নতুন ঘরে এক লাখ রোহিঙ্গা পরিবার

উখিয়ার কুতুপালং বালুখালী ক্যাম্প

প্রকাশ: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

আবদুর রহমান, উখিয়া (কক্সবাজার) থেকে

নতুন ঘরে এক লাখ রোহিঙ্গা পরিবার

উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গড়ে তোলা নতুন ঘরের জন্য স্যানিটারি ল্যাট্রিন তৈরির কাজ করছেন দুই শ্রমিক। ছবিটি রোববার তোলা- সমকাল

কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং-বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প বিশ্বের বৃহত্তম শরণার্থী শিবির হিসেবে পরিচিত। মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা সংরক্ষিত বনভূমির পাহাড় কেটে গড়ে তুলেছেন ওই শরণার্থী শিবির। সেখানে ভূমিধসে ভেঙে যাওয়া এবং ঝুঁকিতে থাকা এক লাখ রোহিঙ্গা পরিবারকে নতুন ঘরে স্থানান্তরের কাজ চলছে। এরই মধ্যে ৪০ হাজার পরিবারকে স্থানান্তর করা হয়েছে।

সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, মিয়ানমারের রাখাইনে দেশটির সেনাবাহিনীর নির্যাতনের ফলে গত বছরের ২৫ আগস্টের পর থেকে এ পর্যন্ত প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছে। এর মাধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যা বেশি। পুরনোসহ উখিয়া ও টেকনাফের ছোট-বড় ৩০টি ক্যাম্পে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা অবস্থান করছে। পাহাড় ও বন কেটে বেশিরভাগই বসতি গড়েছে তারা। এর মধ্যে উখিয়ার মধুরছড়া, লম্বাশিয়া, বালুখালী, কুতুপালং, হাকিমপাড়া টেংখালী, শূন্যরেখা এবং টেকনাফের পুটুবনিয়া, শালবাগান, জাদিমুড়ায় পাহাড়ের পাদদেশে হাজারো রোহিঙ্গা এখনও ঝুঁকি নিয়ে বাস করছে। বৃষ্টি হলেই তাদের মধ্যে উদ্বেগ ও আতঙ্ক বেড়ে যায়।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, উখিয়ার মধুরছড়া ও লম্বাশিয়া ক্যাম্পে পাহাড় কেটে নতুন ঘর তৈরির কাজ চলছে। ওইসব ঘরে চলাচলের জন্য পাহাড় কেটে তৈরি করা মাটির সিঁড়ি, বাঁশ দিয়ে বানানো রেলিং ও সাঁকোর সাহায্যে নতুন অনেক রাস্তাও তৈরি করা হচ্ছে। নলকূপ ও পায়খানা নির্মাণের কাজও চলছে। শরণার্থী শিবিরের প্রায় প্রতিটি রাস্তার আশপাশে ইট, বালু, বাঁশ, চাটাইয়ের মতো বিভিন্ন নির্মাণ সামগ্রী স্তূপ করে রাখা হয়েছে।

ঘর তৈরির কাজ করছিলেন মোহাম্মদ দিল নেওয়াজ। তিনি জানালেন, এক সপ্তাহ আগে ভারি বর্ষণে পাহাড়ের ঢলে ঘরটি ভেঙে যায়। তারপরও কিছুদিন সেখানে কষ্ট করে থাকতে হয়েছে। পরে আরেকটি জায়াগায় মাটি কেটে সমতল করে সেখানে ঘর তৈরি করছেন। ঘর তৈরির বাঁশ ও ত্রিপলসহ জিনিসপত্র তুরস্কের লোকজন দিয়েছে। ওই শিবিরে তার মতো অনেকে নতুন ঘর পাচ্ছে বলে জানালেন তিনি।

মরিয়ম বেগম নামে এক রোহিঙ্গা নারী বলেন, এখানে আসার পর এক কক্ষের একটি ঘরে ১০ জন গাদাগাদি করে থেকেছি। তাছাড়া ঘরটি পাহাড়ের কিনারায় হওয়ায় বৃষ্টি হলে খুব ভয় হতো। এখন অন্য জায়গায় নতুন ঘরে যাচ্ছি। এতে ভালো লাগছে।

