বনানীর নিজ কার্যালয়ে জনশক্তি ব্যবসায়ী খুন

মুখোশধারীদের তিন মিনিটের অপারেশন

প্রকাশ: ১৫ নভেম্বর ২০১৭     আপডেট: ১৫ নভেম্বর ২০১৭      

সমকাল প্রতিবেদক

সময় তখন রাত ৭টা ৫৫ মিনিট। রাজধানীর বনানীর বি-ব্লকের ৪ নম্বর সড়কের ১১৩ নম্বর বাড়িতে ঢোকে মুখোশধারী চার যুবক। এর পরই এলোপাতাড়ি গুলির শব্দ। তিন মিনিটের কম সময়ের মধ্যেই অস্ত্র উঁচিয়ে সেখান থেকে বেরিয়ে যায় ওই যুবকরা। ভবনটির সিসিটিভি ফুটেজে মিলেছে এমন দৃশ্য। ততক্ষণে ওই ভবনের নিচতলায় অবস্থিত 'মুন্সী ওভারসিজ' নামের একটি প্রতিষ্ঠানে গুলিবিদ্ধ চারজন পড়ে থাকেন। তাদের উদ্ধার করে গুলশানের একটি হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক সিদ্দিক হোসেনকে (৫২) মৃত ঘোষণা করেন। এলোপাতাড়ি গুলিতে আহত মোস্তাক, মুখলেস ও পারভেজকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত সিদ্দিক ছিলেন জনশক্তি রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান মুন্সী ওভারসিজের কর্ণধার।

বনানীর অভিজাত ওই এলাকায় অফিসে ঢুকে মুখোশধারীদের এমন গুলির ঘটনায় বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

প্রাথমিকভাবে পুলিশ কর্মকর্তারা ধারণা করছেন, সিদ্দিক হোসেনকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হতে পারে। এর নেপথ্যে ব্যবসায়িক বিরোধ বা পারিবারিক কলহ নাকি পূর্বশত্রুতা রয়েছে তা তদন্ত করা হচ্ছে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী প্রতিষ্ঠানটির কর্মী আলী হোসেন সমকালকে বলেন, তারা তখন অফিস বন্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। ওই সময় চার যুবক অফিসে ঢোকে। তাদের সবার মুখেই মুখোশ পরা ছিল। এক যুবক মালিক কোথায় জানতে চায়। অন্যজন অফিসের ড্রয়ার কোথায় তা তড়িঘড়ি জানতে চায়। এর মধ্যেই মালিক তার কক্ষ থেকে বেরিয়ে আসে। তখনই অস্ত্রধারী একজন মালিককে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি ছোড়ে। এতে মালিকসহ চারজন গুলিবিদ্ধ হন।

অস্য এক কর্মী মোকাররম হোসেন টিপু বলেন, চার দুর্বৃত্তের মধ্যে তিনজনের হাতে ক্ষুদ্রাস্ত্র ছিল। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ওই দুর্বৃত্তরা গুলি ছুড়তে ছুড়তে বেরিয়ে যায়। গুলির শব্দে তিনি কক্ষে আশ্রয় নেন। পরে তারা আশপাশের বাসিন্দাদের নিয়ে গুলিবিদ্ধ চারজনকে উদ্ধার করে ইউনাইটেড হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক জানান, সিদ্দিক হোসেন আগেই মারা গেছেন। অন্য তিনজনের অবস্থাও গুরুতর।

খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে যান সিদ্দিকের স্ত্রী জোসনা বেগম, মেয়ে, মেয়ে জামাতা আবু হানিফসহ স্বজনরা। আবু হানিফ সমকালকে বলেন, তিনি ৪টার দিকে অফিস থেকে বের হন। সাড়ে ৮টার দিকে শোনেন অফিসে গুলি হয়েছে।

কারা এবং কেন গুলি করেছে সে বিষয়ে ধারণা দিতে পারেননি আবু হানিফ। তবে গুলিবিদ্ধ ম্যানেজার মোস্তাককে উদ্ৃব্দত করে তিনি বলেন, দুর্বৃত্তরা অফিসের ড্রয়ার থেকে লক্ষাধিক টাকা নিয়ে গেছে। তাদের ব্যবসায়িক শত্রু ছিল না। তবে দুই মাস আগে এক এজেন্টের সঙ্গে ঝামেলা হয়েছিল। ওই ঘটনায় তারা উত্তরা পূর্ব থানায় জিডি করেছিলেন।

