নজিরবিহীন ঘটনা

ভারতে প্রধান বিচারপতিকে চার বিচারপতির চ্যালেঞ্জ

প্রকাশ: ১৩ জানুয়ারি ২০১৮      

গৌতম লাহিড়ী, নয়াদিল্লি

ভারতে বিচার ব্যবস্থার ইতিহাসে নজিরবিহীন ঘটনা ঘটে গেল গতকাল শুক্রবার। সুপ্রিম কোর্টের চার বিচারপতি সংবাদ সম্মেলন ডেকে প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের বিরুদ্ধে কার্যত অনাস্থা প্রকাশ করলেন। প্রধান বিচারপতির কর্তৃত্ব চ্যালেঞ্জ করে তারা বলেছেন, যেভাবে তিনি আদালত চালাচ্ছেন তা ভারতের গণতন্ত্রকেই হুমকির মুখে ফেলে দেবে। এ ছাড়া বিচার বিভাগের দুর্নীতি নিয়েও মুখ খুলেছেন তারা।

গতকাল দিল্লিতে বিচারপতি জে চেলামেশ্বরের বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে বিচারপতি চেলামেশ্বর ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিচারপতি কুরিয়েন জোসেফ, বিচারপতি রঞ্জন গগৈ এবং বিচারপতি মদন লোকুর। এ চারজনই সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি।

সংবাদ সম্মেলনে তারা বলেছেন, প্রধান বিচারপতি তার মর্জিমাফিক বিভিন্ন বেঞ্চে মামলা পাঠাচ্ছেন। এমনকি জনগুরুত্বপূর্ণ অনেক মামলাও কনিষ্ঠ বিচারকদের বেঞ্চে দেওয়া হচ্ছে। এটি আদালতের নিয়ম-কানুনের লঙ্ঘন। আদালতে নিয়ম-কানুন মানা না হলে দেশে গণতন্ত্র টিকবে না।

ভারতের সুপ্রিম কোর্টের বিচারকরা গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন না। চারজন বিচারক যেভাবে সংবাদ সম্মেলন করে প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে তাদের অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন, তা নজিরবিহীন।

সুপ্রিম কোর্টের এই চার বিচারক একটি চিঠির কপিও বিতরণ করেছেন, যেটি তারা মাস দুয়েক আগে প্রধান বিচারপতিকে দিয়েছিলেন। চিঠিতে তারা বেশ কিছু বিচারিক নির্দেশের ব্যাপারে তাদের অসন্তোষের কথা জানিয়েছিলেন। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের কাছে এসব বিষয়ে বারবার তাদের উদ্বেগ তুলে ধরার পরও তিনি কর্ণপাত করেননি বলে অভিযোগ এই চার বিচারপতির। তারা বলেছেন, গতকাল সকালেও প্রধান বিচারপতির সঙ্গে তাদের আলোচনা হয়েছে, কিন্তু বিষয়গুলো তিনি আমলেই নেননি। এর পর জাতির সামনে হাজির হওয়া ছাড়া তাদের সামনে আর কোনো বিকল্প ছিল না।

তারা বলেছেন, যেসব মামলার ফল ভারতের রাষ্ট্র এবং প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর সুদূরপ্রসারী প্রভাব ফেলতে পারে বলে মনে হয়, প্রধান বিচারপতি সেসব মামলা বেছে বেছে তার পছন্দসই কিছু বেঞ্চে পাঠান। কোন কোন মামলা এভাবে প্রধান বিচারপতি তার পছন্দসই বেঞ্চে পাঠিয়েছেন সংবাদ সম্মেলনে তারা উল্লেখ করেননি। তবে ভারতে ব্যাপক জল্পনা রয়েছে যে, একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতির দুর্নীতির বিষয়টি এর একটি। গত বছরের আগস্টে এ ঘটনা নিয়ে তুমুল বিতর্ক দেখা দেয়। ওই ঘটনাটি সর্বোচ্চ আদালতের ভেতরকার টানাপড়েনকে প্রকাশ্যে নিয়ে আসে। এ ছাড়া বিচার বিভাগে দুর্নীতি এবং নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে অনেক দিন ধরেই চাপা অসন্তোষ চলছিল। দেশের শীর্ষ আদালতে প্রশাসনিক ক্ষেত্রে অনিয়ম চলছে- এ কথা জানিয়ে প্রধান বিচারপতিকে বোঝানোর চেষ্টা করেছিলেন বলে দাবি করেন বিচারপতিরা। সংবাদ সম্মেলনে জে চেলামেশ্বর বলেন, আদালতের প্রশাসনিক সম্পর্কে জানাতে প্রধান বিচারপতির সঙ্গে দেখা করেছিলেন। তাকে জানানো হয়েছিল কোনো কিছুই ঠিকঠাক চলছে না। এর একটা বিহিত দরকার। তবে দুর্ভাগ্য যে, তাদের সে চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। গণতন্ত্রের অস্তিত্ব নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করে তিনি বলেন, এখন জনগণই ঠিক করুক প্রধান বিচারপতিকে ইমপিচ করা উচিত কি-না।

