তারুণ্য

পুরস্কারের টাকায় অসহায়ের পাশে

প্রকাশ: ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

শখের বশে ছবি তোলেন কাজী মো. জহিরুল ইসলাম। অর্জনের ঝুলিতে রয়েছে প্রায় অর্ধশত পুরস্কার। কিন্তু অবাক করা ব্যাপার, আলোকচিত্রের পুরস্কারের টাকায় দাঁড়াচ্ছেন অসহায় শিশুদের পাশে। তাকে নিয়ে লিখেছেন কৌশিক একজন জহিরুল

পুরো নাম কাজী মো. জহিরুল ইসলাম। তিন ভাই-বোনের মধ্যে সবার বড়। আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম থেকে এমবিএ পাস করে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ভারপ্রাপ্ত এইচআর ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত এই আলোকচিত্রী ভালোবাসেন ছবি নিয়ে কাজ করতে। তার তোলা ছবির মাধ্যমে ফোটাচ্ছেন হাজারো শব্দ।

-শুরুর কথা

ছোটবেলা থেকে ভালোবেসে ফেলেন আলোকচিত্রকে। সেই স্বপ্ন পূরণে লেগে গেলেন পুরনো মডেলের একটি ক্যামেরা হাতে নিয়ে। বাড়ির আশপাশে কিংবা যে কোনো জায়গায় গেলেই তার সঙ্গী হয় সেই ক্যামেরা, ছোটখাটো একটি বিষয়ও ক্যামেরাবন্দি করতে ভুলতেন না। ছবি তোলার প্রতি আগ্রহ দেখে বাবা কাজী মো. মাকছুদুর রহমান ছেলে জহিরুলের জন্মদিনে একটি নিকন ৩২০০ মডেলের ক্যামেরা কিনে দেন। যা পেয়ে নিজের স্বপ্নের পথে আরও এগিয়ে যান। ক্যামেরা হাতে পেয়েই নিয়মিত অবসরে ঘুরে বেড়িয়েছেন ছবির খোঁজে। ঘুমাতে গেলেও হাতে থাকত সেই ক্যামেরা।

-যেভাবে ছবির পেছনে

একদিন নানুর বাড়ি বেড়াতে গিয়ে লক্ষ্য করলেন, বিলের মাঝে ৪-৫টি বাচ্চা হাঁটুপানির মধ্যে খেলা করছে, সঙ্গে ছোট্ট একটা বাচ্চা হাতে শাপলা ফুল নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। সেই ছোট ছেলেটির হাসিমুখ ক্যামেরায় বন্দি করেন জহিরুল। ঘরে ফিরে ছবিটি যখন ফেসবুকে শেয়ার করেন তখন ছবিটির জনপ্রিয়তা দেখে অংশ নেন বিভিন্ন আলোকচিত্র প্রতিযোগিতায়। আর এতেই বাজিমাত! সবাইকে অবাক করে ইক্সিফ ইউনিটেড ফটো কনটেস্টে জিতে নেন প্রথম পুরস্কার। এই অভিজ্ঞতা ও অনুপ্রেরণা কাজে লাগিয়ে নেমে যান একের পর এক প্রতিযোগিতায়, যার মধ্যে প্রায় প্রতিযোগিতায় জহিরুলের অবস্থান ছিল টপ লিস্টে। এরপর যেন উৎসাহটা হয়ে গেল দ্বিগুণ। বাড়ি কিংবা যে কোনো জায়গায় প্রশংসায় ভাসতে থাকে জহিরুলের ছবি। দেশের প্রতিযোগিতার অনুপ্রেরণা কাজে লাগিয়ে অংশ নেন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে। আর সেখানেও বিচারকদের মন কাড়েন নোয়াখালী জেলার এই তরুণ।

-পুরস্কারের টাকায় অসহায়ের পাশে

তার পুরস্কারের টাকার প্রায় অর্ধেকের বেশি অংশ নিয়ে প্রতিবারই পাশে দাঁড়াচ্ছেন সুবিধাবঞ্চিত ও অসহায় শিশুদের পাশে! এনে দিচ্ছেন শিক্ষাসামগ্রীসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র। ছোট থেকেই তার অসহায়দের পাশে থাকার ইচ্ছা থাকলেও অর্থের অভাবে এগোতে পারেননি। জহিরুলের সেই ইচ্ছা বাস্তবায়নে সঙ্গী হয় পুরস্কারের টাকা। নানুর বাড়িতে তোলা জহিরুলের জনপ্রিয় হওয়া ছবির নায়ক ছোট্ট শিশু আশিক ও তার পরিবারকে পুরস্কারের পাওয়া অর্থ দিয়ে ঈদের জামা কিনে দেন। পুরস্কারের অর্থ দিয়ে ঈদের জামা কিনে দেন ১৫ জন দরিদ্র শিশুকে, এসব তারই কিছু উদাহরণ। সর্বশেষ এক পুরস্কারের টাকায় শীতের কম্বল কিনে সাহায্য করে পাশে দাঁড়ান দুই অসহায় মানুষের পাশে। শুধু তাই নয়, চিকিৎসা কিংবা ছোটখাটো সব বিষয়ে টাকা দিচ্ছেন। যুক্ত আছেন বেশকিছু সামাজিক সংগঠনের সঙ্গে। বন্ধ কিংবা যখন বাড়ি যান, সময় পেলেই তাদের কাছে যান সময় কাটাতে। তারা কখনও মামা, কখনও আঙ্কেল কিংবা বন্ধু বানিয়ে ফেলেন জহিরুলকে। আগামীতে নিজের অবসরে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করার ইচ্ছার কথা জানালেন তিনি- 'এদের জন্য কাজ করতে নিজের মাঝে এক ধরনের ভালো লাগা কাজ করে। আমি মনে করি প্রত্যেক সাফল্যবান ব্যক্তির উচিত সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়ানো। তাহলে সমাজের সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের অপূর্ণতার কিছুটা হলেও পূর্ণতা পাবে,' বলেন জহিরুল। ওদের চোখেমুখে যে আনন্দের ঝিলিক খেলা করে সেটা দেখতে পাওয়া আমার বড় প্রাপ্তি।

