রফতানি পণ্যে ন্যায্যমূল্য নিশ্চিতে জোর দেবে বাংলাদেশ

প্রকাশ: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

সমকাল প্রতিবেদক

যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে রফতানি পণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিতের জোর দাবি নিয়ে এবারের ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট কো-অপারেশন ফোরাম অ্যাগ্রিমেন্ট বা টিকফা বৈঠকে বসছে বাংলাদেশ। আজ দেশটির রাজধানী ওয়াশিংটনে দু'দিনের এ বৈঠক শুরু হচ্ছে। এটি দুই দেশের বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সহযোগিতা কাউন্সিলের চতুর্থ বৈঠক। বাণিজ্য সচিব শুভাশীষ বসুর নেতৃত্বে ১০ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল এ বৈঠকে অংশ নিচ্ছে।

২০১৩ সালের নভেম্বরে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে টিকফা চুক্তি হয়। মূলত দুই দেশের বাণিজ্য বাড়ানো ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক শক্তিশালী করার লক্ষ্যে এ চুক্তি হয়। এর পর ঢাকায় দু'বার ও যুক্তরাষ্ট্রে একবার টিকফা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সর্বশেষ গত বছর মে মাসে ঢাকায় তৃতীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, এবারের বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বাড়ানোর ওপর সবচেয়ে বেশি জোর দেওয়া হচ্ছে। এ জন্য যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে বাংলাদেশের তৈরি পোশাকসহ অন্যান্য পণ্যের ন্যায্যমূল্য নিয়ে আলোচনা হবে। পাশাপাশি নৈতিক কেনাবেচার চর্চা নিয়েও আলোচনা করবেন প্রতিনিধিরা। এ ছাড়া অর্থনৈতিক অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানির বিনিয়োগের বিষয়ে প্রস্তাব দেবে প্রতিনিধি দল। প্রযুক্তি হস্তান্তর ও বাণিজ্যবিষয়ক সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং বাণিজ্য সহযোগিতা চুক্তি (টিএফএ) বাস্তবায়ন পদ্ধতি নিয়েও আলোচনা হবে।

এর আগের বৈঠকগুলোতে দেশটির বাজারে অগ্রাধিকারমূলক বাজার প্রবেশাধিকার (জিএসপি) সুবিধা নিয়ে আলোচনা হলেও এবারের বৈঠকে বাংলাদেশের এ বিষয়ে বিশেষ আগ্রহ নেই। কারণ সেখানে প্রধান রফতানি পণ্য তৈরি পোশাক জিএসপি সুবিধা পায় না। কিন্তু দেশটিতে তৈরি পোশাক রফতানি নিয়মিত বাড়ছে। সর্বশেষ অর্থবছরে বাংলাদেশ থেকে ৫৯৮ কোটি ডলার রফতানি হয়েছে। এর মধ্যে তৈরি পোশাক রফতানি হয়েছে ৫৩৫ কোটি ডলারের। এবারের আলোচনায়ও বাংলাদেশি নার্স ও মিডওয়াইফরা যাতে যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে কাজ করতে পারেন, সে জন্য নিয়ম-কানুন সহজ ও শিথিল করার বিষয়ে প্রস্তাব দেওয়া হবে।

