ছাত্রলীগের সংঘর্ষের পর বন্ধ পাবনা মেডিকেল

প্রকাশ: ১৩ জানুয়ারি ২০১৮      

পাবনা অফিস

পাবনা মেডিকেল কলেজে (পামেক) ছাত্রলীগের দু'গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে মেডিকেল কলেজ। গতকাল শুক্রবার বেলা ২টার মধ্যে ছাত্রছাত্রীদের হোস্টেল ত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়। ক্যাম্পাসে আধিপত্য বিস্তার ও সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্দ্বকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দু'পক্ষের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয় বলে জানা গেছে।

পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে ক্যাম্পাসে তিন দফায় সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এতে কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবু তোরাব মিম, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক অদ্বিতীয় দেসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে আরও রয়েছে বঙ্গবন্ধু হলের সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান, উপ-যুগ্ম সম্পাদক জয়দেব কুমার সূত্রধর, সদস্য নির্ঝর ও সাগর আহম্মেদ। তাদের পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, পামেক ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি মাহফুজ নয়ন মেডিসিন ক্লাব নিয়ন্ত্রণ করেন। আর সাধারণ সম্পাদক অদ্বিতীয় দে নিয়ন্ত্রণ করেন রোটারি ক্লাব। তাদের দু'জনের মধ্যে আগে থেকেই আধিপত্য বিস্তার ও চাঁদার ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দ্বন্দ্ব চলছিল। বৃহস্পতিবার নতুন শিক্ষার্থীদের বরণ করাকে কেন্দ্র করে তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

তবে সংঘর্ষের ব্যাপারে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য দিয়েছেন নয়ন ও অদ্বিতীয়। নয়ন বলেন, 'কিছু বহিরাগত সন্ত্রাসীকে সঙ্গে নিয়ে অদ্বিতীয় ও তার লোকজন আমাদের শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করে। এর প্রতিবাদ জানালে আমাদের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ হয়।'

আর অদ্বিতীয়র দাবি, 'তারা নতুন শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পরিচিতিমূলক সভা করার সময় কিছু জুনিয়র শিক্ষার্থী সিনিয়র ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করছিল। আমরা এর প্রতিবাদ করলে তারা সশস্ত্র হামলা চালায় আমাদের ওপর। এতে আমাদের সিনিয়র ভাইসহ সাত-আটজন আহত হয়।'

তবে দু'জনের কেউই হামলাকারী ও আহতদের নাম-পরিচয় বলতে পারেননি।

পাবনা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ মো. রিয়াজুল হক রেজা সমকালকে বলেন, 'তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে ছাত্ররা ক্যাম্পাসের পরিবেশ নষ্ট করবে, এটা মেনে নেওয়া যায় না। আমরা ঘটনা তদন্ত করছি, যারাই এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত, তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।'

মেডিসিন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক আবু মো. শাফিকুল হাসানকে প্রধান করে ইতিমধ্যেই তিন সদস্যের একটি তদন্ত দল গঠন করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

পাবনা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শিবলী সাদিক জানান, ঘটনার পরপরই উভয় গ্রুপকে শান্ত থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ছাত্রলীগ

বিষয়টি অনুসন্ধান করে দোষীদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেবে।

পাবনা সদর থানার ওসি মো. আব্দুর রাজ্জাক জানান, রাতভর পাবনা মেডিকেল কলেজে ছাত্রলীগের দু'পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে বেশ কয়েকজনকে আহত অবস্থায় পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। তিনি জানান, ক্যাম্পাসহ হাসপাতাল চত্বরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি বর্তমানে নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

পরবর্তী খবর পড়ুন : জমজমাট বাণিজ্য মেলা

আতাউরকে নিয়ে বিব্রত বিএনপি

আতাউরকে নিয়ে বিব্রত বিএনপি

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএন-সিসি) নির্বাচন স্থগিতাদেশ দেওয়ার রিট আবেদনকারী ...

এত অস্ত্র বৈধ নাকি অবৈধ

এত অস্ত্র বৈধ নাকি অবৈধ

পরিস্থিতি উত্তপ্ত হতে না হতেই বৈধ-অবৈধ অস্ত্র দেখা যাচ্ছে নারায়ণগঞ্জের ...

শান্তি চায় নাগরিক সমাজ

শান্তি চায় নাগরিক সমাজ

নারায়ণগঞ্জকে যারা সন্ত্রাসের জনপদ হিসেবে পরিচিত করে তুলেছে, মঙ্গলবারের ঘটনাও ...

এই 'অভিজ্ঞতা' দিয়ে কী করবে চট্টগ্রাম বন্দর

এই 'অভিজ্ঞতা' দিয়ে কী করবে চট্টগ্রাম বন্দর

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম খালেদ ইকবালকে বদলি ...

আওয়ামী লীগ-বিএনপি বিভেদে সুযোগ নিতে চায় জাপা

আওয়ামী লীগ-বিএনপি বিভেদে সুযোগ নিতে চায় জাপা

নৌকার আসন হিসেবে পরিচিত হলেও অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে পিরোজপুর-৩ (মঠবাড়িয়া) ...

 'মানুষ বিপদে পড়ার ভয়ে প্রতিবাদ করছে না'

'মানুষ বিপদে পড়ার ভয়ে প্রতিবাদ করছে না'

ক্রমশ মানুষ কথা বলা বন্ধ করে দিচ্ছে। প্রতিবাদ করছে না ...

ভাড়া বিমানে খাবার পৌঁছালো রেস্টুরেন্ট

ভাড়া বিমানে খাবার পৌঁছালো রেস্টুরেন্ট

আবাসস্থলের আশেপাশে পছন্দের রেস্টুরেন্টের কোনো শাখা না থাকায়, অথবা ডেলিভারি ...

পদ্মায় আরেকটি স্প্যান বসছে রোববার

পদ্মায় আরেকটি স্প্যান বসছে রোববার

পদ্মা সেতুতে আরেকটি স্প্যান বসানো হবে আগামী রোববার। সেতুর জাজিরা ...