জীবনের অন্য আখ্যান

০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮

কৌশিক জামান

ফারিয়া প্রেমা যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী একজন ঔপন্যাসিক। 'সিক্রেটস শেয়ারড' তার দ্বিতীয় উপন্যাস। উপন্যাসটির কাহিনী আবর্তিত হয়েছে মানুষের সঙ্গে মানুষের জটিল সম্পর্ক এবং অন্য প্রাণীর সঙ্গে মানুষের সম্পর্ককে ঘিরে। কখনও কখনও মানুষের সঙ্গে অবলা প্রাণীর সম্পর্ক হতে পারে অন্য মানুষের সঙ্গে সম্পর্কের চেয়েও গভীর এবং মানবিক। এই গল্পের মূল তিন চরিত্র হলো- তানু, এনানযিয়া আর তাদের প্রিয় কুকুর বুবু।

গল্পের শুরুতে দেখা যায় তানু একজন মানসিকভাবে সমস্যাগ্রস্ত শিশু যে কিনা লিঙ্গ পরিচিতি-সংক্রান্ত সমস্যায়ও ভুগছে। একজন কন্যাশিশু হিসেবে জন্ম নিয়েও সে অনুভব করে যে, সে একটা ভুল দেহে আটকা পড়ে গেছে। তানুর পরিবার ছিল রক্ষণশীল, একটা শিশুর বৃদ্ধির জন্য যে শুধু খাবার, পোশাক আর মাথার ওপর ছাদ যথেষ্ট নয়, তা তারা বুঝে উঠতে পারে না। তানুর মানসিক অবস্থা আর তার চাহিদা নিয়ে তাদের কোনো মাথাব্যথা ছিল না। যে কারণে তানুর কথা কেউ শুনত না, শুনতে চাইত না, শুনলেও বুঝতে পারত না, কিংবা ভুল বুঝত। যার ফলে তানু সম্মুখীন হয় সমস্যাযুক্ত বয়োসন্ধির, আর প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার পর হয়ে ওঠে বেপরোয়া। হাই স্কুলে থাকতে এবং বড় হওয়ার পর ওর ব্যবহার আর কর্মকা হয়ে ওঠে লক্ষ্যভ্রষ্ট আর অনৈতিক। তানু বিভিন্ন মেয়ের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে, যা ছিল মূলত আবেগবর্জিত, নৈতিকতা আর বিশ্বস্ততাবিহীন। বিভিন্ন রকমের, বিভিন্ন বয়সের নারী তানুর জীবনে আসে, যাদের সবার সঙ্গে সে বিশ্বাস ভঙ্গ করে। তানু সবচেয়ে বেশি পথ হারিয়ে ফেলে যখন ওর সঙ্গে পরিচয় হয় নিল্ফেম্ফাম্যানিয়াক নাতাসার। যে হালকা সুতোটা দিয়ে তানু পরিবারের সঙ্গে কোনো রকমে যুক্ত ছিল, সেটাও ছিঁড়ে যায় যখন বয়সে অনেক বড় এই নারী ওর জীবনে আসে। তানুর সমান্তরালে লেখিকা একই সঙ্গে কিছু কুকুর আর কুকুর শাবকের গল্পও তুলে ধরেছেন। একদিকে পাঠক যখন তানুর কাহিনী পড়ে বিষণ্ণ আর সহানুভূতি অনুভব করবেন, তখন একটা অ্যানিমেল শেল্টার দ্বারা উদ্ধারকৃত কুকুরগুলোর কাহিনী আপনার অশান্ত মনকে করে তুলবে শান্ত। গল্পে প্রাণীগুলোর মধ্যে যে আবেগ, তা অনন্য আর বহুস্তরের। বরুনো আর তার গোল্ডেন ল্যাব শাবকের মধ্যে কথোপকথন খুবই হৃদয়গ্রাহী। যে আবেগ এই প্রাণীগুলো মানুষের জন্য অনুভব করে, তা অমূল্য। আনুগত্য হলো কুকুরের জন্মগত বৈশিষ্ট্য, যা মানুষের মধ্যে নেই। মানুষকে তা অনেকটা পানি ও সার দিয়ে গড়ে তুলতে হয়, যা আমরা তানুর ক্ষেত্রে গল্পে দেখতে পাই। কুকুর মানুষ নয়, কিন্তু লেখিকার মতে তারা হলো সবচেয়ে দরদি, সবচেয়ে সহানুভূতিশীল প্রাণী যাদের থেকে আমরা মানুষদের ভুলে যাওয়া 'মানবিক' ব্যাপারগুলো নতুন করে আবার শিখতে হবে।

