জমজমাট বাণিজ্য মেলা

প্রকাশ: ১৩ জানুয়ারি ২০১৮      

সমকাল প্রতিবেদক

জেঁকে বসেছে শীত। কনকনে ঠাণ্ডায় বাইরে বেরুতে মন চায় না। ছুটির দিন। সারাদিন বাসায়ও আবদ্ধ থাকা যায় না। এমন দিনে বাণিজ্য মেলায় মানুষ আর মানুষ। গতকাল শুক্রবার মেলায় তিল ধারণের ঠাঁই ছিল না। দ্বিতীয় সপ্তাহের ছুটির দিনে কেনাকাটা ও ঘুরে বেড়াতে অনেকেই আসেন মেলায়। শীত উপেক্ষা করে এলেও মেলায় ঢুকতেই দীর্ঘ সময় লাইনে থাকতে হয় তাদের।

গতকাল মেলার গেটে টিকিট কাউন্টারে ছিল দীর্ঘ লাইন। শুধু গেটে নয়, বিজয় সরণি, আইডিবি ভবন, কলেজ গেট ও শ্যামলী শিশু মেলার কাছ থেকেই দীর্ঘ যানজটে পড়তে হয়েছে সবাইকে। গাড়ি থেকে নেমে হাঁটতেও ভিড় ঠেলতে হয়েছে অগণিত মানুষকে। এর পর মেলায় ঢুকতে রীতিমতো মানুষের জট। দর্শনার্থী ও ক্রেতার এমন বিপুল উপস্থিতি সামলাতে হিমশিম খেলেও বিক্রেতারা যারপর নাই খুশি।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে চলমান মাসব্যাপী এ আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় সাধারণত প্রতি শুক্রবারই লোকসমাগম হয় বেশি। গতকাল ছিল আরও বেশি। দুপুরের আগে থেকেই ভিড় বাড়তে শুরু করে। শিশু-কিশোর থেকে সব বয়সী মানুষই আসেন মেলায়। শুধু প্রবেশ মুখে নয়, ভেতরেও ছিল একই অবস্থা। ভিড় ঠেলেই এক স্টল থেকে আরেক স্টলে যেতে হয়েছে সবাইকে। পণ্য কিনতে ও দেখতেও কিংবা বিক্রেতার দৃষ্টি আকর্ষণেও অপেক্ষা করতে হয়েছে।

গতকাল কথা হয় একজন ক্রেতা আরিফুর রহমানের সঙ্গে। তিনি বলেন, ছুটির দিন তাই মেলা উপভোগ করার পাশাপাশি কিছু কেনাকাটার জন্য এসেছিলেন। এসেই দেখেন মানুষের দীর্ঘ লাইন। খামারবাড়ি খেজুরবাগান থেকে লাইনে হাঁটতে শুরু করেছেন। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র পর্যন্ত লাইনে হাঁটাহাঁটি চললেও এর পরে থেমে থেমে এগোতে হয়েছে মেলার টিকিট কাউন্টারের দিকে। টিকিট কেনার জন্য আধাঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন। এর পরে টিকিট নিয়ে মেলায় প্রবেশ করলেও স্টলগুলোতে ভিড় থাকায় পণ্য যাচাই-বাছাই করে দেখার সুযোগ কম

পেয়েছেন। তার মতো দীর্ঘ লাইনে অপেক্ষায় থাকা হাবিবুর রহমান ও রিজিয়া সুলতানা বলেন, মেলার চারপাশে গাড়ির যানজট লেগে ছিল। এগুলো দূর হলে দুর্ভোগ কম হতো। এ জন্য উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন। পাশাপাশি গেটের টিকিট কাউন্টার আরও বাড়ানো উচিত।

মেলার গেটের দায়িত্বে থাকা প্রতিষ্ঠান মীর ব্রাদার্সের স্বত্বাধিকারী মীর শহিদুল আলম সমকালকে বলেন, এবার শীত বেশি থাকায় মেলার শুরুর দিনগুলোতে তেমন দর্শনার্থী আসেনি। গত বছরের চেয়ে এবার কম এসেছেন। গত ১১ দিনে ২ লাখ ১৯ হাজার দর্শনার্থী এসেছেন। অবশ্য গত শুক্রবারে ভিড় ছিল। তিনি বলেন, আগের শুক্রবারের চেয়ে গতকালের ভিড় ছিল বেশি। এখন থেকে মেলায় ভিড় আরও বাড়বে। শেষ ১৫ দিন মেলা ভালো জমবে।

