিফুল রহমান বলেন, 'আমার দাদা-দাদি এবং মা-বাবা সবাই ভারতে জন্ম নিয়েছে। কিন্তু আমাদের হাতে তার কোনো তথ্য না থাকায় আজ ভারতীয় হিসেবে নিজেদের প্রমাণ করতে লড়াই করতে হচ্ছে।'

সবই কি 'চাষের মাছ'

সবই কি 'চাষের মাছ'

রাজধানীর মতিঝিলে বাংলাদেশ ব্যাংকের পাশের অস্থায়ী সান্ধ্য কাঁচাবাজারে এক মাছের ...

সম্পর্কে ঈর্ষা

সম্পর্কে ঈর্ষা

সম্পর্কে ঈর্ষা থাকবে, এটাই স্বাভাবিক। বিশেষ করে সঙ্গীর জন্য যদি ...

বিএনপির কোনো নীতি আদর্শ নেই: তোফায়েল

বিএনপির কোনো নীতি আদর্শ নেই: তোফায়েল

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, 'বিএনপির কোনো নীতি আদর্শ নেই। তারা ...

যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হবে 'বালিঘর'

যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হবে 'বালিঘর'

আরও একটি যৌথ প্রযোজনা চলচ্চিত্রের ঘোষণা এলো। কলকাতার বর্তমান সময়ের ...

নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আ'লীগের ভরাডুবি হবে: ফখরুল

নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আ'লীগের ভরাডুবি হবে: ফখরুল

নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন হলে এবং সব মানুষ ভোট দিতে ...

কুমারখালীতে ১৪৪ ধারা

কুমারখালীতে ১৪৪ ধারা

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে উপজেলা জাসদ ও ছাত্রলীগ একই স্থানে সভা ডাকায় ...

৮৮ বছর ধরে মাটি খাওয়া যার অভ্যাস

৮৮ বছর ধরে মাটি খাওয়া যার অভ্যাস

প্রতিদিন ভাত-রুটি না হলেও চলে কিন্তু মাটি না খেয়ে  একদিনও ...

পদ্মা সেতুর দ্বিতীয় স্প্যান বসতে পারে মঙ্গলবার

পদ্মা সেতুর দ্বিতীয় স্প্যান বসতে পারে মঙ্গলবার

চলতি সপ্তাহেই পদ্মা সেতুর দ্বিতীয় স্প্যান বসানোর অপেক্ষায় রয়েছে সেতু ...