বরুনো ওর সন্তানকে অন্য কুকুর আর কুকুর শাবক থেকে রক্ষা করে আর কী করে মনিবের অনুগত হতে হয়, সে ব্যাপারে শিক্ষা দেয়। সে হয়ে দাঁড়ায় কুকুরদের গার্ডিয়ান অ্যাঞ্জেল।

আমরা দেখতে পাই, ছোটবেলার বন্ধু এনানযিয়া হলো তানুর একমাত্র বন্ধু যে তানুর ক্ষতবিক্ষত আত্মাকে সারিয়ে তোলার চেষ্টা করে। তানুর জীবন যখন ছিল রাডারবিহীন কিংবা নোঙর ছাড়া জাহাজের মতো, তখন এনানযিয়া এসে তানুর দায়িত্ব নেয়, তার নোঙরের ভূমিকা গ্রহণ করে। তানুর জীবনের অন্য মেয়েদের চেয়ে এনানযিয়া ছিল আলাদা। এনানযিয়া এমন একজন নারী যার মন ছিল পবিত্র এবং খাঁটি। ও ওর স্বাভাবিক ব্যবহার, দয়ালু মন আর ভালো শ্রোতার ভূমিকা দিয়ে তানুকে জীবনে প্রথমবারের মতো স্বাভাবিক একটা জীবনের স্বাদ দেয়। এনানযিয়া ওকে মানুষ হতে শেখায়, আর ওর ভেতর লুকিয়ে থাকা ভালো গুণগুলোকে বের করে আনে, যা আগে কেউ কখনও করেনি। সে তানুকে হাল ছেড়ে না দিয়ে ভালোবাসার ওপর বিশ্বাস রাখতে শেখায়। তারপর হাজির হয় কুকুর বুবু। একত্রে তারা তিনজন একটা পরিবারের মতো বাস করতে থাকে।

কিন্তু এর পরই একটা দুর্ঘটনা ঘটে, তানু আবার ভেঙে পড়ে। বুবু কুকুর হলেও পশুর ইন্দ্রিয় দিয়ে তানুর আসন্ন বিপদ বুঝতে পারে, যা ছিল ওর অন্তিম নিয়তি। সব মিলিয়ে 'সিক্রেটস শেয়ারড' সব প্রতিকূলতার মধ্যে মানুষের 'মানুষ' হয়ে বেঁচে থাকার ইচ্ছার উপাখ্যান। সমাজ এবং সময় যখন মানুষকে তার মানবিক গুণ হারিয়ে পশুর পর্যায়ে নিয়ে যাচ্ছে, তখন পশুর কাছ থেকে শিখতে হচ্ছে মনুষ্যত্বের সূত্র। লেখিকা চমৎকারভাবে এই সম্পর্কগুলোর রসায়ন ফুটিয়ে তুলেছেন যা আপনাকে বার বার ভাবাবে। 'সিক্রেটস শেয়ারড' উপন্যাসটি ২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যানোরিমো পুরস্কার বিজয়ী। বইটি প্রকাশ করেছে অবসর প্রকাশনা সংস্থা। া

© সমকাল 2005 - 2018

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫, ৮৮৭০১৯৫, ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১, ৮৮৭৭০১৯৬, বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০ । ইমেইল: info@samakal.com