এলএনজির পুরো সুফল মিলছে না

প্রকাশ: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

হাসনাইন ইমতিয়াজ

পাইপলাইন সীমাবদ্ধতার কারণে আমদানি করা এলএনজির পুরো সুফল মিলছে না। বর্তমানে প্রতিদিন আমদানি করা ৫০ কোটি ঘনফুট গ্যাস বিতরণের কথা থাকলেও সেখানে সরবরাহ করা হচ্ছে মাত্র ১০ কোটি ঘনফুট। এর মধ্যে আজ রোববার আসছে এলএনজির দ্বিতীয় চালান।

সূত্র বলছে, সব প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও পাইপলাইন বা সরবরাহ লাইনের সীমাবদ্ধতার কারণে পূর্ণমাত্রায় তরল প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) সরবরাহ করা সম্ভব হচ্ছে না। ফলে গ্যাসের ঘাটতিও তেমন একটা কমছে না। বহু শিল্পমালিক গ্যাস সংযোগের প্রতীক্ষায় আছেন। তাদের প্রতীক্ষার প্রহর দীর্ঘ হচ্ছে। চুক্তি অনুসারে এখন থেকে প্রতি মাসে সর্বোচ্চ তিনটি পর্যন্ত এলএনজিবাহী জাহাজ বাংলাদেশে আসবে। কাতারের কোম্পানি রাস গ্যাস এটা সরবরাহ করবে। এ জন্য এলএনজি ব্যবহার বাড়ানোর জন্য দ্রুত উদ্যোগ নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

সূত্র জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগরে স্থাপিত ভাসমান এলএনজি রিগ্যাসিফিকেশন টার্মিনাল (এফএসআরইউ) থেকে দৈনিক ৫০ কোটি ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ সম্ভব। কিন্তু পাইপলাইনের সীমাবদ্ধতায় দৈনিক ১০ কোটি ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছে। ৪০ কোটি ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা সম্ভব হচ্ছে না। দেশে গ্যাসের দৈনিক চাহিদা ৪১০ কোটি ঘনফুট। পেট্রোবাংলা প্রতিদিন সরবরাহ করতে পারে ২৭০ কোটি ঘনফুট। ফলে দৈনিক ঘাটতি ১৪০ কোটি ঘনফুট।

বিতরণ কোম্পানিগুলো সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রাম অঞ্চলে বর্তমানে সর্বোচ্চ ২৫ কোটি ঘনফুট গ্যাসের ঘাটতি রয়েছে, যা এলএনজি দিয়ে পূরণ করা সম্ভব। তবে বিতরণ লাইনের সীমাবদ্ধতার কারণে ১০ কোটি ঘনফুটের বেশি নিতে পারছে না। বাকি এলএনজি চট্টগ্রামের বাইরে পাঠাতে হবে। ঢাকাসহ দেশের অন্য অঞ্চলে এলএনজি নিতে আনোয়ারা-ফৌজদারহাট সঞ্চালন পাইপলাইন নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়। এই পাইপলাইন স্থাপনের কাজ চলতি বছরের জুনে সম্পন্ন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এখনও তা শেষ হয়নি। ফলে সক্ষমতা সত্ত্বেও পূর্ণমাত্রায় এলএনজি সরবরাহ সম্ভব হচ্ছে না। দেশের জ্বালানি ঘাটতিও কমছে না। শিল্পে ও বিদ্যুৎকেন্দ্রে পর্যাপ্ত গ্যাস মিলছে না। ফলে উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে।

রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাস কোম্পানির (আরপিজিসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. কামরুজ্জামান সমকালকে বলেন, তারা প্রতিদিন ৫০ কোটি ঘনফুট করেই এলএনজি গ্রিডে দিতে সক্ষম। কিন্তু পাইপলাইনের কারণে তা আপাতত সম্ভব হচ্ছে না। তিনি জানান, চুক্তি অনুসারে চলতি বছর কাতার থেকে ১৫টি জাহাজ এলএনজি নিয়ে বাংলাদেশে আসার কথা রয়েছে। রোববার এক লাখ ৪০ হাজার ঘনমিটার এলএনজি নিয়ে দ্বিতীয় জাহাজটি আসছে। সক্ষমতা অনুসারে গ্যাস সরবরাহ সম্ভব না হলে আমদানির পরিমাণ কমিয়ে আনতে হবে। তিনি জানান, তবে আগামী সপ্তাহ থেকে এলএনজি সরবরাহ বাড়তে পারে। এ মাসের মধ্যে ৩০ কোটি ঘনফুটে উন্নীত হতে পারে।