পুলিশের গুলশান বিভাগের ডিসি মোশতাক আহমেদ জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। দুর্বৃত্তরা অফিস থেকে খুব বেশি কিছু নেয়নি। সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিট আলামত সংগ্রহ করেছে।

ডিবি (উত্তর) এডিসি মো. শাহজাহান জানান, থানা পুলিশের পাশাপাশি ডিবি ঘটনার ছায়াতদন্ত করছে। প্রযুক্তিগত তদন্ত করে দুর্বৃত্তদের শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

স্বজনরা জানান, দুই দশক ধরে সিদ্দিক হোসেন জনশক্তি রফতানির ব্যবসা করছেন। তার প্রতিষ্ঠান থেকে ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন দেশে জনশক্তি রফতানি করা হয়। বনানীর অফিসটি সাধারণত রাত ৯টা পর্যন্ত খোলা থাকে। তিনি স্ত্রী, ছেলে মেহেদী হাসান (১২) ও মেয়ে সাবিহা সিদ্দিককে (৯) নিয়ে উত্তরা চার নম্বর সেক্টরের একটি বাসায় থাকতেন। সম্প্রতি বড় মেয়ে সাবরিনা সুলতানার বিয়ে হয়েছে। জামাতা আবু হানিফ প্রতিষ্ঠানটির হিসাব শাখা দেখেন। গতকাল তিনি অফিসে গেলেও বিকেলে বের হয়ে যান। নিহত সিদ্দিকের গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে।

ঘটনাস্থলে জনশক্তি রফতানিকারক প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন বায়রার মহাসচিব রুহুল আমিন স্বপন সমকালকে বলেন, সিদ্দিক হোসেন দীর্ঘদিন ধরে সুনামের সঙ্গে ব্যবসা করছিলেন। কারা এবং কেন তাকে অফিসে ঢুকে গুলি করে হত্যা করল তা বোঝা যাচ্ছে না।







আন্দোলনে বিএনপি শরিকদের নজর আসনে

আন্দোলনে বিএনপি শরিকদের নজর আসনে

খালেদা জিয়া কারাগারে; নির্বাচনের চেয়ে তার মুক্তি বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে ...

এখনই ফয়সালা চায় ১৪ দলের শরিকরা

এখনই ফয়সালা চায় ১৪ দলের শরিকরা

আগামী সংসদ নির্বাচনের আসন বণ্টনের দাবিতে এখনই সোচ্চার আওয়ামী লীগ ...

নকশা পরিবর্তনে কমেছে সক্ষমতা

নকশা পরিবর্তনে কমেছে সক্ষমতা

দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবল ট্রান্সমিশন লিংক স্থাপনে মূল নকশার পরিবর্তন করে ...

শিক্ষা ক্যাডারে সাড়ে ১২ হাজার নতুন পদ

শিক্ষা ক্যাডারে সাড়ে ১২ হাজার নতুন পদ

নতুন সাড়ে ১২ হাজার পদ সৃষ্টি হচ্ছে বিসিএস (সাধারণ শিক্ষা) ...

 সক্রিয় আওয়ামী লীগ ও জাপা, নির্ভার বিএনপি

সক্রিয় আওয়ামী লীগ ও জাপা, নির্ভার বিএনপি

লালমনিরহাট-৩ (সদর) আসনে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী সরকারি দল আওয়ামী লীগ। ...

যেমন ভিড় তেমন বিক্রি

যেমন ভিড় তেমন বিক্রি

দুপুর দেড়টা :  সবেমাত্র শেষ হয়েছে শিশুপ্রহর, বেরিয়ে আসছে সবাই, ...

বিয়েবাড়ির ধুমধামে নিমেষেই বিষাদ

বিয়েবাড়ির ধুমধামে নিমেষেই বিষাদ

বিয়েবাড়িতে ধুমধাম আনন্দ-উল্লাস চলছে, গরু-খাসি জবাই করে চলছে রান্নাবান্না। বিশাল ...

ছুটির বিকেলে নাতি-নাতনির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী

ছুটির বিকেলে নাতি-নাতনির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী

ব্যস্ততার মাঝে সামান্য সময় মিললে সেটুকুই পরিবারের সঙ্গে ভাগ করে ...