কারাগারে খালেদা জিয়ার ১ সপ্তাহ

রায়ের অনুলিপি এখনও মেলেনি

প্রকাশ: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮      

সমকাল প্রতিবেদক

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার বিচারের রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি (সার্টিফায়েড কপি) ছয় দিনেও মেলেনি। গতকাল বুধবার বিকেল নাগাদ দেওয়ার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত তা পাওয়া যায়নি। আজ বৃহস্পতিবার অনুলিপি হাতে পেলে রোববার আপিল করা হবে বলে গতকাল রাতে সমকালকে জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া।

সানাউল্লাহ মিয়া আরও বলেন, গতকাল বুধবার সকালে পুরান ঢাকার বকশীবাজারে স্থাপিত পঞ্চম বিশেষ আদালতের কর্মকর্তা জানিয়েছিলেন, কপি তৈরির কাজ শেষ পর্যায়ে। বিকেল ৪টা নাগাদ তা দেওয়া হবে। তবে বিকেলে যোগাযোগ করা হলে জানানো হয়, এ মামলার রায়ের মূল কপি বিকেলে বেঞ্চ সহকারীর কাছে সংশোধন করে দিয়েছেন বিচারক। এখন সেটির অনুলিপি তৈরি করা হবে। মামলার অন্যান্য কাগজ তৈরি হয়ে গেছে। তাই গতকাল কপি পাওয়া যায়নি। আশা করা যায়, আজ বৃহস্পতিবার হয়তো রায়ের কপি পাব। আদালত সূত্রে জানা যায়, মূল রায় ৬৩২ পৃষ্ঠার হলেও রায়ের অনুলিপি হবে ছয় হাজার পৃষ্ঠার বেশি। ওই অনুলিপি হাতে আসার পরই জামিনের জন্য আপিল করতে পারবেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া।

গ্রেফতারের আবেদন ফেরত :বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার দেখানোর আবেদনটি বাদীকে ফেরত দিয়ে গুলশান থানা পুলিশকে আগামী ১৪ মার্চ এ সম্পর্কে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলেছেন আদালত। যুদ্ধাপরাধীদের মদদ দেওয়ার ওই মামলায় গতকাল বুধবার মামলাটির বাদী বাংলাদেশ জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এ বি সিদ্দিকী ওই আবেদন করেন। ঢাকা মহানগর হাকিম আহসান হাবীব শুনানি শেষে বিকেল ৩টার দিকে এ-সংক্রান্ত আদেশের জন্য রাখেন। পরে তা কোনো কারণ ছাড়াই বাদীকে ফেরত দেন বিচারক।

২০১৬ সালের ৩ নভেম্বর এ বি সিদ্দিকী আদালতে এ মামলা করেন। ওই দিন আদালত তেজগাঁও থানার ওসিকে তদন্তের নির্দেশ দেন। তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি তেজগাঁও থানার ওসি (তদন্ত) এ বি এম মশিউর রহমান মানহানির অভিযোগে অভিযুক্ত করে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিল করেন। এরপর আদালত ওই প্রতিবেদন আমলে নিয়ে ওই বছরের ২২ মার্চ খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির হতে সমন জারি করেন। আদালতে হাজির না হওয়ায় ওই বছরের ১২ অক্টোবর খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে পরোয়ানা জারি করা হয়। এ পর্যন্ত ওই আদেশ বাস্তবায়িত হয়নি।

আইনজীবীদের কর্মসূচি :বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বেআইনি ও অন্যায়ভাবে সাজা দেওয়ার প্রতিবাদে ও তার মুক্তির দাবিতে সুপ্রিম কোর্ট বার ভবনের সামনে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের উদ্যোগে প্রতীকী অনশন করেছেন আইনজীবীরা। গতকাল সুপ্রিম কোর্ট বার ভবনের সামনের রাস্তায় অবস্থান নিয়ে শতাধিক আইনজীবী খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে প্রতীকী অনশনে অংশ নেন।

