ব্রাজিল-জার্মানি ফাইনাল দেখতে চাই

প্রকাশ: ১৪ জুন ২০১৮      

অনলাইন ডেস্ক

ছবি: ফাইল

ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যাবে, বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়ার ঠিক পরের বার জার্মানি খারাপ খেলেছে। ১৯৭৮ সালে আমরা দ্বিতীয় রাউন্ড থেকেই ছিটকে গিয়েছিলাম। ছয়টার মধ্যে মাত্র একটা ম্যাচ জিতেছিলাম। ১৯৯৪ সালের কোয়ার্টার ফাইনালে হেরে গিয়েছিলাম। এত কথা বললাম- কারণ, আমার বিশ্বাস এবার হয়তো ইতিহাস বদলাবে। বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়ে খেলতে নেমে রাশিয়ায় ভালো করব আমরা।

ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে আমরা এক নম্বর। বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়ায় এই আসরে আমরাই ফেভারিট। যোগ্যতা অর্জন পর্বে দশটা ম্যাচই জিতেছে জার্মানি। সেটাই প্রমাণ করছে জোয়াকিম লোর দলের শক্তিটা কত। জার্মানি কেন এতটা শক্তিশালী? আমি বলব, সাপ্লাই লাইন বা ফুটবলারের জোগান। বিশ্বমানের ফুটবলার জন্ম দিয়ে  যাচ্ছে জার্মানি। ব্রাজিলে যে দলটা চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল, তাদের সঙ্গে নতুনরা সুন্দরভাবে মিশে গেছে। প্রায় সব জায়গাতেই তুমুল প্রতিযোগিতা আছে। কার্যত 'বি' দল নিয়ে জার্মানি গত বছর কনফেডারেশনস কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। 

গত কয়েক বছরে এই দলটার ফর্ম আমাকে এতখানি আশাবাদী করছে। লামের বদলি পাওয়া অসম্ভব। কিন্তু কিমিটও অসাধারণ। মাত্র ২৩ বছরেই ওর মধ্যে যে ঝলক দেখেছি, ম্যানচেস্টার সিটি যে ইংলিশ লীগে এতটা সফল, তার পেছনে গুন্ডোনগানের অবদান কম নয়। কনফেডারেশন্স কাপে সোনার বল জয়ী ডাক্সলার পিএসজিতে নেইমারের জন্য বিশেষ সুযোগ পান না। কিন্তু ও দুর্দান্ত প্লেয়ার।

বার্সেলোনার গোলকিপার হিসেবে টার স্টেগান অসাধারণ খেলছে। কিন্তু যাদের কথা বললাম, এরা কেউই প্রথম দলে নিশ্চিত নয়। আমাদের রিজার্ভ বেঞ্চ এতটাই শক্তিশালী, তাই দল বাছাই করা হবে এই বিশ্বকাপে জার্মান কোচের জন্য বড় চ্যালেঞ্জিং একটি কাজ। জার্মানির এই দলটায় ২০১৪ সালের অনেক ফুটবলার আছে। এটা একটা বিরাট সুবিধা। মুলারের বিশ্বকাপ রেকর্ড ওর হয়ে কথা বলছে।

এবারও গোল পাওয়ার ক্ষেত্রে দল ওর দিকেই তাকিয়ে থাকবে। ওজিল, ক্রুজ এবং খেদিরা থাকায় মাঝমাঠ অত্যন্ত জমাট। সঙ্গে সৃজনশীলতাও থাকবে। রক্ষণে হামেলস এবং বোয়েতাং খুব ভালো ফর্মে আছে। ন্যুয়েরের চোট অবশ্যই একটা চিন্তার কারণ। ফিট থাকলে ন্যুয়েরই বিশ্বের সেরা গোলকিপার। ফলে জার্মানি অলরাউন্ড দল। শুধু যেটা নেই, সেটা হলো একজন পুরোদস্তুর স্ট্রাইকার।

