নারীর যোগ্যতার মাপকাঠি

প্রকাশ: ০৯ নভেম্বর ২০১৮      

ড. চৌধুরী সায়মা ফেরদৌস

ভাবতেও অবাক লাগে, এই যুগে এসেও নারীর বাহ্যিক সৌন্দর্যের প্রতিযোগিতা হয়! নারী 'মানুষ' হিসেবে সম্মান, মানবতা ভূলুণ্ঠিত হয় এসব তথাকথিত 'সৌন্দর্য' প্রতিযোগিতার উৎসবে। যুগে যুগে নারীর যোগ্যতাকে পিছে ঠেলে দেওয়া হয়েছে শিল্পের নামে। তার বাহ্যিক সৌন্দর্য নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা করে, বারবার তার মানুষ হিসেবে প্রাপ্য সম্মান আর মেধার মূল্যায়নকে ছুড়ে ফেলা হয়েছে পুরনো সেই ধ্যান-ধারণার গুদামঘরে। নারী মানে মানুষ, নারীর মেধা কোনো অংশে পুরুষের চেয়ে কম নয়, নারী শিক্ষিত হওয়ার অধিকার রাখে, তার নিজস্ব মতামত দেওয়ার যোগ্যতা অর্জনের অধিকার আছে এবং তার মতামতের সম্মান করা নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সবারই কর্তব্য। কিন্তু সমস্যা হলো, এই পুরুষতান্ত্রিক সমাজ সেই আদিমকাল থেকেই নারী মানে আগে তার রূপ, আর গুটিকয় গুণাবলি এই ধারণায় অভ্যস্ত। যুগ যুগ ধরে নারীকে প্রথমে সৌন্দর্যের মাপকাঠিতে পার পেতে হয়, তার পর হেঁসেল। কখনও ধর্মের নামে, কখনও সমাজের প্রচলিত প্রথার অজুহাতে। নারী মানেই ধরে নেওয়া হয়েছে কয়েকটা নির্দিষ্ট কাজের জন্যই যোগ্য তারা। নারীর হরিণ চোখ, তার আঁখি পলল্গব, তার বাহু, তার খোঁপার কাঁটা সবই তো কাব্যের বিষয়! কেন যেন আমার আর নারীর রূপ বিষয়ক চর্চা ভালো লাগে না। বিরক্তিকর মনে হয়। নারী শিক্ষা বহুকাল তো আটকে ছিল হেঁসেলের চার দেয়ালেই। শিক্ষিত সমাজ হিসেবে, হেঁসেলে, সংসার-সন্তান- এসবই স্বামী-স্ত্রী দু'জন মিলে সামলানোর কথা ছিল। এখনও এই ধারণা প্রতিষ্ঠিত না করলে, সামনের দিনে নারী বিশেষজ্ঞ পাবেন কোথায়? আমাদের সুশীল সমাজ যতই চিৎকার করুক, আজও দেখবেন আমি, আপনি, আমাদের সবার চোখে নারীকে 'সুন্দর' বলি, যদি তার দুধে আলতা গায়ের রঙ হয়, শরীরের আদর্শ মাপ সে তো ঘটা করে আজও জানান দেই। আর সৌন্দর্য প্রতিযোগিতা? সে তো এসব ভেতরে লালিত ধ্যান-ধারণারই শৈল্পিক রূপ।

শিক্ষা, শিল্প সব চর্চা বাদ দিয়ে তাক লাগানো সুন্দর চেহারা আর সুন্দর অবয়বের পেছনে ছুটছি রাত-দিন। এই পাগলের মতো ছোটাছুটিতে হারিয়ে ফেলছে সমাজ অনেক সম্ভাবনা। অনেক মেয়েরই সম্ভাবনা ছিল বড় ডাক্তার হওয়ার, সম্ভাবনা ছিল করপোরেট সেক্টর দাপিয়ে বেড়াবার। এরা শিল্পী হতে পারত, সুকুমার বৃত্তির চর্চা করে ভালো লাগা ছড়াতে পারত। পারত ইঞ্জিনিয়ার কিংবা জাঁদরেল উকিল হতে। যেসব অদম্য মেয়েরা অসাধ্যকে সাধন করে সম্পূর্ণ নিজ যোগ্যতায় ক্যারিয়ারের ওপরে উঠেছেন, তাদের এই উন্নতির পেছনে মেধাকে আমরা খুব কম মানুষই দেখতে পাচ্ছি। কে যোগ্য সুন্দরী, তা নিয়ে দেশজুড়ে মাতামাতি। এই মাতামাতিতে আদতে কি আরও একবার এই আমরাই ঘটা করে নারীকে পণ্য করছি না? ভুল করছি সৌন্দর্যের সংজ্ঞা নির্ধারণে। সৌন্দর্য বাইরে নয়, নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সৌন্দর্য নিহিত থাকে তার মনে, তার কর্মে। আর কতকাল গেলে পরে আমরা বুঝতে সক্ষম হবো, সৌন্দর্য মানে- মন, মনন, মেধা, মানবিকতা, দয়া, ক্ষমা, দান, পরোপকার। সৌন্দর্য মানে কঠিন সময়কেও মায়ার চাদরে আগলে রাখার সাহস। যারা সাহস দেয় তারা সুন্দর, যারা হেরে যাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়ায়, তারা সুন্দর। সুন্দর মানে সেই মন, যা অন্যের কষ্টে কাঁদে, উদ্যমী হয়ে সমাজ পরিবর্তনে অন্যের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মেলায়। শিল্প মানে গান, কবিতা, নাটক- যার মাধ্যমে শিল্পীরা ভাবতে শেখায়, সাহস জোগায়, সমাজের বৈষম্য তুলে ধরে। শিল্প মানে, আমাদের বিনোদন, যা কিনা আমাদের প্রাণ খুলে হাসতে শেখায়, অল্প কিছুক্ষণের জন্য হলেও ওই বিনোদন আবারও জীবনযুদ্ধে নামার প্রাণশক্তি জোগায়। এসব সৌন্দর্য আর শিল্পের যারা নামকরা শিল্পী, তাদের সাধনা অনেক দিনের। তার পরই এরা শিল্পী।

