চাকরি দেওয়াই তাদের 'ব্যবসা'

প্রকাশ: ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮       প্রিন্ট সংস্করণ     

বকুল আহমেদ

মাল্টিলেভেল মার্কেটিং (এমএলএম) কোম্পানির প্রতারণাকেও হার মানিয়েছে উইনেক্স টেক্স করপোরেশন লিমিটেড নামে একটি ভুঁইফোঁড় প্রতিষ্ঠান। এমএলএম কোম্পানিতে বিনিয়োগ করলে নির্দিষ্ট অর্থের কোনো পণ্য দেওয়া হতো। এর পর সদস্য সংগ্রহের ওপর কমিশনের নামে চলত প্রতারণা। কিন্ত এই প্রতিষ্ঠানটি পণ্য নয়; সরাসরি জনবল নিয়োগের ব্যবসায় নেমেছে। ভিন্ন কৌশলে প্রতারণার জন্য প্রথমে চাকরি দেওয়ার নামে জামানত হিসেবে মোটা অংকের টাকা রেখে বেকারদের নিয়োগ দেয়। এর পর তাদের কিছুদিন প্রশিক্ষণ দিয়ে এই কোম্পানিতে আরও জনবল নিয়োগ করার দায়িত্ব দেওয়া হয়। এটিই তাদের চাকরি।

কোনো সদস্য নতুন একজনকে ৪৬ হাজার টাকার জামানতে কোম্পানির সদস্য করতে পারলে তাকে ৯ হাজার টাকা কমিশন দেওয়া হয়। এভাবে হাজার হাজার নিরীহ মানুষের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছে উইনেক্স টেক্স করপোরেশনের প্রতারকরা। সম্প্রতি কয়েকজন ভুক্তভোগীর অভিযোগের ভিত্তিতে এ প্রতিষ্ঠানের ১৬ প্রতারককে গ্রেফতার করেছে পুলিশের সিরিয়াস ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগ। এ প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান শাওন হাওলাদার, ব্যবস্থাপনা পরিচালক আকাশ আহম্মেদ, উপব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহমুদুল হাসান টাইগার, ভাইস চেয়ারম্যান ফিরোজ কবিরসহ সাতজন এজাহারভুক্ত আসামি পলাতক। পুলিশ তাদের খুঁজছে। তারা এই প্রতারক চক্রের মূল হোতা।

জানা যায়, রাজধানীর ভাটারা থানার আওতাধীন বারিধারা আবাসিক এলাকার জে ব্লকের ২ নম্বর সড়কের (নুরের চালা) ১০ নম্বর বাড়ি ভাড়া নিয়ে উইনেক্স কার্যালয় খুলে বসে প্রতারক চক্র। এক বছর ধরে এই বাড়িতে কার্যক্রম চালায় তারা। এর আগে এই প্রতিষ্ঠানের অফিস ছিল উত্তরায়। ধরা পড়ে যাওয়ার আতঙ্কে দেড় থেকে দুই বছরের মধ্যে অফিস বদল করে ফেলে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনাকারীরা।

ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে গত ১ আগস্ট নূরের চালার অফিসে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ১৬ জনকে গ্রেফতার করে। এর পর থেকেই সেটি তালাবদ্ধ। চাকরি দেওয়ার নামে জামানত হিসেবে তিন ক্যাটাগরিতে মানুষের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয় এসব প্রতারক। প্রথম ক্যাটাগরিতে ৪৬ হাজার টাকা, দ্বিতীয় ক্যাটাগরিতে ৪৪ হাজার ৫০০ এবং তৃতীয় ক্যাটাগরিতে ২২ হাজার টাকা। এভাবে প্রতিদিন অন্তত ৪-৫ লাখ টাকা নিরীহ মানুষের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছে এই প্রতারকরা। এ পর্যন্ত কয়েক কোটি টাকা তারা আত্মসাৎ করেছে বলে জানতে পেরেছে পুলিশ। কেউ জামানত ফেরত চাইলে তাকে হুমকি দিয়ে সাদা স্ট্যাম্পে জোরপূর্বক স্বাক্ষর করিয়ে নিত প্রতারকরা।

প্রতারণার শিকার বাইজিদ হোসেন জানান, তার বাড়ি চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার পীরপুরকুল্লা গ্রামে। উইনেক্স টেক্স করপোরেশনের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহমুদুল হাসান টাইগারের মাধ্যমে জানতে পারেন, তাদের প্রতিষ্ঠানে কিছু সংখ্যক বিক্রয় প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। পরে গত ১৪ জুলাই তিনি ওই প্রতিষ্ঠানের কার্যালয়ে আসেন। সিরামিক ও ইলেকট্রনিক্স পণ্যের বিক্রয় প্রতিনিধি হিসেবে তার চাকরি হয়ে যায়। এ জন্য তাকে জামানত হিসেবে ৪৬ হাজার টাকা দিতে হয়। এইচএসসি পাস বাইজিদ ৪৬ হাজার টাকার বিনিময়ে চাকরি পেয়েছেন- এটিই তার কাছে সোনার হরিণের মতো। পরে পণ্য বিক্রি করতে না দিয়ে তাকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। এতে তিনি ছাড়া আরও অন্তত ২০ যুবক অংশ নেন। প্রশিক্ষণে পণ্য বিপণন নয়, প্রতারণার কৌশল শেখানো হয় তাদের। তাদের বলা হয়, গ্রামাঞ্চল থেকে চাকরিপ্রত্যাশী স্বল্প শিক্ষিত বেকার মানুষ সংগ্রহ করতে হবে। কীভাবে মানুষকে প্রলোভন দেখিয়ে আগ্রহ বাড়াতে হবে সেসব কৌশলও শেখানো হয়। তাদের আরও বলা হয়, চাকরি দেওয়ার নামে জামানত হিসেবে সর্বোচ্চ নেওয়া হবে ৪৬ হাজার টাকা। একজন ব্যক্তি নতুন একজনকে ৪৬ হাজার টাকার জামানতে কোম্পানিতে নিয়োগ দিলে তাকে ৯ হাজার টাকা কমিশন দেওয়া হবে। যারা নতুনভাবে নিয়োগ পাবেন, তাদেরও একইভাবে মানুষ সংগ্রহের প্রশিক্ষণ দেয় এই প্রতারকরা।

