ছুটে চলেছে প্লেটো

প্রকাশ: ২৮ আগস্ট ২০১৮      

সৌরজগৎ সম্পর্কে নতুন তথ্যের খোঁজ চালানো হবে এ অভিযানে। প্রায় ৩৪টি টেলিস্কোপ ও ক্যামেরা নিয়ে মহাকাশের উদ্দেশে রওনা হচ্ছে মহাকাশযান প্লেটো। এটি ছয় বছর ধরে বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের গভীরের রহস্য উন্মোচন করবে। এ অভিযানের জন্য ধার্য করা হয়েছে প্রায় ৬০ কোটি ইউরো। এ অভিযানের মূল দায়িত্বে থাকবে জার্মানির এয়ারোস্পেস সেন্টার 'ডিএলআর'। শুধু পৃথিবীর মতো গ্রহ সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ নয়, 'প্লেটো' আমাদের সৌরজগতের সঙ্গে অন্যান্য নক্ষত্র ব্যবস্থার গঠনেরও তুলনা করবে।

প্লেটো হচ্ছে গ্রিসের ধ্রুপদী সময়ের এক দার্শনিক। যার শিক্ষক ছিল মহান সক্রেটিস আর ছাত্র ছিলেন অ্যারিস্টটল। পিথাগোরীয় আর সক্রেটেসীয় ধারা নিয়ে জীবনকে প্রবাহিত করেছিলেন প্লেটো। প্লেটো খুঁজেছিলেন গ্রহের কক্ষপথের ভৌত নিয়ম। দার্শনিকের হৃদয়কে সন্তুষ্ট করার জন্য গণিতের ঐক্য ও নিয়মানুবর্তিতার সন্ধান করছিলেন তিনি।

অবশ্য এ অভিযান শুরু হতে এখনও ৮ বছর অপেক্ষায় থাকতে হবে। ২০২৪ সালে প্লেটো অবজারভেটরি মহাকাশে তার যাত্রা শুরু করবে এবং মহাকাশ থেকেই গ্রহের অনুসন্ধান চালাবে। শুধু পৃথিবীর মতো গ্রহ নয়; প্লেটো অনুসন্ধান করবে ১০ লাখ নক্ষত্রকে ঘিরে আবর্তিত গ্রহগুলোকে। স্পষ্ট করবে গ্রহগুলোর গঠন পরিস্থিতি ও জীবনের উদ্ভব।

মার্কিন মহাকাশ সংস্থা 'নাসা' এমন একাধিক গ্রহের সন্ধান পেয়েছে। বহু দূরের এসব গ্রহ বা 'এক্সোপ্লানেট' সম্পর্কে অবশ্য তাৎক্ষণিক খুব বেশি তথ্য পাওয়া কঠিন। তাদের আলোকচ্ছটা বিশ্নেষণ করে খুব বেশি হলেও গ্রহের উপাদান সম্পর্কে জানা যায়। দূরের গ্রহ সন্ধানের এই উদ্যোগকে এগিয়ে নিয়ে যেতে ইউরোপীয় মহাকাশ সংস্থা এই নতুন অভিযানের পরিকল্পনা করেছে। ২০২৪ সালে পাঠানো প্লেটো শুধু পৃথিবীর মতো গ্রহ সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ নয়, আমাদের সৌরজগতের সঙ্গে অন্যান্য নক্ষত্র ব্যবস্থার গঠনেরও তুলনা করবে।

পৃথিবী থেকে প্রায় ১৫ লাখ কিলোমিটার দূরে 'এল-টু' নামে একটি এলাকা থেকে পর্যবেক্ষণ কাজ চালাবে প্লেটো। সূর্য, পৃথিবী ও চাঁদ থেকে দূরের এই অবস্থানের সুবিধা হলো, সেখান থেকে সারা বছর মহাকাশের গভীরে নজর রাখা যাবে। 'প্লেটো'র মধ্যে থাকবে ৩৪টি ছোট টেলিস্কোপ ও ক্যামেরা। তাদের মূল কাজ হবে পৃথিবীর মতো গ্রহগুলোকে আরও খুঁটিয়ে পর্যবেক্ষণ করা। গবেষকদের মতে, কোনো গ্রহ তার নক্ষত্র থেকে বিশেষ এক দূরত্বে থাকলে তাতে জল থাকতে পারে। ফলে সেখানে প্রাণের অস্তিত্বের সম্ভাবনা রয়েছে। ১৯৯৫ সালে প্রথমবারের মতো এমন একটি গ্রহের খোঁজ পাওয়া গিয়েছিল। এখন পর্যন্ত প্রায় ২০০০টি 'এক্সট্রাসোলার' গ্রহ আবিস্কৃৃত হয়েছে।

সত্যি যদি পৃথিবীর মতো গ্রহের সন্ধান পাওয়া যায়, তাহলে পৃথিবীর মতো কোনো বুদ্ধিবৃত্তিক কিছুর সন্ধান মিলবে। তাদের দার্শনিক ভাবধারার গতিপ্রকৃতি কী হবে তা উন্মোচন করাও প্লেটো নামের কারণে উৎসাহিত হবে।

-আসিফ
তবুও জামায়াত ছাড়বে না বিএনপি

তবুও জামায়াত ছাড়বে না বিএনপি

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার নেতাদের দাবিতে জামায়াতকে ত্যাগ করবে না বিএনপি। ...

সাত বিভাগীয় শহরে হবে সাইবার ট্রাইব্যুনাল

সাত বিভাগীয় শহরে হবে সাইবার ট্রাইব্যুনাল

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের অধীনে সংঘটিত অপরাধের বিচার দ্রুত ...

১৯৩ দেশই ভ্রমণ করবেন নাজমুন

১৯৩ দেশই ভ্রমণ করবেন নাজমুন

লাল-সবুজের পতাকা হাতে পৃথিবীর পথে এখনও হেঁটে চলেছেন নারী পরিব্রাজক ...

বঞ্চনার শেষ নেই শিক্ষা ক্যাডারে

বঞ্চনার শেষ নেই শিক্ষা ক্যাডারে

মানিকগঞ্জের সরকারি দেবেন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ সাইদুর রহমান ১৪তম বিসিএসের কর্মকর্তা। ...

বেদেপল্লীর বাতাসে এখনও পোড়া গন্ধ

বেদেপল্লীর বাতাসে এখনও পোড়া গন্ধ

পিচঢালা পথের যেখানে শেষ, সেখান থেকেই শুরু বেদেপল্লীতে প্রবেশের রাস্তা। ...

শেষবেলায় আ'লীগের চমক ড. ফরাসউদ্দিন?

শেষবেলায় আ'লীগের চমক ড. ফরাসউদ্দিন?

নির্বাচন কমিশনের পরিকল্পনা অনুযায়ী আর মাত্র তিন মাস পর একাদশ ...

জঙ্গিদের বোমা নিষ্ক্রিয় করবে 'যন্ত্রমানব'

জঙ্গিদের বোমা নিষ্ক্রিয় করবে 'যন্ত্রমানব'

হঠাৎ খবর এলো, জঙ্গিরা উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন বোমা নিয়ে আস্তানায় অবস্থান ...

শেখর-রোহিতের সেঞ্চুরিতে উড়ে গেল পাকিস্তান

শেখর-রোহিতের সেঞ্চুরিতে উড়ে গেল পাকিস্তান

দুবাইয়ের খবর অনুযায়ী, ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের টিকিট বিক্রি হয়নি ভালো। আয়ের ...