চার্জশিট হয়নি আট মাসেও

প্রকাশ: ২০ জুন ২০১৫      

সাহাদাত হোসেন পরশ

২০১৪ সালের ১৯ অক্টোবর রাজধানীর মিরপুরে নিজ বাসায় নৃংশসভাবে খুন হন ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে হত্যার ক্লু শনাক্ত করে চার আসামিকেই গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। চাঞ্চল্যকর এই হত্যার অন্যতম পরিকল্পনাকারী ছিলেন গিয়াসের স্ত্রী লাবণী ইয়াসমিন লীনা। কলেজপড়ূয়া তরুণ তানভীর আহমেদের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে স্বামীকে হত্যার পরিকল্পনা করেন তিনি। লীনা-তানভীরসহ কিলিং মিশনের চার সদস্যকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতার করলেও দীর্ঘ আট মাসে আলোচিত এই মামলার চার্জশিট দাখিল করতে পারেনি পুলিশ। হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে গ্রেফতার হওয়া চারজনই আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। ইতিমধ্যে তিন দফায় মামলার তদন্ত কর্মকর্তাও পরিবর্তন হয়েছে। হত্যার আদ্যোপান্ত জানার দীর্ঘ সময় পরও চার্জশিট দাখিল না হওয়ায় ক্ষুব্ধ আর হতাশ নিহতের স্বজনেরা।
এ ব্যাপারে মিরপুর থানার ওসি সালাহ উদ্দিন সমকালকে বলেন, দ্রুত সময়ের মধ্যে মামলাটির চার্জশিট দাখিলের জন্য তদন্ত কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মিরপুর
থানার উপ-পরিদর্শক মোয়াজ্জেম হোসেন সমকালকে বলেন, কেন, কী কারণে, কারা গিয়াস উদ্দিনকে খুন করেছে_ এর সব উত্তর তদন্তে উঠে এসেছে। লীনার পরিকল্পনায় দুই বন্ধুকে নিয়ে তানভীর গিয়াস উদ্দিনকে হত্যা করে। লীনাকে ফ্ল্যাটের ভেতর হাত-পা বেঁধে ডাকাতির নাটক সাজানোর চেষ্টা করা হয়।
হত্যার পরপরই সকল আসামি গ্রেফতারের পরও কেন চার্জশিট দাখিল করতে দেরি হচ্ছে_ এমন প্রশ্নে তদন্ত কর্মকর্তা মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, এই মামলার বেশ কিছু আলামত সিআইডিতে ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। ওই প্রতিবেদন দু'একদিন আগে পাওয়া গেছে। তাই চার্জশিট দাখিল করতে বিলম্ব হয়। তবে ৩-৪ দিনের মধ্যে তদন্ত সংশ্লিষ্ট সব কিছু শেষ করে চার্জশিট দাখিল করা হবে।
নিহতের ভাই মাসুদুর রহমান সমকালকে বলেন, 'সব কিছু যখন খোলাসা তখন কেন পুলিশ দেব, দিচ্ছি বলে চার্জশিট দাখিলে গড়িমসি করছে তা বোধগম্য নয়। তদন্ত কর্মকর্তা বিভিন্ন সময় ফোন করে দেখা করতে বলেন। গড়িমসির ব্যাপারে পরিষ্কারভাবে কিছু বলেও না। ইতিমধ্যে জিসান নামে এক আসামি জামিন পেয়েছেন।'
২০১৪ সালে ১৯ অক্টোবর রাতে মিরপুর ১০ নম্বর সি ব্লকের ১৫ নম্বর লেনের ১১ নম্বর বাসার পঞ্চম তলার ফ্ল্যাটে লাঠি দিয়ে আঘাত ও শ্বাসরোধে হত্যা করা হয় গিয়াস উদ্দিনকে। প্রথম থেকেই এ ঘটনায় সন্দেহভাজন ছিলেন গিয়াসের স্ত্রী লীনা। এরপর তাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের পর চাঞ্চল্যকর এই হত্যার ক্লু বেরিয়ে আসে। পরে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করা হয় তানভীর, জিসান ও মুক্ত নামে তিন তরুণকে।
মামলার তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রাজধানীর বিএন স্কুলে একাদশ শ্রেণীতে পড়াশোনা করতেন তানভীর। এলাকায় আড্ডা মারতে গিয়ে লীনার সঙ্গে তার পরিচয়। এক পর্যায়ে তারা পরকীয়া সম্পর্কে জড়ান। গিয়াসকে হত্যার পর তারা বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন। এ পরিকল্পনার অংশ হিসেবে তানভীর তার দুই বন্ধু জিসান ও মুক্তকে নিয়ে গিয়াসকে হত্যার পর ডাকাতির নাটক সাজানোর পরিকল্পনা করেন। পরিকল্পনা অনুযায়ী ঘটনার রাতে তানভীর, জিসান ও মুক্ত বাসায় ঢোকেন। তিন বন্ধু লীনার দুই শিশুসন্তানকে পাশের একটি কক্ষে আটকে রাখেন। গ্রেফতারকৃতদের দেওয়া জবানবন্দি অনুসারে পরিকল্পনা অনুযায়ী গিয়াসকে মোবাইল ফোনে বাসায় ডেকে আনেন তার স্ত্রী। বাসায় প্রবেশের পরপরই তার মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করেন তানভীর। এরপর তিন বন্ধু মিলে তাকে শ্বাসরোধে করে হত্যা করা হয়। পরে নাটক মঞ্চস্থের জন্য লীনার হাত-পা ও মুখ বেঁধে ফেলা হয়। গিয়াসকে হত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করার পর প্রথমে বাসা থেকে পালান জিসান ও মুক্ত। পরে বোরকা পরে ওই ফ্ল্যাট থেকে পালান তানভীর।
তদন্ত সূত্র জানায়, লীনার বাসা থেকে বেরিয়ে তানভীর ও তার দুই বন্ধু মিরপুর ১০ নম্বরে একত্র হন। হত্যা মিশন সফলভাবে সম্পন্ন হওয়ায় জিসান ও মুক্তকে ১৫ হাজার টাকা দেন তানভীর।