তাহলে এ রকম ভারসাম্য থাকা একটা দল ২০১৬ ইউরো সেমিফাইনালে হেরে গেল কী করে? ১৯৯৬ সালের পর আমরা একবারও ইউরো চ্যাম্পিয়ন হইনি। অনেক দিন হয়ে গেল। তবে চ্যাম্পিয়ন হতে না পারলেও ইতিবাচক দিক হলো, আমাদের ধারবাহিকতা। ২০০৮ সালে রানার্সআপ হয়েছিলাম, ২০১২ এবং ২০১৬ সালে সেমিফাইনালে উঠেছিলাম।

ব্যক্তিগতভাবে বিশ্বকাপের অভিজ্ঞতা আমার কাছে খুব একটা ভালো নয়। ২০০২ সালে ফাইনালে হেরে যাই। বালাক না থাকায় আমরা একটু দুর্বল হয়ে গিয়েছিলাম। তবু লড়াই করেছিলাম। রোনালদো আর রিভালদোর ব্রাজিল শক্তিশালী ছিল। এরপর গত বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে সেই ব্রাজিলকেই ৭-১-এ হারিয়ে বিরাট তৃপ্তি পেয়েছিলাম। যদিও সেই ম্যাচে ওরা নেইমারকে পায়নি। ব্রাজিল বরাবরই আমাদের সেরা প্রতিপক্ষ। এবারও ফাইনালে ওদের চাই। ২০০২ সালের সেই বদলাটা কিন্তু এখনও নেওয়া হয়নি।

(জার্মান সাবেক গোলরক্ষক অলিভার কানের বিশেষ কলাম)

আরও পড়ুন

যৌতুকের মিথ্যা মামলায় পাঁচ বছর জেল

যৌতুকের মিথ্যা মামলায় পাঁচ বছর জেল

যৌতুকের অভিযোগে দায়েরকৃত মামলা মিথ্যা প্রমাণিত হলে পাঁচ বছরের জেল ...

ছয় কেন্দ্রে ইভিএম, তিন কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা

ছয় কেন্দ্রে ইভিএম, তিন কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ছয়টি কেন্দ্রে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ...

মিশরকে এগিয়ে দিলেন সালাহ

মিশরকে এগিয়ে দিলেন সালাহ

এই ম্যাচের ফলাফল এবারের বিশ্বকাপে কোনো প্রভাব ফেলবে না। তবে ...

ইন্টারনেট ব্যবহারে ভ্যাট কমছে

ইন্টারনেট ব্যবহারে ভ্যাট কমছে

অবশেষে ইন্টারনেট ব্যবহারে গ্রাহকের কাঁধ থেকে ভ্যাটের বোঝা কমছে। সোমবার অর্থমন্ত্রী ...

শুরুতেই দুই গোলে এগিয়ে উরুগুয়ে

শুরুতেই দুই গোলে এগিয়ে উরুগুয়ে

'এ' গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন নির্ধারণী ম্যাচে মাঠে নেমেছে উরুগুয়ে ও রাশিয়া। ...

নেইমারদের এড়াতে যা করতে হবে জার্মানি-মেক্সিকো-সুইডেনকে

নেইমারদের এড়াতে যা করতে হবে জার্মানি-মেক্সিকো-সুইডেনকে

ঘটন-অঘটনের রাশিয়া বিশ্বকাপ প্রথম রাউন্ড শেষ হতে চললো। তবে এখন ...

আর্জেন্টিনা দলে যেসব পরিবর্তন হতে পারে

আর্জেন্টিনা দলে যেসব পরিবর্তন হতে পারে

ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে বড় ব্যবধানে হারের পর আর্জেন্টিনার দ্বিতীয় রাউন্ড পড়ে ...

বেতন দিয়ে চোর পোষেন ইদু মামা!

বেতন দিয়ে চোর পোষেন ইদু মামা!

ইদু মিয়া ওরফে হাতকাটা ইদু। চট্টগ্রামের অপরাধ জগতে তার পরিচিতি ...