সিটি নির্বাচন

রাজশাহী সিটি নির্বাচন : সাক্ষাৎকার

রাজশাহী হবে এশিয়ার অন্যতম বাসযোগ্য শহর :লিটন

প্রকাশ: ০৬ জুলাই ২০১৮       প্রিন্ট সংস্করণ     

সৌরভ হাবিব, রাজশাহী

রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিটি নির্বাচনে দলীয় মেয়র প্রার্থী এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন। ২০০৮ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত রাজশাহীর মেয়র থাকাকালে অনেক উন্নয়নকাজ করার পরও গত সিটি নির্বাচনে তিনি পরাজিত হয়েছিলেন। এ পরাজয়ের পেছনে প্রধান কারণ হিসেবে তিনি দায়ী করেছিলেন বিএনপি-জামায়াত ও হেফাজতে ইসলামের অপপ্রচারকে। তাই আগামী সিটি নির্বাচনের প্রধান চ্যালেঞ্জ হিসেবে তিনি দেখছেন অপপ্রচার ঠেকানোকেই। এ জন্য নেতাকর্মীদের সজাগ থাকতে পরামর্শ দিচ্ছেন। আবারও মেয়র নির্বাচিত হলে বর্ধিত হোল্ডিং ট্যাক্স কমানো, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, বস্তির মানুষের জন্য আরামদায়ক বাসস্থান নির্মাণসহ রাজশাহীকে এশিয়ার মধ্যে একটি অন্যতম বাসযোগ্য শহরে পরিণত করতে চান।

সমকালকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে খায়রুজ্জামান লিটন এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, এবার বিএনপি-জামায়াত প্রার্থীরা গরিব-দুস্থ মানুষের বস্তি, বাজারের ক্ষুদ্র দোকান এলাকাগুলোতে গিয়ে ব্যাপকভাবে অপপ্রচার চালাচ্ছে, তাকে (লিটন) নির্বাচিত করা হলে তিনি তাদের উচ্ছেদ করে সেখানে বিনোদন এলাকা বা পার্ক নির্মাণ করবেন। এমন অপপ্রচার যেন রাজশাহীবাসী গ্রহণ না করে, সে জন্য মানুষকে বোঝাচ্ছেন যে এমন কিছুই হবে না; বরং বস্তির মানুষের বসবাস যেন আরামদায়ক এবং স্থায়ী হয়, সে জন্য ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করবেন।

বিএনপি প্রার্থীর ভোট ডাকাতির আশঙ্কার অভিযোগের বিষয়ে তিনি বলেন, বিএনপির প্রার্থী জনবিচ্ছিন্ন হয়ে গেছেন। নিজ দলের কর্মীরাও তার কাছ থেকে দূরে চলে গেছেন তার স্বজনপ্রীতির কারণে। সে ক্ষেত্রে তিনি তার ব্যর্থতা ঢাকার চেষ্টা হিসেবেই এসব মিথ্যাচার করছেন। আওয়ামী লীগের হাত ধরে সারাদেশে যে উন্নয়ন হচ্ছে, সেটা মানুষ দেখছে, বুঝছে এবং সুফল পাচ্ছে। তারা এমনিতেই এবার নৌকায় ভোট দেবেন।

বাসাবাড়ির বর্ধিত হোল্ডিং ট্যাক্স কমানোর আশ্বাস দিয়ে খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, সদ্য সাবেক মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল দেড় বছরেও হোল্ডিং ট্যাক্স কমাতে পারেননি এবং কোনো পদক্ষেপও নেননি। সিটি করপোরেশনের আয়ের খাতগুলো আমি জানি। কাজেই হোল্ডিং ট্যাক্স যেটুকু বাড়ানো হয়েছে, মেয়র হলে তা কমিয়ে আনতে পারব।

বর্তমান নগরীর পরিসর ৭৫ বর্গকিলোমিটার থেকে বাড়িয়ে অন্তত ৩৫০ বর্গকিলোমিটার করতে চান লিটন। তিনি বলেন, রাজশাহী নগর পুলিশের নতুন ১২টি থানা এলাকা নিয়ে আমরা সিটি করপোরেশনের নতুন এলাকা ঘোষণা করতে চাই। তাহলে ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করা সম্ভব হবে। পরিকল্পিত আবাসিক এলাকা নির্মাণ, বড় বড় রাস্তা, লেক, খেলার মাঠ, দর্শনীয় স্থান, বিনোদনমূলক জায়গা, সাংস্কৃতিক এলাকা- সবকিছু মিলিয়ে একটি চমৎকার শহর গড়ে তুলতে চাই। রাজশাহীকে সিঙ্গাপুর, কুয়ালালামপুরের মতো এশিয়ার মধ্যে একটি অন্যতম বসবাসযোগ্য শহর হিসেবে গড়ে তুলতে চাই।

