রাজনীতি

আসছে ভোট: ঢাকা-১৫

আ'লীগে কামাল মজুমদারের একাধিক প্রতিদ্বন্দ্বী

প্রকাশ: ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮     আপডেট: ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮       প্রিন্ট সংস্করণ     

অমরেশ রায়

ঢাকা-১৫ (মিরপুর-কাফরুল) আসনের বর্তমান এমপি কামাল আহমেদ মজুমদার আগামী নির্বাচনেও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাবেন বলে আশাবাদী তার সমর্থক ও অনুসারীরা। তবে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের এই উপদেষ্টাকে টপকে আগামীবার দলীয় মনোনয়ন অর্জনের লক্ষ্যে তৎপরতা চালাচ্ছেন সম্ভাব্য একাধিক প্রার্থী। মনোনয়নপ্রত্যাশী হিসেবে মাঠে আছেন মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাহমুদা বেগম কৃক, স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক এম সাইফুল্লাহ সাইফুল এবং ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগ সভাপতি মাইনুল হোসেন খান নিখিল।

মহাজোটের মনোনয়নপ্রত্যাশী হিসেবে তৎপরতা চালাচ্ছেন জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদক শামসুল হক এবং জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ-ইনু) মুহাম্মদ সামছুল ইসলাম সুমন। জাসদ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সুমন এরই মধ্যে নিজ দলের মনোনয়ন পেয়েছেন।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মিরপুর থানার ১৩ এবং কাফরুল থানার ৪, ১৪ ও ১৬ নম্বর ওয়ার্ড নিয়ে ঢাকা-১৫ আসন। ১৯৯১ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত এ এলাকা ঢাকা-১১ আসনে ছিল। নবম জাতীয় নির্বাচনের আগে সীমানা পুনর্বিন্যাস করে ঢাকা-১১ ভেঙে ঢাকা-১৪, ঢাকা-১৫ ও ঢাকা-১৬ নামে তিনটি আসন গঠন করা হয়। ওই নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী হামিদুল্লাহ খানকে পরাজিত করে আওয়ামী লীগের কামাল আহমেদ মজুমদার এমপি নির্বাচিত হন। ২০১৪ সালের বিএনপিবিহীন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এখলাস উদ্দিন মোল্লাহ্‌কে হারিয়ে এমপি হন তিনি। আওয়ামী লীগে যোগদানের আগে ১৯৯৬ সালে বিএনপি থেকে তৎকালীন ঢাকা-১১ আসনে প্রার্থী হন এখলাস। ওই নির্বাচনেও তিনি কামাল মজুমদারের কাছে পরাজিত হন। ২০০১ সালের নির্বাচনে বিএনপির এসএ খালেকের কাছে পরাজিত হন কামাল মজুমদার। ১৯৯৩ সালে প্রার্থী হয়েও তিনি পরাজিত হন।

আগামী নির্বাচনেও আওয়ামী লীগের প্রার্থী হওয়ার জন্য তৎপরতা চালাচ্ছেন কামাল মজুমদার। ছাত্রলীগের মাধ্যমে রাজনীতিতে হাতেখড়ি হওয়া মুক্তিযোদ্ধা এই নেতা পুরান ঢাকার সলিমুল্লাহ ডিগ্রি কলেজ ছাত্র সংসদের জিএস ছাড়াও অবিভক্ত ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগের সহসভাপতি এবং পরে তিনবার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। অবিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগেও দীর্ঘদিন সহসভাপতি ছিলেন তিনি। ২০১৬ সালে দুই াগে বিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি গঠনকালে উত্তর অংশের উপদেষ্টা করা হয় তাকে।

কামাল মজুমদার সমর্থকদের দাবি-টানা দুই মেয়াদে এমপি হিসেবে এলাকার রাস্তাঘাট, গ্যাস-পানি-বিদ্যুৎ, ড্রেনেজ সিস্টেম এবং শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন করেছেন কামাল মজুমদার। মনিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজসহ এলাকায় অনেক শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন তিনি। আগারগাঁও থেকে পীরেরবাগ হয়ে মিরপুর-২ পর্যন্ত সড়ক (৬০ ফুট রাস্তা নামে পরিচিত) নির্মাণ এবং ওয়াসার ১০৫টি পাম্প বসানোর কাজে ভূমিকার কারণে এলাকায় সুনাম কুড়িয়েছেন। দীর্ঘ দিনের রাজনীতি ও জনপ্রতিনিধি থাকার সুবাদে বেসরকারি টিভি চ্যানেল মোহনা টেলিভিশনের এই কর্ণধারের সঙ্গে নেতাকর্মী ও মানুষের সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়ে উঠেছে।

আওয়ামী লীগের আরেক মনোনয়নপ্রত্যাশী মাহমুদা বেগম কৃক দীর্ঘদিন অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড কমিশনার হিসেবে এলাকার উন্নয়নে ভূমিকা রেখেছেন। ২০১৫ সালের নির্বাচনে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন তিনি। মহিলা আওয়ামী লীগের ওয়ার্ড, থানা, মহানগর ও কেন্দ্রীয় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন শেষে এখন কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক হিসেবে রয়েছেন। এ ছাড়া সমাজসেবা ও নারী কল্যাণমূলক বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন তিনি।

দলের আরেক শক্তিশালী সম্ভাব্য প্রার্থী গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চুও এলাকায় নির্বাচনী তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। ছাত্রলীগের সাবেক এই নেতা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সহসম্পাদক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। এলাকার মানুষ বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে স্বেচ্ছাসেবক লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের।

এম সাইফুল্লাহ সাইফুল গত দুই নির্বাচনের মতো এবারও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাইছেন। ছাত্রলীগের রাজনীতি দিয়ে শুরু করে বর্তমান পর্যায়ে উঠে আসা এই নেতা দীর্ঘদিন স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। বিগত দিনের আন্দোলন-সংগ্রাম বিশেষ করে ওয়ান ইলেভেন-পরবর্তী তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়কার আন্দোলনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। স্থানীয় বাসিন্দা হিসেবে পারিবারিকভাবেই এলাকায় প্রভাব রয়েছে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের এই দপ্তর সম্পাদকের।

সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মাইনুল হোসেন খান নিখিল দলের আরেক মনোনয়নপ্রত্যাশী। যুবলীগের ওয়ার্ড, থানা ও মহানগরের গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন শেষে এখন ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি হিসেবে রয়েছেন। পারিবারিকভাবে আওয়ামী আদর্শের রাজনীতিতে বিশ্বাসী নিখিল এলাকায় ক্লিন ইমেজের রাজনীতিবিদ হিসেবে পরিচিত।

মহাজোট শরিক জাতীয় পার্টির (জাপা) সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে কাজ করছেন শামসুল হক। গত দুটি নির্বাচনেও এ আসনের প্রার্থী ছিলেন তিনি। তবে ২০০৮-এর নির্বাচনে মহাজোটগত সমঝোতা এবং ২০১৪-এর নির্বাচনে দলীয় চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নির্বাচন না করার সিদ্ধান্ত মেনে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন। গত দুইবারের মতো এবারও মহাজোটগত নির্বাচন হলে নিজ দলের পাশাপাশি মহাজোটের মনোনয়ন চাইবেন জাপার এই সাংগঠনিক সম্পাদক।

এ ছাড়া জাসদের (ইনু) মনোনয়ন পেয়ে প্রচারে নামা মুহাম্মদ সামছুল আলম সুমন ১৪ দলীয় জোটের মনোনয়ন চাইছেন। পারিবারিকভাবে এলাকার রাজনীতিতে পরিচিত এই নেতার বড় ভাই জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসম্পাদক মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম ২০১৪ সালের নির্বাচনে এ আসনে জাসদের হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। ছোট ভাই মিরপুর কমার্স কলেজের ছাত্র কামরুল ইসলাম মমিন ২০০৫ সালে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত (আলোচিত কলেজছাত্র মমিন হত্যা) হলে দেশজুড়ে আলোড়ন সৃষ্টি হয়। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের (জাসদ) কেন্দ্রীয় সভাপতির দায়িত্ব পালনকালে বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামে ভূমিকা রাখেন সুমন।

বর্তমান এমপি কামাল আহমেদ মজুমদার আগামী নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে শতভাগ আশাবাদ ব্যক্ত করে সমকালকে বলেছেন, দীর্ঘদিন দলের সঙ্গে আছেন তিনি। জনগণ ও নেতাকর্মীদের সুখ-দুঃখে তাদের পাশে দাঁড়ান। দুই মেয়াদে এমপি থাকতে এলাকার রাস্তাঘাট, স্কুল-কলেজ, মসজিদ-মাদ্রাসা এবং গ্যাস-পানি-বিদ্যুৎসহ কোনো সেক্টরেই উন্নয়ন বাদ রাখেননি। দল থেকে আবারও প্রার্থী করা হলে এই বিশাল উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের কারণেই জনগণ আবারও বিপুল ভোটে তাকে জয়ী করবে বলে তার দৃঢ় বিশ্বাস।

মাহমুদা বেগম কৃক বলেন, দীর্ঘদিন রাজনীতির পাশাপাশি জনপ্রতিনিধি হিসেবে জনগণের কল্যাণ ও সমাজসেবার সুযোগ হয়েছে তার। রাষ্ট্রের পলিসি নির্ধারণ, দেশ পরিচালনা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশাল উন্নয়ন কর্মযজ্ঞে অংশগ্রহণের প্রত্যাশা থেকেই দলের মনোনয়ন চাইবেন তিনি। আর দলীয় প্রার্থী হলে দলমত সবাইকে সঙ্গে নিয়ে জনগণের ভোটে বিজয়ী হতে পারবেন বলে শতভাগ আশাবাদ রয়েছে তার।

গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু বলেন, প্রায় ৩২ বছর ধরে রাজনীতি করছেন তিনি। এলাকার উন্নয়ন ও জনগণের সুখ-দুঃখে পাশে রয়েছেন, ভবিষ্যতেও থাকবেন। এ লক্ষ্য নিয়েই দলের মনোনয়ন চাইছেন তিনি। দল ও নেত্রী (শেখ হাসিনা) মূল্যায়ন করলে তাকে প্রার্থী করা হবে বলে তিনি মনে করেন।

এম সাইফুল্লাহ সাইফুল বলেন, এই এলাকার মাটি ও মানুষের সন্তান তিনি। দীর্ঘদিনের রাজনীতির সুবাদে এলাকার সাধারণ মানুষের সঙ্গে আত্মার সম্পর্ক রয়েছে তার। কাজেই তাকে মনোনয়ন দেওয়া হলে নৌকা প্রতীকের ভোট পাওয়ার ক্ষেত্রে সমস্যা হবে না। তবে মনোনয়ন না পেলেও দলীয় প্রার্থীর পক্ষেই কাজ করবেন তিনি। কেননা, তিনি বিশ্বাস করেন, দল থাকলে দেশ থাকেবে, অস্তিত্ব থাকবে।

মাইনুল হোসেন খান নিখিল বলেন, 'সততাই শক্তি, মানবতাই মুক্তি'- প্রধানমন্ত্রীর এই স্লোগান বুকে ধারণ করে জনগণের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। মানুষের সঙ্গে তার সুগভীর সম্পর্ক রয়েছে। মানুষের বিশ্বাস ও আস্থাও তার প্রতি রয়েছে। সে ক্ষেত্রে দলীয় মনোনয়ন পেলে জনগণ নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে তাকে সংসদে পাঠাবে বলে তার বিশ্বাস।

জাতীয় পার্টির শামসুল হক বলেন, মহাজোটগত নির্বাচন হলে জোটের মনোনয়ন চাইবেন তিনি। আর তার দল একক নির্বাচন করলে জাপা থেকে প্রার্থী হবেন। তিনি প্রার্থী হলে এবং অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে জনগণ বিপুল ভোটে তাকে বিজয়ী করবে বলে তার প্রত্যাশা। অবশ্য দল যে সিদ্ধান্ত নেবে, সেটিই মেনে নেবেন তিনি। কেননা, এই নির্বাচন ব্যক্তিগত নয়, রাজনৈতিক নির্বাচন। আর তার কাছে দলের রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

জাসদের (ইনু) মুহাম্মদ সামছুল ইসলাম সুমন বলেন, নানা অপকর্মের কারণে এলাকায় বর্তমান এমপি কামাল মজুমদারের জনপ্রিয়তা শূন্যের কোঠায়। তার লোকজনও এলাকায় ভূমিদস্যুতা, জমি দখল, চাঁদাবাজিসহ নানা অপরাধে লিপ্ত। বর্তমান এমপির সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড থেকে এলাকাবাসীকে রেহাই দিয়ে এলাকায় শান্তি-শৃঙ্খলা ফেরাতে এবং সর্বোপরি জনগণের পক্ষে কাজ করতেই ১৪ দলের মনোনয়ন চান তিনি (সুমন)। আর মনোনয়ন পেলে জাসদ, আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টিসহ সব দলের নেতাকর্মী ও সর্বস্তরের মানুষের সমর্থনে বিজয়ী হতে পারবেন বলে তার বিশ্বাস। তবে মনোনয়ন না পেলেও তার দল যে সিদ্ধান্ত দেবে, সে অনুযায়ী কাজ করবেন তিনি।

আরও পড়ুন

শেষের রোমাঞ্চে হার আফগানদের

শেষের রোমাঞ্চে হার আফগানদের

এখন পর্যন্ত এশিয়া কাপের সবচেয়ে রোমাঞ্চকর ম্যাচ উপহার দিয়েছে পাকিস্তান-আফগানিস্তান। ...

বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা

বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা

বরিশালের উজিরপুর উপজেলার জল্লাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টুকে ...

দুবাই যাচ্ছেন সৌম্য-ইমরুল

দুবাই যাচ্ছেন সৌম্য-ইমরুল

ড্রেসিংরুম থেকেই জরুরি তলব ঢাকায়-ওপেনিংয়ে কিছুই হচ্ছে না। সৌম্য সরকারকে ...

খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ

খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা। ...

'নায়ক' গেলো সেন্সরে

'নায়ক' গেলো সেন্সরে

ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় নায়ক বাপ্পি ও নবাগতা অধরা খান জুটির ...

সোনাহাট স্থলবন্দরে শ্রমিকদের সংঘর্ষ, ১৪৪ ধারা জারি

সোনাহাট স্থলবন্দরে শ্রমিকদের সংঘর্ষ, ১৪৪ ধারা জারি

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলার সোনাহাট স্থলবন্দরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। ...

পাকিস্তানকে ভালো লক্ষ্য দিল আফগানরা

পাকিস্তানকে ভালো লক্ষ্য দিল আফগানরা

এশিয়া কাপে নিজেদের ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছে আফগানিস্তান। ভালো রান সংগ্রহ ...

চার জাতির টুর্নামেন্টে দর্শক মেসি

চার জাতির টুর্নামেন্টে দর্শক মেসি

আগামী মাসে সৌদি আরবে চার জাতির একটি টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে। ...