দেশের পাইপলাইনে সরবরাহ করা দেশীয় প্রাকৃতিক গ্যাস ও এলএনজি দুটোই একই পদার্থ। সরবরাহের সুবিধার জন্য প্রাকৃতিক গ্যাসকে তরল করা হয়, এটি এলএনজি নামে পরিচিত। মাইনাস ১৬২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় প্রাকৃতিক গ্যাসকে তরল করে এলএনজিতে রূপান্তর করা হয়। এই তরল গ্যাস বিশেষভাবে নির্মিত জাহাজে করে আমদানি করা হয়। পরে উচ্চ তাপে আবার তা প্রাকৃতিক গ্যাসে পরিণত করে পাইপলাইনে সরবরাহ করা হয়। তখন এটিকে 'রিগ্যাসিফাইড এলএনজি' বা আরএলএনজি বলে। এলএনজিকে আবার গ্যাসে রূপান্তর করতে দুই ধরনের টার্মিনাল রয়েছে। একটি সমুদ্রে ভাসমান (এফএসআরইউ) এবং অন্যটি স্থলভিত্তিক টার্মিনাল।

গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানির (জিটিসিএল) একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, চট্টগ্রাম অঞ্চলের রিং-মেইন পাইপলাইনের দৈনিক সরবরাহ ক্ষমতা ৩৫ কোটি ঘনফুট। তাই চাইলেও পুরো এলএনজি এ অঞ্চলে দেওয়া সম্ভব নয়। চট্টগ্রামের বাইরে এই গ্যাস নিতে আনোয়ারা থেকে ফৌজদারহাট পর্যন্ত পাইপলাইন নির্মাণ শেষ করতে হবে। ৪২ ইঞ্চি ব্যাসের পাইপলাইনটিকে কর্ণফুলী নদী অতিক্রম (রিভার ক্রসিং) করতে হবে। দু'পাশের পাইপ বসানো শেষ হলেও নদীতে পাইপ বসানোর ক্ষেত্রে জটিলতা দেখা দিয়েছে। কয়েকবার রিভার ক্রসিংয়ের উদ্যোগ ব্যর্থ হয়েছে। এই লাইন চালু না হওয়া পর্যন্ত এলএনজি সরবরাহ আপাতত চট্টগ্রামের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখতে হবে। ৩০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এই পাইপলাইন প্রতিদিন ১২০ কোটি ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করতে পারবে।

জানতে চাইলে জিটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী মো. আল মামুন বলেন, তারা আশা করছেন, আগামী মাসেই রিভার ক্রসিংয়ের কাজ শেষ হবে। তখন পূর্ণমাত্রায় এলএনজি সরবরাহ সম্ভব হবে। তিনি আরও জানান, চট্টগ্রামে এলএনজি দেওয়ায় জাতীয় গ্রিড থেকে গ্যাস সরবরাহ কমিয়ে ওই গ্যাস দেশের অন্য এলাকায় দেওয়া হচ্ছে। ধীরে ধীরে এর পরিমাণ বাড়বে। এতে জ্বালানি সংকট কমে আসবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ ছাড়া আনোয়ারা থেকে শিকলবাহা বিদ্যুৎকেন্দ্র এবং সিইউএফএল ও কাফকো সারকারখানায় সরাসরি এলএনজি সরবরাহের জন্যও পাইপলাইন নির্মাণ করা হচ্ছে। এটি হলে এসব প্রতিষ্ঠানে জাতীয় গ্রিড থেকে গ্যাস দেওয়া লাগবে না। এ তিনটি প্রতিষ্ঠানে গ্যাসের চাহিদা একত্রে দৈনিক ১৫ কোটি ঘনফুট।

আগে চট্টগ্রামে জাতীয় গ্রিড থেকে দৈনিক ২০ থেকে ২২ কোটি ঘনফুট গ্যাস দেওয়া হতো। বর্তমানে ১০ কোটি ঘনফুট এলএনজিসহ দৈনিক ২৬ কোটি ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছে। অর্থাৎ এলএনজি আসার পর জাতীয় গ্রিড থেকে প্রায় পাঁচ কোটি ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ কমিয়ে দেওয়া হয়েছে চট্টগ্রামে।

এলএনজি থেকে পাওয়া গ্যাস জাতীয় গ্রিডে নিতে মহেশখালী থেকে চট্টগ্রামের আনোয়ারা পর্যন্ত ৯১ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের ৩০ ইঞ্চি ব্যাসের পাইপলাইন স্থাপন করা হয়েছে। সাগরে সামিট গ্রুপ আরেকটি ভাসমান টার্মিনাল বসাচ্ছে। আগামী এপ্রিলের মধ্যে এটি সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে। তখন দৈনিক আরও ৫০ কোটি ঘনফুট গাস সরবরাহ করা সম্ভব হবে। বাড়তি গ্যাস সরবরাহের জন্য বর্তমান পাইপলাইনের সমান্তরাল ৪২ ইঞ্চি ব্যাসের আরেকটি পাইপলাইন (মহেশখালী থেকে আনোয়ারা) স্থাপনের কাজ শুরু হয়েছে গত বছর। ৭৯ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এই পাইপলাইন স্থাপনে ব্যয় ধরা হয় এক হাজার ১০৯ কোটি টাকা। এখন পর্যন্ত বাস্তবায়ন অগ্রগতি ১৫ শতাংশ।

