ক্যামেরার ক্লিক করবেন না আর প্রিয়ক

প্রকাশ: ১৩ মার্চ ২০১৮      

এম তুষারী, কালিয়াকৈর প্রতিনিধি

প্রিয়কের এই ছবিই ঘুরছে এখন ফেসবুকে

ক্যামেরায় ছবি বন্দি শখ ছিল প্রিয়কের, স্কুল জীবন থেকেই। একাধিক পুরস্কারও পেয়েছিলেন তিনি এতে। মস্ত বড় ফটোগ্রাফার হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে এগিয়েও যাচ্ছিলেন দুর্বার গতিতে। কিন্তু সেই স্বপ্ন-গতি থেমে গেল, সত্যি হলো না আর। কোনওদিন ক্যামেরার বাটনে ক্লিক করবেন না প্রিয়ক।

মঙ্গলবার তার গ্রামের বাড়ীতে গিয়ে দেখা যায় শোকের মাতম। মা ফিরোজা বেগম বুক চাপাড়িয়ে বার বার সংজ্ঞাহীন হচ্ছিলেন আর বলছিলেন, 'বাবারে তুই কই গেলি, ফিরা আয়।'

একমাত্র সন্তান ও তিন বছর বয়সী নাতনিকে হারিয়ে শোকে স্তব্ধ হয়ে গেছেন মা ফিরোজা বেগম। বাড়ি ভর্তি আত্মীয় স্বজনের দিকে ফ্যালফ্যাল করে তাকিয়ে মাঝে মধ্যে বলে উঠছেন, 'সবাই আছে, আমার বাবা কই!' প্রিয়কের গ্রামের (নগরহাওলা) বাড়ির পাশের রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী পথচারীদের চোখেও জল।

২০১৩ সালে অ্যামেচার ফটোগ্রাফি বাংলাদেশের আয়োজনে ফটো প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয়েছিলেন প্রিয়ক। ২০১৬ সালের বেঙ্গল ইমেজ ফার্স্ট ন্যাশনাল ফটো কনটেস্ট ৪র্থ হয়েছিলেন তিনি। এ ছাড়া বাংলাদেশ সোসাইটি অব ফটোগ্রাফি আর্ট ২০১৪, কালারস অব লাইফ ২০১৪ কম্পিটিশনেও পুরস্কার জিতেছিলেন, পুরস্কৃত হয়েছিলেন সুইস অ্যাম্বাসির আয়োজনে 'ফোকাস অন কালচার' প্রতিযোগিতাতেও। সম্প্রতি 'হামদান ইন্টারন্যাশনাল ফটোগ্রিিফ এ্যাওয়ার্ড-হিপা'-এর জন্য ছবি জমা দিয়েছিলেন তিনি।

তার পরিবার সূত্রে আরও জানা যায়, ২০১২ সালে প্রিয়ক বিয়ে করেন। গত ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসের চৌদ্দ তারিখ কন্যা সন্তানের বাবা হন তিনি। নাম রাখা হয় তামারা প্রিয়ন্ময়ী। সন্তান জন্মের পর থেকেই প্রিয়কের মধ্যে ব্যাপক পরিবর্তন চলে আসে। সারাক্ষণ যেখানেই থাকুন না কেন দিনে কয়েকবার মেয়ের সাথে ফোনে কথা বলতেনই।

প্রিয়কের ঘনিণ্ঠ বন্ধু ইকবাল আহমেদ নিশাত বলেন, 'তিনি মানুষকে ভীষণভাবে পাঠ করতে পারতেন। এই সমাজ নিয়ে তার ছিল গভীর চিন্তা। প্রিয়কের মৃত্যুতে আমরা হারিয়েছে একজন চিন্তাশীল মানুষকে।'

আরেক বন্ধু ফারুক জানান, 'সিএনয়া, হিপা প্রতিযোগিতায় বহু ছবি পাঠিয়ে রেখেছে প্রিয়ক। তার একটা স্বপ্ন ছিল নিজের তোলা ছবি দিয়ে ফটো মিউজিয়াম বানাবে। তা আর হলো না।'

নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় প্রিয়ক চলে গেছেন, চলে গেছে তার তিন বছরের মেয়ে প্রিয়ন্ময়ীও। যে প্রিয়ক একদিন ছবি তুলতেন, ছাপা হতো এখানে ওখানে, সেই তার এবং তার মেয়ের নিজ ছবি এখন ছাপা হচ্ছে এখানে ওখানে! নিচে লেখা-এরা আজ মৃত!


বিষয় : ইউএস-বাংলা ইউএস বাংলা

পরবর্তী খবর পড়ুন : নাসিরনগরে আ'লীগ ও সুন্দরগঞ্জে জাপা প্রার্থী বিজয়ী

আরও পড়ুন

ক্যামেরা দেখেই গাড়ির কাঁচ তুললেন প্রিয়াঙ্কা!

ক্যামেরা দেখেই গাড়ির কাঁচ তুললেন প্রিয়াঙ্কা!

জল্পনা ছিল অনেক দিন ধরেই; এবার তা বাস্তবে রূপ নিল! ...

নওগাঁয় ট্রাকচাপায় প্রাণ গেল ইজিবাইকের ২ যাত্রীর

নওগাঁয় ট্রাকচাপায় প্রাণ গেল ইজিবাইকের ২ যাত্রীর

নওগাঁর সাপাহার উপজেলায় ট্রাকচাপায় ইজিবাইক আরোহী দুইজন নিহত হয়েছে।শুক্রবার সকালে ...

ময়মনসিংহে 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত ২

ময়মনসিংহে 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত ২

ময়মনসিংহের তারাকান্দা ও ত্রিশাল উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' দুইজন নিহত ...

যেভাবে দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে পারে আর্জেন্টিনা

যেভাবে দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে পারে আর্জেন্টিনা

এবারের বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার ‘সুপার ফ্লপ শো’ চলছেই। প্রথম ম্যাচে আইসল্যান্ডের ...

স্বরূপে ফিরুক ব্রাজিল

স্বরূপে ফিরুক ব্রাজিল

সোচি থেকে বুধবার রাত ১১টায় নেইমার-মার্সেলোরা যখন সেন্ট পিটার্সবার্গে পৌঁছান ...

আর্জেন্টিনার বিদায় ঘণ্টা বেজেই গেল?

আর্জেন্টিনার বিদায় ঘণ্টা বেজেই গেল?

গত বিশ্বকাপের রানার আপ দল। এবারের আসরেও ফেভারিটের তকমা নিয়ে ...

ব্যাংকে সুদহার কমানোর সিদ্ধান্ত তদারক করবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক

ব্যাংকে সুদহার কমানোর সিদ্ধান্ত তদারক করবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক

ঋণ ও আমানতের সুদহার কমানোর সিদ্ধান্ত যেন ঘোষণাতেই সার না ...

মাজেদা রিকশা না চালালে পরিবার চলবে কীভাবে

মাজেদা রিকশা না চালালে পরিবার চলবে কীভাবে

১৪ বছর বয়সী মাজেদার অপরাধ- সে না খেয়ে থাকতে চায়নি। ...