'আর কারও সন্তান যেন জঙ্গি না হয়'

'আর কারও সন্তান যেন জঙ্গি না হয়'

'আমি হতভাগ্য পিতা, আবার হতভাগ্য দাদাও। জঙ্গিবাদের বিষবাষ্প আমার সন্তান ...

১২ অস্ত্রধারী চিহ্নিত

১২ অস্ত্রধারী চিহ্নিত

নারায়ণগঞ্জে হকার ইস্যুতে গত মঙ্গলবারের সহিংস ঘটনায় ১২ অস্ত্রধারীকে চিহ্নিত ...

আবাসন কোম্পানির কব্জায় সরকারি সম্পত্তি

আবাসন কোম্পানির কব্জায় সরকারি সম্পত্তি

সাভারে শুধু ব্যক্তি পর্যায়ে নয়, অবাধে দখল হচ্ছে সরকারি জমিও। ...

 দুর্গাসাগরে এসেই ফিরে গেল অতিথি পাখিরা

দুর্গাসাগরে এসেই ফিরে গেল অতিথি পাখিরা

দীর্ঘ এক দশক পর দুর্গাসাগরে এসেছিল একঝাঁক অতিথি পাখি। তবে ...

 নির্ভার আওয়ামী লীগ বিএনপিতে দুশ্চিন্তা

নির্ভার আওয়ামী লীগ বিএনপিতে দুশ্চিন্তা

চট্টগ্রাম-১৩ (আনোয়ারা) আসনে বর্তমান এমপি ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ। ...

সেই রশিদ তবুও মন্ত্রণালয়ের সুনজরে

সেই রশিদ তবুও মন্ত্রণালয়ের সুনজরে

কুষ্টিয়ার গুদামগুলোতে ধারণ ক্ষমতা না থাকলেও নতুন করে এখানে আমন ...

জিতলেই ফাইনালে জিম্বাবুয়ে, শ্রীলংকার টিকে থাকার লড়াই

জিতলেই ফাইনালে জিম্বাবুয়ে, শ্রীলংকার টিকে থাকার লড়াই

ঢাকায় নামার পরদিন চন্ডিকা হাথুরুসিংহেকে এক গণমাধ্যমকর্মী প্রশ্ন করেছিলেন, গত ...

এ সপ্তাহেই প্রধান বিচারপতি নিয়োগ হতে পারে

এ সপ্তাহেই প্রধান বিচারপতি নিয়োগ হতে পারে

চলতি সপ্তাহে প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দেওয়া হতে পারে। কে হচ্ছেন ...