সংশ্নিষ্টরা জানান, যুক্তরাষ্ট্রও দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য সম্পর্ক বাড়াতে বাংলাদেশের বাজারে প্রবেশাধিকারে বিশেষ সুবিধা চায়। পাশাপাশি এখানকার বাণিজ্য ও বিনিয়োগ পরিবেশের উন্নয়ন চায়। সরকারি ক্রয় এবং শ্রম অধিকার নিয়েও আলোচনা করবে তারা। সূত্র জানায়, বাংলাদেশের বীমা ও তুলার বাজার নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ আগ্রহ রয়েছে। ১৬ কোটি মানুষের দেশের বীমার বাজারটি ধরতে চায় তারা। পাশাপাশি এ দেশের বস্ত্র খাতের প্রধান কাঁচামাল তুলার বাজার ধরতে চায় তারা। তুলার ক্ষেত্রে পুরোপুরি আমদানি নির্ভর বাংলাদেশ। ভারত ও মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে এ দেশের ব্যবসায়ীরা তুলা আমদানি করে। বছরে ৫০ থেকে ৫৫ লাখ বেল তুলা আমদানি হয়। বছরে এ খাতে আমদানি ৫ লাখ বেল করে বাড়ছে। এ বাজারে অন্তর্ভুক্ত হতে চায় যুক্তরাষ্ট্র। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সূত্রগুলো বলছে, আলোচ্যসূচিতে বাংলাদেশের তুলনায় তাদের বিষয় বেশি।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনা এখন আনুষ্ঠানিকতা মাত্র। কারণ বাংলাদেশ পোশাক কারখানার কর্মপরিবেশ ও শ্রম অধিকার বিষয়ে সব শর্ত পূরণ করেছে। ব্যবসা-বাণিজ্যের অনেক কাজ সহজ হয়েছে। এরপরও তারা সন্তুষ্ট হচ্ছে না। যুক্তরাষ্ট্র জিএসপি দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়নি। এমনকি পণ্যের ন্যায্যমূল্য দেওয়ার ক্ষেত্রেও তারা ইতিবাচক কোনো উদ্যোগ নিচ্ছে না। তবে তারা বাংলাদেশের বাজারে বিশেষ সুবিধা চাচ্ছে। ফলে আলোচনা থেকে ইতিবাচক ফলাফল পাওয়াটা নির্ভর করছে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর।
যশোরের বিএনপি নেতা আবু ঢাকায় 'অপহৃত'

যশোরের বিএনপি নেতা আবু ঢাকায় 'অপহৃত'

যশোর জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও কেশবপুর উপজেলার মজিদপুর ইউনিয়ন পরিষদ ...

‘থ্যাঙ্ক ইউ পিএম’ প্রচারে সমস্যা নেই: ইসি

‘থ্যাঙ্ক ইউ পিএম’ প্রচারে সমস্যা নেই: ইসি

প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে নির্মিত ‘থ্যাঙ্ক ইউ পিএম’ বিজ্ঞাপন হিসেবে টেলিভিশনে ...

সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য ইসির নির্লিপ্ত থাকার সুযোগ নেই: সুজন

সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য ইসির নির্লিপ্ত থাকার সুযোগ নেই: সুজন

দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য জাতীয় সংসদ নির্বাচন করতে ...

দেশে হঠাৎ বন্ধ স্কাইপি

দেশে হঠাৎ বন্ধ স্কাইপি

দেশে হঠাৎ করে সোমবার বিকেল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম স্কাইপি ...

জেনে-শুনে মন্তব্য করা উচিত: দুদক চেয়ারম্যান

জেনে-শুনে মন্তব্য করা উচিত: দুদক চেয়ারম্যান

'তদন্ত করলে দুদকেও দুর্নীতি বেরুবে'- জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যানের ওই ...

আগাম প্রচার সামগ্রী সরানো না হলে জরিমানা: ইসি

আগাম প্রচার সামগ্রী সরানো না হলে জরিমানা: ইসি

জাতীয় নির্বাচন উপলক্ষে আগাম প্রচার সামগ্রী যারা সরাননি, তাদের জরিমানা ...

পুরুষের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠার দাবি

পুরুষের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠার দাবি

'বৈষম্য নয় পুরুষের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠিত হোক' প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ...

উচ্চশিক্ষায় নতুন কারিকুলাম প্রণয়ন করবে ইউজিসি

উচ্চশিক্ষায় নতুন কারিকুলাম প্রণয়ন করবে ইউজিসি

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) উচ্চশিক্ষায় সক্ষমতা বৃদ্ধি, দক্ষ স্নাতক ...