রাজপথে জনতার ঢল

১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

সমকাল ডেস্ক

কাতালোনিয়ার জাতীয় দিবসে রাজপথে বেরিয়ে এলেন লাখ লাখ জনতা। লাল-হলুদের পতাকায় রঙিন হয়ে ওঠে বার্সেলোনার রাস্তা। জাতীয় দিবসের উৎসব হয়ে উঠল তাদের স্বাধীনতার সমাবেশ। স্পেন থেকে কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার দাবির প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখার জন্য তারা মঙ্গলবার এ সমাবেশ করেন। গত বছরের অক্টোবরে স্পেন থেকে আলাদা হয়ে যাওয়ার ব্যর্থ চেষ্টার পর এটাই কাতালোনিয়ার প্রথম বার্ষিক উৎসব। খবর এএফপির।

১৭১৪ সালে স্পেনের রাজা পঞ্চম ফিলিপের বাহিনীর কাছে বার্সেলোনার পরাজয় ও অঞ্চলটির স্বাধীনতা হারানোর ঘটনা স্মরণ করে কাতালোনিয়াবাসী দিনটিতে সরকারি ছুটি ও জাতীয় দিবস পালন করে। স্থানীয়ভাবে দিয়াদাহ নামে পরিচিত এই জাতীয় দিবসে মঙ্গলবার বার্সেলোনার সড়কে অবস্থান নেন ১০ লাখের বেশি মানুষ। সড়কে লাল শার্ট পরা ও কাতালোনিয়ার লাল-হলুদের পতাকা হাতে হাজারো মানুষ ঢোল ও বাঁশি বাজানোর পাশাপাশি স্বাধীনতার পক্ষে স্লোগান দেন। ২০১২ সাল থেকে দিনটিকে কাতালোনিয়ার স্বাধীনতাকামীরা স্বাধীনতার আন্দোলন হিসেবে বেছে নিয়েছে। কাতালান আঞ্চলিক প্রেসিডেন্ট কুইম টোরা ও তার পূর্বসূরি কার্লেস পুজদেমন জনগণকে বিক্ষোভ অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়েছেন। টোরা জনতার উদ্দেশে বলেন, আমরা অবিরাম আন্দোলন শুরু করছি।

স্বাধীনতা প্রশ্নে গত বছরের ১ অক্টোবর গণভোটের আয়োজন করে কাতালোনিয়া। এর পর ২৭ অক্টোবর স্পেন থেকে কাতালোনিয়ার স্বাধীনতা ঘোষণা করে পুজদেমনের নেতৃত্বাধীন স্বাধীনতাকামীরা। এ ঘটনায় স্পেনের জাতীয় সরকার কাতালোনিয়ার আঞ্চলিক পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে পুজদেমনকে বরখাস্ত করে। স্পেনের সুপ্রিম কোর্ট পুজদেমনকে গ্রেফতারের জন্য গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে। গ্রেফতার এড়াতে রাজনৈতিক আশ্রয় নিয়ে বিদেশে পালিয়ে যান পুজদেমন। পুজদেমন এখন জার্মানে অবস্থান করছেন। স্পেন সরকার তাকে ফিরিয়ে দেওয়ার আবেদন করে আসছে। তবে তাকে স্পেনে ফেরত পাঠানো হবে কি-না তা নিয়ে এখন জার্মানের একটি আদালতে বিচার চলছে। বিক্ষোভকারীরা স্বাধীনতার চেষ্টার পর গ্রেফতার হয়ে বিচারের অপেক্ষায় থাকা স্বাধীনতাকামী নেতাদের মুক্তির দাবি জানান।

© সমকাল 2005 - 2018

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি । প্রকাশক : এ কে আজাদ

১৩৬ তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা - ১২০৮ । ফোন : ৮৮৭০১৭৯-৮৫, ৮৮৭০১৯৫, ফ্যাক্স : ৮৮৭০১৯১, ৮৮৭৭০১৯৬, বিজ্ঞাপন : ৮৮৭০১৯০ । ইমেইল: info@samakal.com