গত নভেম্বরে মেডিকেল কলেজের স্বীকৃতি নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগে একটি মামলা দাখিল হয়। জনস্বার্থে এই মামলাটি হয় বর্তমান প্রধান বিচারপতি যখন ভুবনেশ্বর হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি ছিলেন। কিন্তু সেই মামলাটি প্রধান বিচারপতি ১০ নম্বর বেঞ্চের অপেক্ষাকৃত কনিষ্ঠ বিচারপতিকে নিষ্পত্তির দায়িত্ব দেন। এছাড়া বিচারপতি বিএইচ লোয়ার রহস্যজনক মৃত্যুকে কেন্দ্র করে জনস্বার্থে আরও একটি মামলা এক কনিষ্ঠ বিচারপতির বেঞ্চে দেওয়া হয়। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে সিবিআইর বিচারক লোয়ার মৃত্যু হয়। ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) সভাপতি অমিত শাহর বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলার শুনানি করছিল সিবিআই। শুনানি চলাকালেই 'হার্ট অ্যাটাকে' মারা যান বিচারপতি লোয়া। তার মৃত্যুর কয়েক সপ্তাহ পরেই অমিত শাহ বেকসুর খালাস পান। লোয়ার ওই মৃত্যুকে অস্বাভাবিক দাবি করেছে তার পরিবার। তাদের দাবি, বিজেপি নেতার পক্ষে রায় দিতে লোয়াকে একশ' কোটি রুপি ঘুষের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। এই মৃত্যু নিয়েই সুপ্রিম কোর্ট নিরপেক্ষ তদন্ত করছিল। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সাংবাদিকরা যখন প্রশ্ন করছিলেন- 'আপনাদের ক্ষোভের কারণ কি বিচারপতি লোয়ার মামলাকে কেন্দ্র করে?' তখন বিচারপতি রঞ্জন গগৈ বলেন, 'হ্যাঁ তাই।'

এদিকে ভারতের বিচার বিভাগকে ঘিরে তৈরি এই অভূতপূর্ব সংকটের পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আইনমন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদ এবং অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসেন। জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী উদ্ভূত পরিস্থিতিতে জ্যেষ্ঠ এই দুই মন্ত্রীকে কোনো মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দেন।







জালিয়াতি করে দখল-বিক্রি কমরেড ফরহাদের বাড়ি

জালিয়াতি করে দখল-বিক্রি কমরেড ফরহাদের বাড়ি

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির প্রয়াত সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ফরহাদের বাড়ি জালিয়াতির ...

আওয়ামী লীগে তৎপর অর্ধশত তরুণ আইনজীবী

আওয়ামী লীগে তৎপর অর্ধশত তরুণ আইনজীবী

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে নিজ নিজ এলাকায় গণসংযোগ ...

সেই বিপাশার বিয়ে শুক্রবার

সেই বিপাশার বিয়ে শুক্রবার

তখন কতই বা বয়স ছিল তার— ৮ কিংবা ৯ বছর। উদ্ভ্রান্তের ...

 বিদায় চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি!

বিদায় চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি!

এ যেন বিশ্বকাপের মেলা! ২০১৯ ও ২০২০ সালের পর ২০২১ ...

পিরোজপুরে স্ত্রী ও শ্বশুরকে কুপিয়ে হত্যা

পিরোজপুরে স্ত্রী ও শ্বশুরকে কুপিয়ে হত্যা

পিরোজপুরে ইন্দুরকানি উপজেলার পাড়েরহাটে স্ত্রী ও শ্বশুরকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে আপন ...

রোহিঙ্গা শিবিরে দোকান নিয়ে সংঘর্ষে নারী নিহত

রোহিঙ্গা শিবিরে দোকান নিয়ে সংঘর্ষে নারী নিহত

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় নিবন্ধিত রোহিঙ্গা শিবিরে দোকান নির্মাণকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে ...

মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা বাড়াবে ইইউ

মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা বাড়াবে ইইউ

রোহিঙ্গা নির্যাতনের জেরে মিয়ানমারের ওপর আরোপিত অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা আরও এক ...

নারীরা এখন আর পিছিয়ে নেই: স্পিকার

নারীরা এখন আর পিছিয়ে নেই: স্পিকার

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, নারীরা এখন আর ...