কোন সমাজসেবায় লেখা আছে যে, কোন ভালো কাজ করার জন্য বাহ্যিক সৌন্দর্য অপরিহার্য? রেসিজম নিয়ে এত মাতামাতি করি, বৈষম্য নিয়ে চিৎকার করছি নারী দিবসে, আর সেখানে যদি উৎসব চলে 'বিউটি উইথ ব্রেইন', তাতে যার ব্রেইন আছে কিন্তু তথাকথিত 'বিউটি' নেই, তাদেরকে কি এসব আয়োজনের মাধ্যমে আলাদা করে ফেলছি না? এই সমাজে বহু সম্ভাবনাময় নারী আত্মহত্যা করে; কারণ সমাজের বেঁধে দেওয়া নিয়মানুযায়ী 'সৌন্দর্যের' তালিকায় পড়ে না বলে। কিছুটা স্থূলকায় নারী হীনমন্যতায় ভোগে, কালো মেয়েদের আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর জন্য ঘটা করে বিভিন্ন ক্রিম লোশনের ব্যবসা আজও রমরমা, শুধু আমি অধমেরই মাথায় ঢোকে না, বিধাতা ভালোবেসে যে রূপই আমায় দিয়েছেন, তাকে কেন আমি সমাজের চোখে গ্রহণযোগ্যতার জন্য কিংবা সমাজের বাহবা পাওয়ার জন্য পরিবর্তনের চেষ্টায় এই অমূল্য জীবন-যৌবন নষ্ট করতে হবে? সুস্থ থাকার চেষ্টা এক, আর ফিগারের পেছনে ছুটতে গিয়ে নিজেকে 'ভুখা' রাখা আরেক। আজকালকার মেয়ে এবং মায়েদের এই শুকনা থাকার প্রাণান্ত চেষ্টা আমার কাছে অসুস্থতার শামিল। মানসিক অসুস্থতা। প্রতিদিন পত্রপত্রিকায় কি কম নারী নির্যাতনের ঘটনার চিত্র উঠে আসছে? নাকি ঘরে ঘরে নারী অবমাননার রূপ আমাদের কারও অজানা?

অধ্যাপক, ডিপার্টমেন্ট অব ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

পরবর্তী খবর পড়ুন : নিউইয়র্কে নির্বাচন

এক আসনেই আ'লীগের ৫২ মনোনয়নপ্রত্যাশী

এক আসনেই আ'লীগের ৫২ মনোনয়নপ্রত্যাশী

আসন্ন সংসদ নির্বাচনে লড়াইয়ের জন্য এক আসনেই আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীর ...

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যাত্রীবাহী বাস মার্কেটে, আহত ২০

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যাত্রীবাহী বাস মার্কেটে, আহত ২০

সীতাকুন্ডের ভাটিয়ারী পোর্টলিংকে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে হানিফ পরিবহনের যাত্রীবাহী বাস রাস্তার ...

ছাড়পত্র পাওয়া রোহিঙ্গারা ক্যাম্প ছেড়ে পালাচ্ছে

ছাড়পত্র পাওয়া রোহিঙ্গারা ক্যাম্প ছেড়ে পালাচ্ছে

বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ১৫ নভেম্বর থেকে রোহিঙ্গা ...

১০ বছর পর উৎসবমুখর নয়াপল্টন

১০ বছর পর উৎসবমুখর নয়াপল্টন

প্রায় দশ বছর পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ...

সাক্ষাৎকার নয় দিকনির্দেশনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী

সাক্ষাৎকার নয় দিকনির্দেশনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী

এবার আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেওয়া হবে না। তবে তাদের ...

হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য পুরস্কার পেলেন রিজিয়া রহমান

হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য পুরস্কার পেলেন রিজিয়া রহমান

'হুমায়ূন আহমেদ নেই, হুমায়ূন আহমেদ আছেন। যারা তার সাহচর্য পেয়েছিলেন, ...

আসন হারানোর শঙ্কায় জাপা

আসন হারানোর শঙ্কায় জাপা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মহাজোটের প্রধান শরিক আওয়ামী লীগের কাছে ...

জামায়াতও ৩৫ আসনের কমে মানতে নারাজ

জামায়াতও ৩৫ আসনের কমে মানতে নারাজ

নিবন্ধন বাতিল হওয়ায় দলীয় পরিচয়ে ভোটে অংশ নেওয়ার সুযোগ নেই ...