এতে অংশ নিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, একটি ভুয়া, বানোয়াট ও মিথ্যা মামলায় খালেদা জিয়াকে সাজা দেওয়া হয়েছে। কোনো সাক্ষ্য-প্রমাণ ছাড়া এ মামলায় রায় দেওয়া হয়েছে। জাল-জালিয়াতি করে, কোনো রকম কাগজপত্র তৈরি করে সাজা দেওয়া হয়েছে। এর বিরুদ্ধে অবশ্যই আপিল করা হবে। তিনি বলেন, ছয় দিন পেরোলেও এখনও রায়ের কপি পাইনি।

আইনজীবী তৈমূর আলম খন্দকারের সভাপতিত্বে প্রতীকী অনশন কর্মসূচিতে অংশ নেন আইনজীবী ফজলুর রহমান, সুপ্রিম কোর্ট বারের সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুবউদ্দিন খোকন, সহসভাপতি উম্মে কুলসুম রেখা, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম নেতা ব্যারিস্টার বদরুদ্দোজা বাদল, খালেদা পান্না, রুহুল কুদ্দুস কাজল, গাজী কামরুল ইসলাম সজল, মীর মোহাম্মদ হেলাল উদ্দীন, শামীমা সুলতানা দিপ্তী, মির্জা আল মাহমুদ প্রমুখ।

কারাগার বদলের পরিকল্পনা নেই :পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারকে বিএনপির পক্ষ থেকে 'অনিরাপদ ও অস্বাস্থ্যকর' দাবি করা হলেও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সেখান থেকে আপাতত স্থানান্তরের কোনো পরিকল্পনা সরকারের নেই। দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি নেত্রীকে ওই কারাগারেই থাকতে হচ্ছে। এদিকে, গতকাল বুধবার তার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের একটি দল কারাগারে যেতে চাইলেও অনুমতি দেয়নি কারা কর্তৃপক্ষ। কারাবাসের এক সপ্তাহের মাথায় গতকাল বিকেল থেকে খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত গৃহপরিচারিকা ফাতেমা কারাগারে তার সঙ্গে থাকতে শুরু করেছেন। বিএনপি শুরু থেকেই ফাতেমাকে খালেদা জিয়ার সঙ্গে থাকতে দেওয়ার দাবি জানিয়ে আসছিল।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের দণ্ড পেয়ে ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডে পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রয়েছেন খালেদা জিয়া। বিএনপির পক্ষ থেকে তাদের নেত্রীকে উন্নত জায়গায় রাখার দাবি জানানো হয়েছে। গতকাল দুপুরে কোস্টগার্ড বাহিনীর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, খালেদা জিয়াকে অন্যত্র স্থানান্তর বা আপাতত কারাগার বদলের কোনো পরিকল্পনা নেই। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার সবচেয়ে নিরাপদ। সেখানকার পরিবেশ মোটেও অস্বাস্থ্যকর নয়। তিনি আরও বলেন, কারাবিধি অনুযায়ী খালেদা জিয়াকে যত সুযোগ-সুবিধা দেওয়া দরকার, সবই দেওয়া হচ্ছে।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গীর আলম সমকালকে বলেন, আদালতের নির্দেশে খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার ব্যক্তিগত গৃহপরিচারিকাকে থাকতে দেওয়া হয়েছে।

কারা সূত্র জানায়, গত রোববার আদালত খালেদা জিয়াকে ডিভিশন দেওয়ার পাশাপাশি তার ব্যক্তিগত একজন গৃহপরিচারিকাকে সঙ্গে রাখতে নির্দেশ দেন। ওই দিনই সেই নির্দেশনা পাওয়ার পর বিষয়টি যাচাই করে গতকাল বিকেল থেকে তার ব্যক্তিগত গৃহপরিচারিকা ফাতেমাকে তার সঙ্গে থাকার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। তবে কারারক্ষীরা তাকে নজরদারি করবে।

এদিকে, গতকাল দুপুরে নাজিমুদ্দিন রোডে পুরনো কারাগার এলাকায় যান বিএনপিপন্থি সাত চিকিৎসক। তারা নিজেদের খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে কারাগারে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষার অনুমতি চান। পুলিশের কথামতো তারা কারা অধিদপ্তরে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার আবেদন করেন। তবে কারা কর্তৃপক্ষ অনুমতি না দেওয়ায় তারা ফিরে আসেন।

