নেপালে যাত্রা শুরু করেছে পাঠাও

১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বাংলাদেশি অ্যাপ ভিত্তিক রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান পাঠাও প্রথমবারের মতো দেশের বাইরে কার্যক্রম শুরু করেছে। নেপালে রাইডিং সেবা চালুর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে যাত্রা শুরু করল বাংলাদেশি কয়েকজন তরুণের তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর এ উদ্যোগটি। কার্যক্রম পরিচালনার জন্য কান্ট্রি ম্যানেজার হিসেবে অসিম বাসান নামে নেপালের স্থানীয় একজনকে নিয়োগ দিয়েছে পাঠাও। এখন চলছে অন্যান্য অফিশিয়াল ও রাইডার সংগ্রহ কার্যক্রম। পাঠাওয়ের লিড মার্কেটিং ম্যানেজার সৈয়দা নাবিলা মাহবুব সমকালকে বলেন, আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই নেপালের রাস্তায় চলবে পাঠাওয়ের মোটর সাইকেল। শুরুতে কাঠমান্ডুতে বাইকে রাইড শেয়ারিং দিয়ে নেপালে আমাদের কার্যক্রম উদ্বোধন করা হবে। পাঠাওয়ের প্রধান নির্বাহী হুসেইন মো. ইলিয়াস জানান, আমরা এখন দেশে কয়েক লাখ গ্রাহককে সেবা দিচ্ছি। আমরা এমন একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করেছি যেখানে কয়েক হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে। নেপালে যাত্রার মাধ্যমে আমাদের আন্তর্জাতিক কার্যক্রম শুরু হলো। পাঠাও টিম #গড়ারহমঘবঢ়ধষ স্লোগানে অনুপ্রাণিত হয়ে নেপালেও সর্বোচ্চ সেবা দিতে চায়। ২০১৫ সালে দেশে যাত্রা শুরুর পর দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে ওঠে পাঠাও রাইড। তবে শুরুতে ই-কমার্স কোম্পানি পাঠাও কুরিয়ার নিয়ে যাত্রা শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি। এরপর রাইডিং সেবা উন্মোচন করে তারা। রাইড শেয়ারিং এবং অনলাইন কুরিয়ার সেবায় দ্রুত গ্রাহক আস্থা অর্জন করে পাঠাও। প্রতিষ্ঠার তিন বছরের মধ্যে এই দুই সেবায় দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠান এখন পাঠাও। বর্তমানে রাইড শেয়ারিংয়ে মোটরসাইকেলের পাশাপাশি কার যুক্ত হয়েছে। অনলাইনে খাবার অর্ডার নিয়ে গ্রাহকের ঘরে পৌঁছে দিতে পাঠাওয়ের সার্ভিসও চালু করে প্রতিষ্ঠানটি। দেশের এই সম্ভাবনাময় স্টার্টআপে ইন্দোনেশিয়ার রাইড শেয়ারিং কোম্পানি গো জ্যাক বিনিয়োগ করে। পাঠাও দেশের মধ্যে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেটে কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

-প্রযুক্তি প্রতিদিন প্রতিবেদক

© সমকাল 2005 - 2018

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫, ৮৮৭০১৯৫, ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১, ৮৮৭৭০১৯৬, বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০ । ইমেইল: info@samakal.com