-জহিরুলের যত অর্জন

আলোকচিত্রের ওপর দেশি-বিদেশি বর্তমানে অর্ধশতের কাছাকাছি পুরস্কার রয়েছে জহিরুলের অর্জনের ঝুলিতে। এর উল্লেখযোগ্য কয়েকটি- ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন এবং সিডস এশিয়া জাপানের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত 'টেল আস ইয়োর স্টোরি ইন বাংলাদেশ,' 'জবষবধংব ঞযব ঝযঁঃঃবৎ ৪ ঈষরসধঃব ঈযধহমব : চযড়ঃড় ঊীযরনরঃরড়হ'-এ লাভ করেন প্রথম স্থান, পুরস্কৃত হন ভারতের বেঙ্গালুরুতে অনুষ্ঠিত অক্ষয়া পত্র'স অ্যানুয়াল ফটোগ্রাফি কনটেস্ট অ্যান্ড এক্সিবিশন 'ক্লিক এ স্মাইল কনটেস্ট ২০১৫', দক্ষিণ এশিয়ার দেশ নিয়ে আয়োজিত 'ফ্রিডম ফটো কম্পিটিশন-২০১৬', প্রথম কোনো বাংলাদেশি হিসেবে পুরস্কার লাভ করেন ভারতের দিল্লিতে অবস্থিত হিন্দু কলেজ আয়োজিত 'ডেমলেলেন ২০১৬- রিভিস্টা'স অ্যানুয়াল ফটোগ্রাফি এক্সিবিশনে, পুরস্কৃত হন ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন, বাংলাদেশের ফটোগ্রাফি কম্পিটিশনসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতায়। জহিরুলের তোলা ছবি প্রদর্শিত হয়েছে দেশি কিংবা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে। স্পেনের কিউটায় অনুষ্ঠিত 'ইমিগ্রেশন কনটেস্ট'- মিউজিয়াম অব দ্য রেভলিং-এ প্রদর্শিত হয়। সম্প্রতি বাংলাদেশের এই তরুণের ছবি প্রদর্শিত হয় তুর্কিতে অনুষ্ঠিত তুর্কি ফোর্থ ইন্টারন্যাশনাল ফটোগ্রাফি 'গ্লোবাল ওয়ার্মিং, ফর গেটেন ফিউচার' ও জাপানের কোবে শহরের JICA Kansai Center--এ।



পরবর্তী খবর পড়ুন : আবু সিনার সাফল্য

ভারতের শ্বাস রুদ্ধ করে ’টাই’ আফগানদের

ভারতের শ্বাস রুদ্ধ করে ’টাই’ আফগানদের

ভারত 'বধ' করেই ফেলেছিল আফগানিস্তান। কিন্তু ম্যাচটা শেষ পর্যন্ত টাই ...

পল্টন-সোহরাওয়ার্দী কোনোটাই পাচ্ছে না বিএনপি

পল্টন-সোহরাওয়ার্দী কোনোটাই পাচ্ছে না বিএনপি

আগামীকাল বৃহস্পতিবার প্রথমে রাজধানীতে জনসভা করার ঘোষণা দিয়েছিল বিএনপি। ওইদিন ...

শীর্ষ চার রুশ ব্লগার বাংলাদেশে

শীর্ষ চার রুশ ব্লগার বাংলাদেশে

বাংলাদেশের পর্যটন সম্ভাবনাকে রাশিয়ার জনগণের সামনে তুলে ধরা এবং দ্বিপক্ষীয় ...

ভূমিহীনের জন্য বরাদ্দ জমিতে বড়লোকের পুকুর

ভূমিহীনের জন্য বরাদ্দ জমিতে বড়লোকের পুকুর

মুক্ত জলাশয়ে মাছ ধরে তা বিক্রি করে সংসার চলতো ভূমিহীন ...

জাতীয় ঐক্যকে চাপে রাখবে আ'লীগ ও ১৪ দলীয় জোট

জাতীয় ঐক্যকে চাপে রাখবে আ'লীগ ও ১৪ দলীয় জোট

শুরুতে স্বাগত জানালেও জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া গঠন এবং সরকারবিরোধীদের নিয়ে ...

জিততেই হবে আজ

জিততেই হবে আজ

অতীতের ভুল তারা কখনোই স্বীকার করে না। মানতে চায় না ...

প্রশাসনে নির্বাচনী রদবদল

প্রশাসনে নির্বাচনী রদবদল

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রশাসন সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছে ...

বিএনপির সমাবেশের পর ঐক্যের লিয়াজো কমিটি

বিএনপির সমাবেশের পর ঐক্যের লিয়াজো কমিটি

আগামী শনিবার বিএনপির সমাবেশের পর 'বৃহত্তর জাতীয় ঐক্যের' লিয়াজো কমিটি ...