ভারতের প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে চার বিচারপতির 'বিদ্রোহ'

প্রকাশ: ১২ জানুয়ারি ২০১৮     আপডেট: ১২ জানুয়ারি ২০১৮      

অনলাইন ডেস্ক

দিল্লিতে সংবাদ সম্মেলনে ভারতের সুপ্রিম কোর্টের চার বিচাপতি (বাঁ থেকে ডানে) বিচারপতি কুরিয়ান জোসেফ, বিচারপতি জাস্তি চেলামেশ্বর, বিচারপতি রঞ্জন গগৈ ও বিচারপতি মদন লকুর-হিন্দুস্তান টাইমস

ভারতের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রর কর্তৃত্বকে প্রকাশ্যে চ্যালেঞ্জ করেছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্টের চারজন জ্যেষ্ঠ বিচারপতি।

শুক্রবার দিল্লিতে বিচারপতি জাস্তি চেলামেশ্বরের বাসভবনের লনে সংবাদ সম্মেলন ডেকে তারা বলেছেন, প্রধান বিচারপতি এখন তার ব্যক্তিগত মর্জি-মাফিক বিভিন্ন বেঞ্চে মামলা পাঠাচ্ছেন। এটি আদালতের নিয়ম-কানুনের লঙ্ঘন। খবর বিবিসি ও হিন্দুস্তান টাইমস

আদালতের নিয়ম-কানুন মানা না হলে ভারতে গণতন্ত্র টিকবে না বলেও সংবাদ সম্মেলনে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন ওই বিচারপতিরা।

বিচারপতি চেলামেশ্বর ছাড়া অপর তিনজন হলেন-বিচারপতি রঞ্জন গগৈ, বিচারপতি মদন লকুর ও বিচারপতি কুরিয়ান জোসেফ।

ভারতীয় বিচার বিভাগের ইতিহাসে এমন ঘটনা নজিরবিহীন বলে প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি। এতে আরও বলা হয়েছে, ভারতের সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা সরাসরি গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন না। প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে অসন্তোষ প্রকাশে চার বিচারপতির সংবাদ সম্মেলনের ঘটনাও নজিরবিহীন। অতীতে কখনোই বিচারপতিরা গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেননি যাতে আদালতে বিচারকাজ পরিচালনায় তাদের নিরপেক্ষতা কোনভাবেই ক্ষুণ্ণ না হয়।

ভারতের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র-ফাইল ছবি

এদিকে, ভারতের বিচার বিভাগকে ঘিরে তৈরি এই অভূতপূর্ব সংকটের প্রেক্ষাপটে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেশটির আইনমন্ত্রী রবি শংকর প্রসাদের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসেন।

সুপ্রিম কোর্টের এই চার ক্ষুব্ধ বিচারপতি গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে একটি চিঠিও বিলি করেছেন যেটি তারা এর আগে প্রধান বিচারপতিকে পাঠিয়েছিলেন। ওই চিঠিতে বেশ ক'টি বিচারিক নির্দেশের ব্যাপারে তারা অসন্তোষের কথা জানিয়েছিলেন। তারা আরও বলেছিলেন, যেসব মামলার রায় ভারতের রাষ্ট্র ও প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর সুদুরপ্রসারি প্রভাব ফেলতে পারে বলে মনে করা হয়, প্রধান বিচারপতি সেই সব মামলা বেছে বেছে তার পছন্দসই কিছু বেঞ্চে পাঠান। এর ফলে দেশে বিচার বিভাগের সার্বিক কার্যক্রম বিঘ্নিত হবে।

প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রর কাছে এসব বিষয়ে বারবার উদ্বেগ জানানোর পরও তিনি কর্ণপাত করেননি বলেও সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন চার বিচারপতি। তারা বলেন, এরপর জাতির সামনে হাজির হওয়া ছাড়া তাদের সামনে আর কোন বিকল্প ছিল না। তবে কোন কোন মামলা প্রধান বিচারপতি তার পছন্দসই বেঞ্চে পাঠিয়েছেন সেটি তারা উল্লেখ করেননি।

তবে ভারতীয় গণমাধ্যমে ব্যাপক জল্পনা রয়েছে যে একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতির দুর্নীতির বিষয়টি এর একটি। গত বছরের অাগস্টের ওই ঘটনা নিয়ে বিতর্ক ভারতের সর্বোচ্চ আদালতের ভেতর চলতে থাকা এই টানাপড়েন প্রকাশ্যে নিয়ে এলো।

আরও পড়ুন

এক মাসের মধ্যেই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন

এক মাসের মধ্যেই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন

রাষ্ট্রপতির দায়িত্বে মো. আবদুল হামিদের ৫ বছর মেয়াদ পূর্ণ হচ্ছে ...

পরিবেশের সর্বনাশ

পরিবেশের সর্বনাশ

'ত্রিশ বছর আগেও চার-পাঁচটি জেলেপল্লী ছিল সাভারের সাধাপুর থেকে ধামরাই ...

একই সুতোয় দুই বাংলা

একই সুতোয় দুই বাংলা

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তরাঞ্চল আর বাংলাদেশের উত্তরবঙ্গ- এ দুই এলাকায় যেসব ...

আওয়ামী লীগে একক প্রার্থী বিএনপিতে অস্থিরতা

আওয়ামী লীগে একক প্রার্থী বিএনপিতে অস্থিরতা

একক প্রার্থী নিশ্চিত থাকায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ...

মেয়ে হয়ে জন্মানোই ছিল অপরাধ!

মেয়ে হয়ে জন্মানোই ছিল অপরাধ!

প্রথম সন্তান মেয়ে হওয়ায় বাবার চাওয়া ছিল পরেরটি ছেলে হোক। ...

ভালো হওয়ার সুযোগ পাবে 'বিপথগামীরা'

ভালো হওয়ার সুযোগ পাবে 'বিপথগামীরা'

জঙ্গিবাদে জড়িত থাকার সুনির্দিষ্ট অভিযোগে সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জ থেকে এক তরুণকে ...

রিয়ালের স্বস্তির জয়

রিয়ালের স্বস্তির জয়

সবশেষ গত বছরের ডিসেম্বরে সেভিয়াকে বিধ্বস্ত করে লা লীগায় জয়ের ...

পদবঞ্চিতদের বিক্ষোভের মুখে ওবায়দুল কাদের

পদবঞ্চিতদের বিক্ষোভের মুখে ওবায়দুল কাদের

গঠন প্রক্রিয়ায় থাকা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সহসম্পাদক পদ নিয়ে ...