কোটা সংস্কার সহানুভূতির সঙ্গে বিবেচনা করুন: রওশন

প্রকাশ: ১২ জুলাই ২০১৮     আপডেট: ১২ জুলাই ২০১৮      

সমকাল প্রতিবেদক

ফাইল ছবি

দেশে পর্যাপ্ত কর্মসংস্থান না থাকার কারণেই তরুণ প্রজন্ম কোটা সংস্কারের দাবি নিয়ে সক্রিয়। তাই কোটা সংস্কারের বিষয়টি সহানুভূতির সঙ্গে বিবেচনার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিরোধীদলীয় নেত্রী ও জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ। 

বৃহস্পতিবার দশম সংসদের একুশতম (বাজেট) অধিবেশনের সমাপনী বক্তৃতায় তিনি এ আহ্বান জানান। বিরোধীদলীয় নেত্রী বলেন, কোটা নিয়ে ছেলেমেয়েদের মধ্যে অনেক বিভ্রান্তি দেখা যাচ্ছে। তারা কোটা নিয়ে আন্দোলন করছে। তারা তো আমাদেরই সন্তান। লেখাপড়া শেষ করে তারা চাকরি চাইবে। যেমন করে হোক, তাদের চাকরির নিশ্চয়তা দিতে হবে। চাকরি তাদের দিতে হবে। প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে সচেতন আছেন এমন মন্তব্য করে তাকে সহানুভূতির দৃষ্টিতে এ বিষয়টি বিবেচনা করার আহ্বান জানান তিনি।

চাকরিতে প্রবেশের বয়সমীমা ৩৫ বছর ও অবসরের বয়সসীমা ৬৫ বছরে উত্তীর্ণ করার দাবি করে রওশন এরশাদ বলেন, চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমার বিষয়টিও সহানুভূতির সঙ্গে বিবেচনা করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী দেশকে ভালোবাসেন। জাতিকে ভালোবাসেন। তিনি এটা পারবেন। তিনি না করে পারবেন না।

বাজেট বাস্তবায়নে অর্থবছরের শেষ সময় অর্থ খরচের প্রবণতার বিষয়টি তুলে ধরে তিনি বলেন, এ সময়টা বর্ষাকাল হওয়ায় অর্থের অনেক অপচয় ঘটে। তিনি অর্থবছর সময়কাল পরিবর্তনের প্রস্তাব করেন। 

বিরোধীদলীয় নেত্রী বলেন, বিদেশে চিকিৎসকরা আন্তরিকভাবে রোগী দেখেন বলে মানুষ বিদেশে যায়। বাইরের চিকিৎসকরা অনেক বেশি আন্তরিকভাবে রোগী দেখেন; কিন্তু দেশের চিকিৎসকদের আন্তরিকতার ঘাটতি রয়েছে। ওষুধের চেয়ে চিকৎসকের আন্তরিকতা রোগীর জন্য বেশি প্রয়োজন। 

রওশন এরশাদ বলেন, মাদকের ব্যাপারে সচেতনতা গড়ে ওঠেনি। অনেক প্রভাবশালী লোক মাদকে জড়িয়ে পড়েছে। মাদকের ব্যবসা করছে। কর্মসংস্থানের অভাবে অনেকে মাদক ব্যবসায় জড়াচ্ছে।

রাজধানীর যানজট প্রসঙ্গে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতি চলাচল করলে রাস্তা বন্ধ রাখা হয়। সেই যানজট ছাড়তে ছাড়তে রাত হয়ে যায়। এখানে যারা আছেন সবাই জানেন; কিন্তু কারও সাহস নেই বলার। সবাই যানজটে নাকাল থাকে। প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, গত নির্বাচনে ঝুঁকি নিয়ে নির্বাচন করে প্রধানমন্ত্রীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সব সমস্যা তাকেই দেখতে হবে। এ সমস্যাগুলো না দেখলে সরকারের ভালো কাজগুলো ফুটে উঠবে না। 

আরও পড়ুন

Best Electronics
বিএনপি-জামায়াত 'পাতানো খেলা'

বিএনপি-জামায়াত 'পাতানো খেলা'

সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থিতার সিদ্ধান্তে এখনও ...

সর্বত্রই নৌকা, ধানের শীষের দেখা নেই

সর্বত্রই নৌকা, ধানের শীষের দেখা নেই

ভোরে ট্রেন থেকে নেমে রাজশাহীর পরিপাটি স্টেশন চত্বরে পা রেখেই ...

কাউন্সিলর পদেও 'দলীয় প্রতীক'

কাউন্সিলর পদেও 'দলীয় প্রতীক'

বরিশাল সিটি করপোরেশন (বিসিসি) নির্বাচনের মাঠে ক্রমে বাড়ছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা। সময় ...

বিশ্বকাপের সেরা পাঁচ গোল

বিশ্বকাপের সেরা পাঁচ গোল

গোলের খেলা ফুটবল। গোল না হলে কেমন যেন পানসে মনে ...

ক্রোয়েশিয়ার কান্না বৃষ্টি হয়ে নামল

ক্রোয়েশিয়ার কান্না বৃষ্টি হয়ে নামল

‘আমরা কাঁদছি কোথায়। এ তো কেবল বৃষ্টির ঝটকা।’ ম্যাচ শেষে ...

বিশ্বকাপের সেরা উদীয়মান এমবাপ্পে

বিশ্বকাপের সেরা উদীয়মান এমবাপ্পে

এমবাপ্পেকে উদীয়মান তারকা বলা হয়তো ঠিক হবে না। বিশ্বকাপের আগেই ...

বিশ্বকাপের সেরা ফুটবলার মডরিচ

বিশ্বকাপের সেরা ফুটবলার মডরিচ

ক্রোয়েশিয়াকে বিশ্বকাপ ফাইনালে তোলার বড় অবদার লুকা মডরিচের। ফাইনালেও ক্রোয়েশিয়া ...

হ্যারি কেনের গোল্ডেন বুট

হ্যারি কেনের গোল্ডেন বুট

ফাইনালে খেলার কথা ছিল তার। তবে ক্রোয়েশিয়া বাধা পেরুতে পারেননি ...