দাঙ্গার শঙ্কায় নিরাপত্তা জোরদার

'অবৈধ বাংলাদেশি' ধরতে আসামে নাগরিক তালিকা

প্রকাশ: ৩০ ডিসেম্বর ২০১৭     আপডেট: ৩০ ডিসেম্বর ২০১৭      

সমকাল ডেস্ক

ভারতের আসাম রাজ্যে আগামীকাল রোববার নতুন একটি নাগরিক তালিকা প্রকাশ করা হবে। 'অবৈধ বাংলাদেশিদের' ধরতে এই তালিকা তৈরি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী হিমান্ত বিশ্ব শর্মা। এই তালিকা প্রকাশকে কেন্দ্র করে রাজ্যে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছে রাজ্য সরকার। নিরাপত্তা রক্ষায় রাজ্যে পুলিশ ও আধাসামরিক বাহিনীর প্রায় ৬০ হাজার সদস্য পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

তবে ঢাকায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানান, আসাম থেকে কাউকে বিতাড়িত করার পরিকল্পনার ব্যাপারে ভারত সরকারের কাছ থেকে আনুষ্ঠানিক কিংবা অনানুষ্ঠানিক কোনো ধরনের তথ্যই তারা পাননি। খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

'ন্যাশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেন্স' (এনআরসি) নামে তালিকার খসড়াটি প্রকাশ করছে রাজ্য সরকার। ১৯৫১ সালের পর এটিই রাজ্যটিতে পরিচালিত  প্রথম শুমারি।

অর্থমন্ত্রী ও এনআরসি প্রকল্পের প্রধান হিমান্ত বিশ্ব শর্মা বলেন, 'আসামে বসবাসকারী অবৈধ বাংলাদেশিদের খুঁজে বের করতে এই তালিকা তৈরি করা হয়েছে। তালিকায় যাদের নাম থাকবে না তাদের বিতাড়িত করতে হবে। আর এ ক্ষেত্রে তারা কোনো সুযোগ নিচ্ছেন না বলেও তিনি দাবি করেন।

রাজ্যটিতে বাংলাদেশ থেকে যাওয়া অনেক মানুষ, বিশেষ করে মুসলমানরা অবৈধভাবে বসবাস করছে বলে দাবি করে রাজ্যে ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। আসামে গত বছর প্রথমবারের মতো ক্ষমতায় আসে হিন্দু জাতীয়তাবাদী দল বিজেপি। এরপরই তারা এই রাজ্য থেকে 'অবৈধ মুসলিমদের' বিতাড়নের অঙ্গীকার করে। তারা মনে করে, 'অবৈধ মুসলিমরা' হিন্দুদের চাকরি থেকে বঞ্চিত করছে।

মুসলিম অধিবাসী সংখ্যার দিক দিয়ে ভারতের রাজ্যগুলোর মধ্যে আসামের অবস্থান দ্বিতীয়। স্থানীয় মুসলিম নেতাদের অভিযোগ, মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলিমদের মতো তাদেরও দেশছাড়া করতে নাগরিকদের ওই নতুন তালিকা হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করার পরিকল্পনা নিয়েছে ভারত সরকার। মুসলিমদের বিতাড়নের পাশাপাশি বাংলাদেশে যেসব হিন্দু নিপীড়নের শিকার, তাদের ভারতে আশ্রয় দেওয়ার ঘোষণাও দেন অর্থমন্ত্রী হিমান্ত বিশ্ব শর্মা। তিনি জানান, এ ক্ষেত্রে কেন্দ্রের নীতি অনুসরণ করা হবে। এ ব্যাপারে দিল্লির কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

অভিযোগ করা হয়, আসামে বসবাসকারী ২০ লাখের বেশি মুসলমানের শেকড় বাংলাদেশে। নতুন তালিকায় স্থান পেতে আগ্রহীদের ১৯৭১ সালের ২৪ মার্চের আগে থেকে তারা বা তাদের পূর্বপুরুষ ভারতে বসবাস করছে, সেই প্রমাণ দেখাতে হয়।

তবে প্রয়োজনীয় নথিপত্র না থাকায় এমন প্রক্রিয়ায় যেতেই পারছে না অনেকে।

স্থানীয় এক মাদ্রাসার শিক্ষক আসিফুল রহমান বলেন, 'আমার দাদা-দাদি এবং মা-বাবা সবাই ভারতে জন্ম নিয়েছে। কিন্তু আমাদের হাতে তার কোনো তথ্য না থাকায় আজ ভারতীয় হিসেবে নিজেদের প্রমাণ করতে লড়াই করতে হচ্ছে।'

জালিয়াতি করে দখল-বিক্রি কমরেড ফরহাদের বাড়ি

জালিয়াতি করে দখল-বিক্রি কমরেড ফরহাদের বাড়ি

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির প্রয়াত সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ফরহাদের বাড়ি জালিয়াতির ...

আওয়ামী লীগে তৎপর অর্ধশত তরুণ আইনজীবী

আওয়ামী লীগে তৎপর অর্ধশত তরুণ আইনজীবী

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে নিজ নিজ এলাকায় গণসংযোগ ...

সেই বিপাশার বিয়ে শুক্রবার

সেই বিপাশার বিয়ে শুক্রবার

তখন কতই বা বয়স ছিল তার— ৮ কিংবা ৯ বছর। উদ্ভ্রান্তের ...

 বিদায় চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি!

বিদায় চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি!

এ যেন বিশ্বকাপের মেলা! ২০১৯ ও ২০২০ সালের পর ২০২১ ...

পিরোজপুরে স্ত্রী ও শ্বশুরকে কুপিয়ে হত্যা

পিরোজপুরে স্ত্রী ও শ্বশুরকে কুপিয়ে হত্যা

পিরোজপুরে ইন্দুরকানি উপজেলার পাড়েরহাটে স্ত্রী ও শ্বশুরকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে আপন ...

রোহিঙ্গা শিবিরে দোকান নিয়ে সংঘর্ষে নারী নিহত

রোহিঙ্গা শিবিরে দোকান নিয়ে সংঘর্ষে নারী নিহত

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় নিবন্ধিত রোহিঙ্গা শিবিরে দোকান নির্মাণকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে ...

মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা বাড়াবে ইইউ

মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা বাড়াবে ইইউ

রোহিঙ্গা নির্যাতনের জেরে মিয়ানমারের ওপর আরোপিত অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা আরও এক ...

নারীরা এখন আর পিছিয়ে নেই: স্পিকার

নারীরা এখন আর পিছিয়ে নেই: স্পিকার

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, নারীরা এখন আর ...