মিয়ানমারের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার আওতা বাড়াবে ইইউ

প্রকাশ: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

সমকাল ডেস্ক

রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা ও নির্যাতন চালানোর অভিযোগে জাতিসংঘের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশন দেশটির সেনা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে যে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করেছে, তা নিয়ে জনমত বাড়ছে। এরই মধ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত বেশ কয়েকটি দেশ মিয়ানমারের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞার আওতা বাড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছে। দোষীদের বিচারে মিয়ানমারের ওপর আরও চাপ সৃষ্টি করতে দেশটির সেনাবাহিনী-সংশ্নিষ্ট শীর্ষ দুটি প্রতিষ্ঠানের ওপরও সমন্বিত নিষেধাজ্ঞা আসতে পারে। এতে পুরো মিয়ানমারের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি বিপর্যস্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। তাই ইইউভুক্ত কোনো কোনো দেশ বিকল্প নিষেধাজ্ঞার কথাও ভাবছে। সে ক্ষেত্রে শীর্ষ সেনা কর্মকর্তাদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা ও তাদের সম্পত্তি জব্দ করা হতে পারে। ইইউর তিন কূটনীতিকের বরাত দিয়ে গতকাল রোববার যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম পলিটিকো এক খবরে এ তথ্য জানিয়েছে। এদিকে রোহিঙ্গা নির্যাতনের ঘটনা দ্রুততার সঙ্গে তদন্ত করতে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতকে (আইসিসি) আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ। সংস্থার গণহত্যা প্রতিরোধ বিষয়ক বিশেষ  উপদেষ্টা আদমা দিয়েং আইসিসির কৌঁসুলি ফাতৌ বেনসুদার প্রতি এ আহ্বান জানান।

পলিটিকোর খবরে জানানো হয়, আজ সোমবার রোহিঙ্গাদের একটি প্রতিনিধি দল মিয়ানমারের সেনাবাহিনী সংশ্নিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর বাণিজ্যের ওপর সমন্বিত নিষেধাজ্ঞা আরোপে চাপ সৃষ্টি করতে ব্রাসেলস সফর করবে। তারা কয়েকটি ইউরোপীয় দেশ ও ইউরোপীয় কমিশনের কাছে সমন্বিত নিষেধাজ্ঞা আরোপের দাবি জানাবে। মিয়ানমারের সেনাবাহিনী সংশ্নিষ্ট শীর্ষ ওই ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান দুটি হলো দ্য ইউনিয়ন অব মিয়ানমার ইকোনমিক হোল্ডিংস লিমিটেড ও মিয়ানমার ইকোনমিক করপোরেশন। ইউরোপীয় কয়েকটি দেশ ও ইউরোপীয় কমিশন এ দুটি প্রতিষ্ঠানের ওপর বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে পারে। এ দুটি প্রতিষ্ঠানের অধীনে মিয়ানমারের রত্ন, তামা, স্বর্ণ, পোশাক, সিমেন্ট ও শীর্ষ টেলিকম কোম্পানি মাইটেলের ব্যবসা পরিচালিত হয়। তবে যুক্তরাজ্য, জার্মানি ও নেদারল্যান্ডসের মতো দেশ মনে করছে, এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ হলে পুরো মিয়ানমারের অর্থনীতি বিপর্যস্ত হতে পারে। তাই তারা এর বিকল্প বের করারও চেষ্টা করছে।

এদিকে আইসিসিকে দ্রুততার সঙ্গে রোহিঙ্গা নির্যাতনের ঘটনা তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের গণহত্যা প্রতিরোধ বিষয়ক বিশেষ উপদেষ্টা আদমা দিয়েং।

এর মধ্যেই এক বিবৃতিতে রোহিঙ্গাদের নিয়ে নিরপেক্ষ তদন্তের ব্যাপারে সহযোগিতা করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে মিয়ানমার। এটি তাদের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার বলেও মনে করছে দেশটি। তবে এ বিষয়ে এক বিবৃতিতে আদমা দিয়েং বলেছেন, মানবতাবিরোধী অপরাধের মতো বিভিন্ন অপরাধ করা ব্যক্তিদের

রক্ষার জন্য অভ্যন্তরীণ ব্যাপার বলে কিছু নেই।
নিউইয়র্কে ডাকাত ধরতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ বাংলাদেশি

নিউইয়র্কে ডাকাত ধরতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ বাংলাদেশি

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে ডাকাত ধরতে গিয়ে গুলি খেলেন বাংলাদেশি যুবক মোহাম্মদ ...

ফোর্বসের 'সেরা তরুণ বিজ্ঞানী' আরিফ

ফোর্বসের 'সেরা তরুণ বিজ্ঞানী' আরিফ

বিশ্বখ্যাত ফোর্বস ম্যাগাজিনের ২০১৯ সালের তালিকায় বিজ্ঞান ও গবেষণায় সেরা ...

যশোরের বিএনপি নেতা আবু ঢাকায় 'অপহৃত'

যশোরের বিএনপি নেতা আবু ঢাকায় 'অপহৃত'

যশোর জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও কেশবপুর উপজেলার মজিদপুর ইউনিয়ন পরিষদ ...

দেশে হঠাৎ বন্ধ স্কাইপি

দেশে হঠাৎ বন্ধ স্কাইপি

দেশে হঠাৎ করে সোমবার বিকেল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম স্কাইপি ...

জেনে-শুনে মন্তব্য করা উচিত: দুদক চেয়ারম্যান

জেনে-শুনে মন্তব্য করা উচিত: দুদক চেয়ারম্যান

'তদন্ত করলে দুদকেও দুর্নীতি বেরুবে'- জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যানের ওই ...

আগাম প্রচার সামগ্রী সরানো না হলে জরিমানা: ইসি

আগাম প্রচার সামগ্রী সরানো না হলে জরিমানা: ইসি

জাতীয় নির্বাচন উপলক্ষে আগাম প্রচার সামগ্রী যারা সরাননি, তাদের জরিমানা ...

পুরুষের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠার দাবি

পুরুষের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠার দাবি

'বৈষম্য নয় পুরুষের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠিত হোক' প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ...

পরীক্ষা কেন্দ্রে নয় সুমনা চলে গেল অনন্তলোকে

পরীক্ষা কেন্দ্রে নয় সুমনা চলে গেল অনন্তলোকে

সকালবেলা হাসিমুখে বাসা থেকে পরীক্ষা কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য বের হয়েছিল ...