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় স্বাগতিক বাংলাদেশ ছাড়াও অংশ নিচ্ছে ভারত, পাকিস্তান, চীন, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ কোরিয়া, মালয়েশিয়া, ইরান, থাইল্যান্ড, তুরস্ক, সিঙ্গাপুর, ভুটান, মরিশাস, ভিয়েতনাম, মালদ্বীপ, নেপাল ও হংকং এ ১৭টি দেশের মোট ৪৩টি প্রতিষ্ঠান। মেলায় মোট ৫৮৯টি স্টল ও প্যাভিলিয়ন রয়েছে। এতে তৈরি পোশাক, হোম টেক্সটাইল, হস্তশিল্প পণ্য, পাট ও পাটজাত পণ্য, গৃহস্থালি সামগ্রী, চামড়াজাত পণ্য, সিরামিক পণ্য, প্লাস্টিক পণ্য, প্রসাধন সামগ্রী, খাদ্যপণ্য, ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী, জুয়েলারি ও অন্যান্য আসবাবপত্রসহ বিভিন্ন পণ্য রয়েছে। আছে নতুন-পুরাতন সব ধরনের পণ্য। এসব পণ্যের বেশিরভাগই বেচাকেনা হচ্ছে ছাড় দিয়ে। মেলায় অংশ নিয়েছে প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের বিভিন্ন পণ্যের ৩৪টি স্টল ও প্যাভিলিয়ন। এতে সব পণ্যে ১০ শতাংশ ছাড় রয়েছে। কিছু পণ্যে ৩৫ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দেওয়া হচ্ছে। অন্যান্য প্যাভিলয়নে বেশিরভাগ পণ্যে ৫ থেকে ৫০ শতাংশ ছাড় আছে। আবার কিছু পণ্য বিক্রি হচ্ছে এক দরে। তবে আছে নানা অফার। ভিশন ইলেকট্রনিক্সের পণ্য কেনাকাটায় মাসজুড়ে ২০ জন পাবেন রাশিয়া ভ্রমণের সুযোগ। কেনাকাটায় ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত মূল্য ছাড় রয়েছে। মেলায় ওয়ালটন দিচ্ছে প্রতিদিন ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত ক্যাশ ভাউচার। ভিশন ইলেকট্রনিক্স দিচ্ছে ক্যাশ ভাউচারের অফার। সনি র‌্যাংগস দিচ্ছে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত ছাড় ও আছে ভুটান ভ্রমণের সুযোগ। কুপনে র‌্যাফেল ড্রতে আছে গাড়িসহ ১৫০টি উপহার। এ ছাড়া সব ফার্নিচারে রয়েছে ৫ থেকে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত মূল্য ছাড়। তবে পোশাকে সবচেয়ে বেশি ছাড় রয়েছে। ব্র্যান্ডের পোশাক বিক্রি হচ্ছে ৫০ শতাংশ মূল্য ছাড়ে।

আকিজ গ্রুপের নতুন ব্র্যান্ড সানশাইন প্যাভিলিয়নে চলছে ধামাকা অফার। আকিজ ফুডের নতুন পণ্য সানশাইন আটা, ময়দা ও সুজির প্যাকেজ কিনে তাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিলে মিলছে একটি টি-শার্ট। এছাড়া মুখরোচক খাবারের রেসিপিও জেনে নিতে পারবেন ক্রেতা-দর্শনার্থীরা। মেলায় এসএমই ফাউন্ডেশনের প্যাভিলিয়নে পাওয়া যাচ্ছে হাতে তৈরি বাহারি নকশিকাঁথাসহ বিভিন্ন কারুকাজময় পণ্য। শীতের এই সময়ে মেলায় কম দামে মিলছে ব্লেজার ও স্যুট। ১ হাজার ৪০০ থেকে সাড়ে ৩ হাজার টাকায় ব্লেজার এবং ৫ হাজার টাকায় স্যুট বিক্রি হচ্ছে। মেলায় আসা ক্রেতা-দর্শনার্থীদের ফ্রি চিকিৎসাসেবা দিচ্ছে বিআরবি হাসপাতাল। মেলায় এসে কেউ অসুস্থ বা আহত হলে দ্রুত চিকিৎসা দিতেই এ ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। মেলায় এসে ফ্রি চিকিৎসা পেয়ে স্বস্তিতে দর্শনার্থীরাও। মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা থাকে। গত ১ জানুয়ারি শুরু হওয়া মাসব্যাপী এ মেলা চলবে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত।

পরবর্তী খবর পড়ুন : অপরাধ চাপা পড়ে 'সমঝোতা'য়

পাকিস্তানকে হোয়াইটওয়াশ করল নিউজিল্যান্ড

পাকিস্তানকে হোয়াইটওয়াশ করল নিউজিল্যান্ড

লজ্জা এড়াতে পারল না পাকিস্তান। পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের পঞ্চম ...

যোগসাজস করেই ইসি ডিএনসিসি নির্বাচন স্থগিত করিয়েছে: ফখরুল

যোগসাজস করেই ইসি ডিএনসিসি নির্বাচন স্থগিত করিয়েছে: ফখরুল

আইন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগসাজস করেই নির্বাচন কমিশন ঢাকা উত্তর সিটি ...

থানায় গরু জমা দিলেন মুসলিম নেতা

থানায় গরু জমা দিলেন মুসলিম নেতা

ভারতে গরু মাংস ভক্ষণ, গরু পালন নিয়ে নানা ধরণের সমস্যার ...

ওষুধ ছাড়াই মাত্র ৭২ ঘণ্টায় ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ

ওষুধ ছাড়াই মাত্র ৭২ ঘণ্টায় ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ

দীর্ঘদিন ধরে ওষুধ কিংবা ইনসুলিন নিয়েও ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে পারছেন ...

 মা হচ্ছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

মা হচ্ছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন (৩৭) ঘোষণা দিয়েছেন তিনি মা হতে ...

এখন কিছু বলবো না: ওবায়দুল কাদের

এখন কিছু বলবো না: ওবায়দুল কাদের

রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপতালে চিকিৎসাধীন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের (নাসিক) মেয়র ডা. ...

আইভীর ব্রেইনে হ্যামারেজ হয়েছে: চিকিৎসক

আইভীর ব্রেইনে হ্যামারেজ হয়েছে: চিকিৎসক

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী ঢাকায় ...

আপাতত পড়াশোনায় মন দেব: নুসরাত ফারিয়া

আপাতত পড়াশোনায় মন দেব: নুসরাত ফারিয়া

আপাতত আর কোনও কাজ নয়; পড়াশোনায় মনযোগ দেবেন অভিনেত্রী নুসরাত ...