কোটা সংস্কার সহানুভূতির সঙ্গে বিবেচনা করুন: রওশন

প্রকাশ: ১২ জুলাই ২০১৮     আপডেট: ১২ জুলাই ২০১৮      

সমকাল প্রতিবেদক

ফাইল ছবি

দেশে পর্যাপ্ত কর্মসংস্থান না থাকার কারণেই তরুণ প্রজন্ম কোটা সংস্কারের দাবি নিয়ে সক্রিয়। তাই কোটা সংস্কারের বিষয়টি সহানুভূতির সঙ্গে বিবেচনার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিরোধীদলীয় নেত্রী ও জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ। 

বৃহস্পতিবার দশম সংসদের একুশতম (বাজেট) অধিবেশনের সমাপনী বক্তৃতায় তিনি এ আহ্বান জানান। বিরোধীদলীয় নেত্রী বলেন, কোটা নিয়ে ছেলেমেয়েদের মধ্যে অনেক বিভ্রান্তি দেখা যাচ্ছে। তারা কোটা নিয়ে আন্দোলন করছে। তারা তো আমাদেরই সন্তান। লেখাপড়া শেষ করে তারা চাকরি চাইবে। যেমন করে হোক, তাদের চাকরির নিশ্চয়তা দিতে হবে। চাকরি তাদের দিতে হবে। প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে সচেতন আছেন এমন মন্তব্য করে তাকে সহানুভূতির দৃষ্টিতে এ বিষয়টি বিবেচনা করার আহ্বান জানান তিনি।

চাকরিতে প্রবেশের বয়সমীমা ৩৫ বছর ও অবসরের বয়সসীমা ৬৫ বছরে উত্তীর্ণ করার দাবি করে রওশন এরশাদ বলেন, চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমার বিষয়টিও সহানুভূতির সঙ্গে বিবেচনা করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী দেশকে ভালোবাসেন। জাতিকে ভালোবাসেন। তিনি এটা পারবেন। তিনি না করে পারবেন না।

বাজেট বাস্তবায়নে অর্থবছরের শেষ সময় অর্থ খরচের প্রবণতার বিষয়টি তুলে ধরে তিনি বলেন, এ সময়টা বর্ষাকাল হওয়ায় অর্থের অনেক অপচয় ঘটে। তিনি অর্থবছর সময়কাল পরিবর্তনের প্রস্তাব করেন। 

বিরোধীদলীয় নেত্রী বলেন, বিদেশে চিকিৎসকরা আন্তরিকভাবে রোগী দেখেন বলে মানুষ বিদেশে যায়। বাইরের চিকিৎসকরা অনেক বেশি আন্তরিকভাবে রোগী দেখেন; কিন্তু দেশের চিকিৎসকদের আন্তরিকতার ঘাটতি রয়েছে। ওষুধের চেয়ে চিকৎসকের আন্তরিকতা রোগীর জন্য বেশি প্রয়োজন। 

রওশন এরশাদ বলেন, মাদকের ব্যাপারে সচেতনতা গড়ে ওঠেনি। অনেক প্রভাবশালী লোক মাদকে জড়িয়ে পড়েছে। মাদকের ব্যবসা করছে। কর্মসংস্থানের অভাবে অনেকে মাদক ব্যবসায় জড়াচ্ছে।

রাজধানীর যানজট প্রসঙ্গে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতি চলাচল করলে রাস্তা বন্ধ রাখা হয়। সেই যানজট ছাড়তে ছাড়তে রাত হয়ে যায়। এখানে যারা আছেন সবাই জানেন; কিন্তু কারও সাহস নেই বলার। সবাই যানজটে নাকাল থাকে। প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, গত নির্বাচনে ঝুঁকি নিয়ে নির্বাচন করে প্রধানমন্ত্রীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সব সমস্যা তাকেই দেখতে হবে। এ সমস্যাগুলো না দেখলে সরকারের ভালো কাজগুলো ফুটে উঠবে না। 

আরও পড়ুন

অনিশ্চয়তায় তাদের ছবি

অনিশ্চয়তায় তাদের ছবি

বেশ ডাকঢোল পিটিয়ে মহরত হলে শাকিব খান অভিনীত দুটি ছবি ...

বন্যাকবলিত ৫ জেলার বিশেষ ব্যবস্থায় লেখাপড়া চালিয়ে নেওয়ার নির্দেশ

বন্যাকবলিত ৫ জেলার বিশেষ ব্যবস্থায় লেখাপড়া চালিয়ে নেওয়ার নির্দেশ

উত্তরাঞ্চলসহ দেশের বন্যাকবলিত পাঁচ জেলায় শিক্ষার্থীদের বিশেষ ব্যবস্থায় পাঠদান চালিয়ে ...

অন্তর্জ্বালা থেকে মনগড়া কথা বলেছেন সিনহা: ওবায়দুল কাদের

অন্তর্জ্বালা থেকে মনগড়া কথা বলেছেন সিনহা: ওবায়দুল কাদের

সাবেক হওয়ার অন্তর্জ্বালা থেকেই বিদেশে বসে সাবেক প্রধান বিচারপতি এস ...

বিচার চলবে খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই

বিচার চলবে খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই

কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি ...

উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে 'আলোচনায় প্রস্তুত' যুক্তরাষ্ট্র

উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে 'আলোচনায় প্রস্তুত' যুক্তরাষ্ট্র

২০২১ সালের মধ্যে উত্তর কোরিয়াকে পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের আওতায় আনতে দেশটির ...

কোটালীপাড়ায় ইয়াবাসহ গ্রেফতার ৩

কোটালীপাড়ায় ইয়াবাসহ গ্রেফতার ৩

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় ইয়াবাসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।মঙ্গলবার রাতে গোপন সংবাদের ...

২১ দফা অভিযোগ আনা হচ্ছে রাজাকের বিরুদ্ধে

২১ দফা অভিযোগ আনা হচ্ছে রাজাকের বিরুদ্ধে

মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের বিরুদ্ধে অর্থপাচারের ২১ দফা অভিযোগ ...

আলোচনায় বসতে মোদিকে চিঠি দিলেন ইমরান

আলোচনায় বসতে মোদিকে চিঠি দিলেন ইমরান

মাস খানেক আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি একটি চিঠি লিখেছিলেন সদ্য ...