চিকিৎসকদের ওই দলে ছিলেন- অধ্যাপক ডা. সিরাজ উদ্দিন আহমেদ, অধ্যাপক ডা. সাহাব উদ্দিন, অধ্যাপক ডা. মো. আবদুল কুদ্দুস, অধ্যাপক ডা. এস এম রফিকুল ইসলাম বাচ্চু, সহযোগী অধ্যাপক ডা. সাইফুল ইসলাম সেলিম, ডা. ফাওয়াজ হোসেন শুভ ও ডা. মনোয়ারুল কাদির বিটু।

কারা অধিদপ্তরের একজন কর্মকর্তা সমকালকে বলেন, খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য ভালো রয়েছে। তার সঙ্গে সার্বক্ষণিক একজন নার্স রয়েছেন। একজন চিকিৎসকও নিয়মিত তার স্বাস্থ্যের খোঁজ নিচ্ছেন। উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন হলে খালেদা জিয়া নিজেই কারা কর্তৃপক্ষকে বলবেন। অপর একজন কর্মকর্তা বলেন, জেল কোড অনুযায়ী সাজা পাওয়া কোনো কয়েদির সঙ্গে সাত দিনে একবার দেখা করার সুযোগ পাওয়া যায়। এ সপ্তাহে আর কারও দেখার সুযোগ নেই। অধ্যাপক ডা. মো. আবদুল কুদ্দুস অভিযোগ করে বলেন, খালেদা জিয়াকে নির্জন কারাগারে রাখা হয়েছে। তিনি অসুস্থ। এ জন্য তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু কারা কর্তৃপক্ষ অনুমতি দেয়নি।

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি: এখনও আবেদন করেনি আড়াই লাখ শিক্ষার্থী

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি: এখনও আবেদন করেনি আড়াই লাখ শিক্ষার্থী

একাদশ শ্রেণিতে সরকারি-বেসরকারি সব কলেজে ভর্তির তোড়জোড় চলছে। তিন দফায় ...

বাবা খুন হওয়ায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ যাচ্ছেন না ধনঞ্জয়া

বাবা খুন হওয়ায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ যাচ্ছেন না ধনঞ্জয়া

দলের সঙ্গে ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার শুক্রবার সকালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে ...

সীতাকুণ্ডে সড়কে প্রাণ গেল তিনজনের

সীতাকুণ্ডে সড়কে প্রাণ গেল তিনজনের

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় তিনজন নিহত হয়েছেন। শুক্রবার সকালে ...

প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে তিস্তা চুক্তির অগ্রগতি হবে: কাদের

প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে তিস্তা চুক্তির অগ্রগতি হবে: কাদের

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এবারের ভারত সফরে তিস্তা চুক্তি না হলেও ...

যশোর রেলওয়ের সেই পুকুরের ইজারা বাতিল

যশোর রেলওয়ের সেই পুকুরের ইজারা বাতিল

যশোর রেলওয়ে জংশনের সেই পুকুরের ইজারা বাতিল করা হয়েছে। বাতিলের ...

পাকিস্তান ক্রিকেটারদের 'স্মার্ট' ঘড়ি পরতে মানা

পাকিস্তান ক্রিকেটারদের 'স্মার্ট' ঘড়ি পরতে মানা

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে লর্ডস টেস্টের প্রথম দিনটা দারুণ কেটেছে পাকিস্তানের। ইংলিশ ...

পুকুরে ডুবে প্রাণ গেল দুই বোনের

পুকুরে ডুবে প্রাণ গেল দুই বোনের

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় পুকুরের পানিতে ডুবে ২ শিশুর মার্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার ...

আড়াই হাজার টাকার জন্য বৃদ্ধকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

আড়াই হাজার টাকার জন্য বৃদ্ধকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

পাওনা আড়াই হাজার টাকা না পেয়ে পাবনার আমিনপুরে এক বৃদ্ধকে ...