প্রতারণার শিকার হয়েছেন বুঝতে পেরে বাইজিদ জামানতের টাকা ফেরত চান প্রতারকদের কাছে। কিন্তু টাকা না দিয়ে তার কাছ থেকে সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করিয়ে নেয় তারা। চুয়াডাঙ্গার ইমরান হোসেন, রয়েল আলী, আরিফুল ইসলাম, নায়েব আলী ও রাজবাড়ির পান্নু মহাজনের কাছ থেকে একইভাবে প্রতারক চক্র টাকা হাতিয়ে নেয়। তবে বাইজিদ ও পান্নু ভাটারা থানায় ২ আগস্ট পৃথক দুটি মামলা করেছেন উইনেক্স টেক্স করপোরেশনের ২৩ কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে। মামলা দুটি সিরিয়াস ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগে স্থানান্তর করা হয়।

এখন পর্যন্ত এজাহারভুক্ত ১৬ জন গ্রেফতার হয়েছে। তারা হলো- ভাটারার আরিফুল ইসলাম ওরফে জুয়েল, রংপুরের পীরগঞ্জের কাবিলপুরের বাবু প্রামাণিক, একই জেলার প্রতাববিষু গ্রামের আশিকুর রহমান ও ডারারপাড়ের নুর আলম সিদ্দিকী, পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার শ্রীরামকাঠি গ্রামের জগবন্ধু মণ্ডল, চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার বিশ্বাসপাড়ার মোহাম্মদ আলী, রাজশাহী পুঠিয়ার কান্দেরা গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম ও একই জেলার দুর্গাপুরের উজ্জ্বল হোসেন, নওগাঁর ধামইরহাটের দুর্গাপুর গ্রামের মাহফুজুর রহমান, চুয়াডাঙ্গার সরিষাডাঙ্গা গ্রামের তুহিন আলী, বিষুষ্ণপুরের হিমেল আলী মণ্ডল ও আহসান হাবিব, কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার ঘাটিগ্রামের জামাল উদ্দিন বিশ্বাস, দৌলতপুর উপজেলার শিখালাইপাড়ার রবিউল ইসলাম ও মাসুদ রানা এবং জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার কাছিমা উত্তরপাড়া গ্রামের মাজেদুল ইসলাম আকন্দ। তাদের প্রত্যেকের বাসা ঢাকায়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিরিয়াস ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগের পরিদর্শক মনিরুজ্জামান সমকালকে বলেন, এজাহারভুক্ত আসামিরা অর্ধশিক্ষিত, স্বল্প শিক্ষিত বেকার মানুষকে চাকরি দেওয়ার নামে টাকা নিয়ে আত্মসাৎ করেছে। গ্রেফতার ব্যক্তিরা জানিয়েছে, নুরের চালা অফিসে চাকরি দেওয়ার নামে দেড় হাজার মানুষকে সদস্য করা হয়েছে। তাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে তারা।

আরও পড়ুন

রাজশাহী খুলনা বরিশাল ও রংপুরের ৮১ আসনে আ'লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত

রাজশাহী খুলনা বরিশাল ও রংপুরের ৮১ আসনে আ'লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত

রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল ও রংপুর বিভাগের কমপক্ষে ৮১ আসনে দলীয় ...

এমপি হতে চান ১২ হাজার!

এমপি হতে চান ১২ হাজার!

আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে এমপি হতে চান ১২ হাজারের বেশি নেতা। ...

শিক্ষকদের ভোটের 'ভেট'

শিক্ষকদের ভোটের 'ভেট'

নির্বাচনের আগেই সারাদেশের সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষকরা পেলেন বেশ কিছু ...

শেকড়ের টান উপেক্ষা করা যায় না

শেকড়ের টান উপেক্ষা করা যায় না

ইউরোপে যখন রক আর টেকনো নিয়ে মাতামাতি চলছে, ঠিক সেই ...

নতুন মুখ আসতে পারে বগুড়ার তিন আসনে

নতুন মুখ আসতে পারে বগুড়ার তিন আসনে

বগুড়ায় এবার অন্তত তিনটি আসনে ধানের শীষ প্রতীকে নতুন প্রার্থী ...

জয়পুরহাটে লেভেল ক্রসিংয়ে অল্পের জন্য বাঁচলো ৪৮ বাস যাত্রী

জয়পুরহাটে লেভেল ক্রসিংয়ে অল্পের জন্য বাঁচলো ৪৮ বাস যাত্রী

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর পৌর এলাকার পশ্চিম আমুট্ট (মহিলা কলেজ সংলগ্ন) এলাকায় ...

সিডরে নিখোঁজের ১১ বছর পর প্রত্যাবর্তন

সিডরে নিখোঁজের ১১ বছর পর প্রত্যাবর্তন

প্রলংয়করী ঘূর্ণিঝড় সিডরে নিখোঁজের ১১ বছর পর বাড়ি ফিরেছেন শরণখোলা ...

সরকারি কাজে বাধা দেয়ায় রাবি ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতির জেল

সরকারি কাজে বাধা দেয়ায় রাবি ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতির জেল

সরকারি কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক ...