রাজনীতি

বিশেষ সাক্ষাৎকার: ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা

বর্তমান ইসির অধীনেই সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব

চলমান রাজনীতি

প্রকাশ: ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮     আপডেট: ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮       প্রিন্ট সংস্করণ     

রাশেদ মেহেদী

প্রতিনিধিত্বশীল সব রাজনৈতিক দল নির্বাচনে অংশ নিয়ে সহযোগিতা করলে বর্তমান নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অধীনেই আগামীতে সুষ্ঠু জাতীয় নির্বাচন সম্ভব। এ কথা বলেছেন তৃণমূল বিএনপির নেতৃত্বাধীন ৩১ দলীয় বাংলাদেশ জাতীয় জোট বা বিএনএর চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা।

সমকালের সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে নাজমুল হুদা আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নির্বাচনকালীন সরকার গঠিত হলেও নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। বিভিন্ন দলের উচিত নির্বাচনকালীন সরকার পদ্ধতি নিয়ে এখন বিতর্ক না তুলে নির্বাচনী প্রস্তুতির দিকে গুরুত্ব দেওয়া। তার দৃঢ় বিশ্বাস, বিএনপি যে কোনোভাবেই হোক, আগামী জাতীয় নির্বাচনে অংশ নেবে। তিনি বলেন, বিএনএ আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোট বেঁধে আগামী জাতীয় নির্বাচনে অংশ নিতে চায়। নির্বাচনী জোট গঠনের জন্য ২৬ আসনের প্রার্থী তালিকাও বিএনএর পক্ষ থেকে আওয়ামী লীগকে দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

বিএনপির সাবেক এই কেন্দ্রীয় নেতা বলেন, ২০১৪ সালে নির্বাচনে অংশ না নিয়ে বিএনপি বড় রাজনৈতিক ভুল করেছিল। তারা সে সময় নির্বাচনে অংশ নিলে এখন দেশের রাজনীতির চেহারা অন্য রকম হতো। এবার বিএনপি আগের সেই বড় ভুল আবারও করবে না  বলে মনে করেন তিনি।

নাজমুল হুদা বলেন, বিএনপি এমন একটি রাজনৈতিক দল, যাদের জনভিত্তি আছে। নানা পারিপার্শ্বিক কারণে কিংবা প্রতিকূল পরিস্থিতিতে তারা রাজনৈতিক কর্মসূচি নিয়ে মাঠে হয়তো খুব বেশি থাকতে পারছে না। কিন্তু এর মানে এই নয় যে বিএনপির জনভিত্তি নেই। তিনি বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শুনলে কিছুটা রুষ্ট হতে পারেন, এমন আশঙ্কা থাকার পরও সত্য হলো, বিএনপির জনসমর্থন এখনও যা আছে, তা তাদের ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য কোনো অংশেই কম নয়। বিএনপি এবার নির্বাচনে আসছে- এমন বিবেচনা থেকে আওয়ামী লীগকে নির্বাচনী জোট গঠনের ক্ষেত্রে আরও বেশি কৌশলী হতে হবে। বিশেষ করে ১৪ দলীয় জোটের পাশাপাশি সমমনা অন্যান্য রাজনৈতিক জোটকেও গুরুত্ব দিতে হবে। বিএনএ ৩১টি রাজনৈতিক দলের জোট এবং এ মুহূর্তে সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক জোট। এই জোট অসাম্প্রদায়িকতা এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাস করে। ফলে আওয়ামী লীগের সঙ্গে বিএনএর নির্বাচনী জোট গঠনে কোনো বাধা নেই।

আওয়ামী লীগের সঙ্গে নির্বাচনী জোট গঠন সম্পর্কে বিএনএ নেতা আরও বলেন, আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোটবদ্ধভাবে নির্বাচন করার জন্য বিএনএর পক্ষ থেকে প্রথমে ৫৬ আসনে প্রার্থী তালিকা দেওয়া হয়। পরে তালিকাটি আরও সংক্ষিপ্ত করে ২৬ আসনে বিএনএর প্রার্থী তালিকা দেওয়া হয়েছে। সেসব আসনেই বিএনএ তালিকা দিয়েছে, যেখানে আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক অবস্থান দুর্বল এবং যোগ্য প্রার্থী নেই। ফলে এই ২৬ আসনে আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোটবদ্ধ হয়ে বিএনএ প্রার্থীরা নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করলে অবশ্যই জয়ী হয়ে আসবেন।

বর্তমান নির্বাচন কমিশন প্রসঙ্গে নাজমুল হুদা বলেন, বর্তমান ইসি আইনগতভাবে স্বাধীন। তাদের আইন অনুযায়ী সরকার সব ধরনের সহায়তা দিতে বাধ্য। নির্বাচন কমিশনারদের অপসারণ করাও সহজ নয়। এ অবস্থায় এই ইসির অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়া অসম্ভব কিছুই নয়; বরং প্রধান নির্বাচন কমিশনার-সিইসিসহ এই ইসির যারা আছেন, তাদের বড় সুযোগ হচ্ছে, জাতিকে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন উপহার দিয়ে নিজেদের স্মরণীয় করে রাখা।

ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা বলেন, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচনকালীন সরকার গঠন করতে হবে এবং সেটা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই হবে। সংসদে প্রতিনিধিত্বকারীদের মধ্য থেকেই এ সরকার গঠন করবেন প্রধানমন্ত্রী। নির্বাচনকালীন সরকার গঠন নিয়েও অহেতুক বিতর্কের কিছু নেই।

বিএনপির রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে বিএনএ চেয়ারম্যান বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে আছেন। দলের আরও অনেক নেতাকর্মী রাজনৈতিক মামলায় হয় কারাগারে, না হয় আত্মগোপনে আছেন। দলের এই কঠিন অবস্থা থেকে বের হয়ে আসার জন্যই বিএনপিকে নির্বাচনে আসতে হবে। এ ক্ষেত্রে বিএনপিও বৃহত্তর নির্বাচনী জোটের কথা ভাবছে। যুক্তফ্রন্টের সঙ্গে তাদের ঐক্য হলে নির্বাচনে বিএনপির অবস্থান আরও শক্তিশালী হবে, সন্দেহ নেই।

ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা তার নেতৃত্বাধীন বিএনএর লক্ষ্য ও আদর্শ তুলে ধরে বলেন, বিএনএর মূল স্লোগান হচ্ছে 'সুস্থ রাজনীতি, সুশাসনের ভিত্তি'। এই স্লোগান সামনে রেখে সুশাসন, গণতান্ত্রিক ও স্থিতিশীল উন্নয়নের বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়েই তারা আগামী নির্বাচনে অংশ নেবেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার গত কয়েক বছরে দেশে একের পর এক উন্নয়নকাজ বাস্তবায়ন করেছে। দেশবাসীকে তিনি স্থিতিশীল রাজনৈতিক পরিস্থিতিও উপহার দিয়েছেন। এ কারণে আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ভোটের সমীকরণে অন্যদের চেয়ে এগিয়ে আছে এবং থাকবে। বিএনএর সঙ্গে আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক জোট হলে আগামী নির্বাচনে তাদের বিজয়ের সমীকরণ একেবারেই সহজ হয়ে যাবে। তিনি বলেন, বিএনএ আওয়ামী লীগের উন্নয়ন সহযোগী রাজনৈতিক বন্ধু হিসেবেও সবচেয়ে উত্তম।

আরও পড়ুন

সারা বিশ্বে ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামে ত্রুটি

সারা বিশ্বে ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামে ত্রুটি

বাংলাদেশসহ বিশ্বের কয়েকটি দেশে মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামে প্রবেশ ...

ঢালাও অভিযোগে ব্যবস্থা নেওয়ার সুযোগ নেই: ইসি সচিব

ঢালাও অভিযোগে ব্যবস্থা নেওয়ার সুযোগ নেই: ইসি সচিব

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে সরকারবিরোধী জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রধান ...

নির্বাচনে কোনো প্রার্থীকে সমর্থন দেবে না হেফাজত: শফী

নির্বাচনে কোনো প্রার্থীকে সমর্থন দেবে না হেফাজত: শফী

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোনো প্রার্থীকে সমর্থন দেবে না হেফাজতে ...

ভোটযুদ্ধের সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিন: ফখরুল

ভোটযুদ্ধের সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিন: ফখরুল

ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার আন্দোলনেই দেশে স্বাধীন মানুষের পতাকা উড়বে বলে জানিয়েছেন ...

বর্ণচোরাদের ভোটে জবাব দেবে জনগণ: নাসিম

বর্ণচোরাদের ভোটে জবাব দেবে জনগণ: নাসিম

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ ...

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বি চৌধুরীর বৈঠক

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বি চৌধুরীর বৈঠক

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক করেছেন ...

২২৪ আসনে জাসদের প্রার্থী চূড়ান্ত

২২৪ আসনে জাসদের প্রার্থী চূড়ান্ত

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) ২২৪ আসনে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে। ...

বিএনপি নেতা রফিকুল ইসলাম মিয়া গ্রেফতার

বিএনপি নেতা রফিকুল ইসলাম মিয়া গ্রেফতার

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়াকে গ্রেফতার করা ...