ব্যাপক কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবেন উল্লেখ করে লিটন বলেন, শিল্পায়ন করে অর্থনৈতিক প্রবাহ সৃষ্টি করতে চাই, যেন অনেক বেকারের কর্মসংস্থান হয়। বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্ক হচ্ছে। সেখানেও কয়েক হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে।

নগর স্বাস্থ্যসেবা প্রতিটি ওয়ার্ডে ছড়িয়ে দিতে চান লিটন। তিনি বলেন, নগরীতে আরবান প্রাইমারি হেলথ কেয়ার সেন্টার আছে ১৬টি। এর মধ্যে দুটি মাতৃসদন। এগুলোকে আরও গতিশীল করতে চাই। প্রতিটি ওয়ার্ডেই একটি করে হেলথ কেয়ার সেন্টার করতে চাই। মাতৃসদনের সংখ্যা আরও বাড়াতে চাই।

বিমান ও ট্রেন যোগাযোগের মানোন্নয়নের বিষয়ে তিনি বলেন, রাজশাহী বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক মানের করা সহজেই সম্ভব। চার হাজার থেকে ছয় হাজার ফুট রানওয়ে সম্প্রসারণ করলেই এখানে আন্তর্জাতিক বিমান ওঠানামা করতে পারবে। আম, লিচু ও সবজি রফতানি করে অর্থ আয় করা সম্ভব হবে। পাশাপাশি রাজশাহী থেকে ঢাকায় একটি বিরতিহীন ট্রেন এবং রাজশাহী-কলকাতা একটি ট্রেন চালু করা দরকার। চেষ্টা করছি এসব বিষয়ে কাজ করার।

নিজের মেয়াদকালের উন্নয়নকাজগুলো সম্পর্কে লিটন বলেন, আমার অনুমোদন করে আনা অনেক প্রকল্পই আলোর মুখ দেখেনি। পরে যিনি মেয়র হলেন, জানি না কী কারণে তিনি প্রকল্পগুলো শুরুই করতে চাইলেন না। তার অযোগ্যতা, ব্যর্থতা, নাকি চাননি- সেটা বলতে পারব না।

ব্যাংকের শীর্ষ ১০ খেলাপির তথ্য নিচ্ছে অর্থ মন্ত্রণালয়

ব্যাংকের শীর্ষ ১০ খেলাপির তথ্য নিচ্ছে অর্থ মন্ত্রণালয়

সরকারি-বেসরকারি সব ব্যাংকের শীর্ষ ১০ জন ঋণ খেলাপির তথ্যসহ ব্যাংকগুলোর ...

কামরানের নির্বাচনী ক্যাম্পে আগুন

কামরানের নির্বাচনী ক্যাম্পে আগুন

শান্তি, সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির শহর হিসেবে হযরত শাহজালাল (রহ.), হযরত ...

বোমা হামলার অডিও ফাঁস জড়িত দুই 'ভাই'

বোমা হামলার অডিও ফাঁস জড়িত দুই 'ভাই'

বিএনপির নির্বাচনী প্রচারে বোমা হামলা নিয়ে অভিযোগ পাল্টা অভিযোগের পর ...

এগিয়ে যাচ্ছে দেশ

এগিয়ে যাচ্ছে দেশ

নানা প্রতিকূলতা ও সীমাবদ্ধতা আছে, তারপরও ইন্টারনেট ব্যবহারে প্রতিদিনই এগিয়ে ...

চলন্তিকা হাতিয়ে নিয়েছে একশ' কোটি টাকা

চলন্তিকা হাতিয়ে নিয়েছে একশ' কোটি টাকা

খুলনার রূপসা উপজেলার ডোবা মায়েরাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ...

মঙ্গলের 'জোছনা'

মঙ্গলের 'জোছনা'

জোছনার সৌন্দর্য নিয়ে যুগে যুগে কত যে কবি-সাহিত্যিক সাহিত্যকর্ম রচনা ...

জার্মানিকে বিদায় বলে দিলেন ওজিল

জার্মানিকে বিদায় বলে দিলেন ওজিল

ধকলটা আর নিতে পারলেন না ওজিল। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ ...

কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের ওপর আবারও হামলা

কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের ওপর আবারও হামলা

কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা-মামলা এবং বিভিন্ন ক্যাম্পাসে ছাত্র-শিক্ষক নিপীড়নের ...