শিল্পে নতুন গ্যাস সংযোগ :এলএনজি আমদানি শুরুর পর সরকার সংকুচিত শিল্পকারখানার গ্যাস সংযোগ আবার উন্মুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়। ফলে গ্যাস বিতরণ কোম্পানিগুলোতে এ-সংক্রান্ত আবেদন বাড়ছে। তবে সরকার পূর্বের ঝুলে থাকা প্রায় দুই হাজার শিল্প গ্যাস সংযোগ আগে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে।

তিতাস গ্যাস কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মীর মসিউর রহমান বলেন, যেসব বিদ্যুৎ ও শিল্পকারখানার অনুকূলে এরই মধ্যে ডিমান্ড নোট ইস্যু করা হয়েছে, প্রথমে ধাপে ধাপে তারা সংযোগ পাবেন। পরে নতুন আবেদনকারীদের বিষয়টি বিবেচনায় নেওয়া হবে। পেট্রোবাংলার এক কর্মকর্তা জানান, সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে নতুন আবেদনকারী শিল্পকারখানায় সংযোগ দিতে সাত থেকে আট মাস সময় লাগবে।

অনুমোদিত নতুন সংযোগ পাবে শিল্প, ক্যাপটিভ, সিএনজি স্টেশন ও বিদ্যুৎকেন্দ্র। এর মধ্যে তিতাস গ্যাস কোম্পানি ৪৭৫টি, কর্ণফুলী ৬৭৯টি ও পশ্চিমাঞ্চল ৯৭৪টি, জালালাবাদ ২১টি, বাখরাবাদ ৫৪টি ও সুন্দরবন কোম্পানি দুটি সংযোগ দেবে।

দেশের ভয়াবহ জ্বালানি ঘাটতি মেটাতে ২০১০ সালে এলএনজি আমদানির উদ্যোগ নেওয়া হয়। দীর্ঘ আট বছরের প্রচেষ্টার পর গত ১৮ আগস্ট থেকে এলএনজি সরবরাহ শুরু হয়।

যশোর ও বান্দরবানে ‌'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত ২

যশোর ও বান্দরবানে ‌'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত ২

যশোর ও বান্দরবানে পৃথক ‌'বন্দুকযুদ্ধে' দুইজন নিহত হয়েছেন। শুক্রবার গভীর ...

নাটোরে নির্মাণাধীন ড্রেনে আবারও মিললো গ্রেনেড

নাটোরে নির্মাণাধীন ড্রেনে আবারও মিললো গ্রেনেড

নাটোর শহরে নির্মাণাধীন ড্রেন থেকে আরও একটি গ্রেনেড উদ্ধার করা ...

ঢাকায় সাপের দংশনে প্রাণ গেল কলেজছাত্রের

ঢাকায় সাপের দংশনে প্রাণ গেল কলেজছাত্রের

ঢাকার ধামরাইয়ের রামদাইল গ্রামে বিষাক্ত সাপের দংশনে দেলোয়ার হোসেন সোহাগ ...

আওয়ামী লীগের নির্বাচনী সড়কযাত্রা শুরু

আওয়ামী লীগের নির্বাচনী সড়কযাত্রা শুরু

সড়কযাত্রার মাধ্যমে দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের জেলাগুলোতে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করলো আওয়ামী ...

শেষের রোমাঞ্চে হার আফগানদের

শেষের রোমাঞ্চে হার আফগানদের

এখন পর্যন্ত এশিয়া কাপের সবচেয়ে রোমাঞ্চকর ম্যাচ উপহার দিয়েছে পাকিস্তান-আফগানিস্তান। ...

ভারতের কাছেও বড় হার বাংলাদেশের

ভারতের কাছেও বড় হার বাংলাদেশের

পরপর দুই ম্যাচে বড় হারের স্বাদ পেয়েছে বাংলাদেশ। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ...

বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা

বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা

বরিশালের উজিরপুর উপজেলার জল্লাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টুকে ...

দুবাই যাচ্ছেন সৌম্য-ইমরুল

দুবাই যাচ্ছেন সৌম্য-ইমরুল

ড্রেসিংরুম থেকেই জরুরি তলব ঢাকায়-ওপেনিংয়ে কিছুই হচ্ছে না। সৌম্য সরকারকে ...