উখিয়ার লম্বাশিয়া শরণার্থী শিবিরের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ রফিক জানালেন, আগের তুলনায় নতুন ঘরের কাঠামো অনেক ভালো। তার শিবিরে এরই মধ্যে হাজার খানেক পরিবারকে নতুন ঘরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ নিকারুজ্জামান চৌধুরী বলেন, তিন মাস ধরে এই পুনর্বাসনের কাজ চলছে। এরই মধ্যে ৪০ হাজার পরিবারকে নতুন ঘরে স্থানান্তর করা হয়েছে। খুব দ্রুতই বাকি ৬০ হাজার পরিবারকে ঝুঁকিপূর্ণ আবাসস্থল থেকে নিরাপদ বাসস্থানে সরিয়ে নেওয়া হবে।

তিনি আরও জানান, ক্যাম্পের ঘরগুলো আগের তুলনায় টেকসই হচ্ছে। পলিথিনের বদলে বাঁশের চাটাইয়ের সঙ্গে ত্রিপল ব্যবহারের কারণে এগুলো প্রবল বর্ষা ও বাতাসের মধ্যেও টিকে থাকবে।

জানতে চাইলে বাংলাদেশের শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (আরআরআরসি) মোহাম্মদ আবুল কালাম বলেন, উখিয়া শরণার্থী শিবিরে বর্ষায় পল্গাবিত বা ভূমিধসে ভেঙে যাওয়া এবং ঝুঁকিতে থাকা এসব পরিবারের জন্য নতুন ঘর তৈরির কাজ চলছে। এরই মধ্যে অনেকে নতুন ঘরে উঠেছে।

শরণার্থীদের মানবিক সহায়তা কার্যক্রমের সার্বিক সমন্বয়ের দায়িত্বে রয়েছে বাংলাদেশ সরকার গঠিত জাতীয় টাস্কফোর্স এবং বাস্তবায়নে রয়েছে মাঠপর্যায়ে কর্মরত জাতিসংঘ ও আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলোর সমন্বয়ক সংস্থা আইএসসিজি।

ধানমণ্ডির সেই উন্মুক্ত স্থানে গড়ে উঠছে বহুতল ভবন

ধানমণ্ডির সেই উন্মুক্ত স্থানে গড়ে উঠছে বহুতল ভবন

গণপূর্ত বিভাগের নকশায় প্রথমে জায়গাটি ছিল দৃষ্টিনন্দন উন্মুক্ত স্থান। এই ...

সাকা পরিবার কোণঠাসা

সাকা পরিবার কোণঠাসা

গভীর সংকট অতিক্রম করছে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ফাঁসি হওয়া চট্টগ্রামের ...

মুস্তাফিজকে ছেড়ে দিল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স

মুস্তাফিজকে ছেড়ে দিল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স

ইন্ডিয়ার প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) দল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স তাদের দল থেকে ...

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বাংলাদেশকে দৃঢ় সমর্থন সুইস প্রেসিডেন্টের

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বাংলাদেশকে দৃঢ় সমর্থন সুইস প্রেসিডেন্টের

সুইজারল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট আঁলা বেরসে রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বাংলাদেশকে জোরালো সমর্থন ...

অনশন ভেঙেই পুনরায় পরীক্ষা চাইলেন আখতার

অনশন ভেঙেই পুনরায় পরীক্ষা চাইলেন আখতার

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত 'ঘ' ইউনিটে ফাঁস হওয়া প্রশ্নের ...

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমন্বয় ও স্টিয়ারিং কমিটি গঠন

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমন্বয় ও স্টিয়ারিং কমিটি গঠন

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমন্বয় ও স্টিয়ারিং কমিটি গঠন করা হয়েছে।রাজধানীর ধানমণ্ডিতে ...

ভারতে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত অন্তত ৫০

ভারতে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত অন্তত ৫০

ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের অমৃতসরে ট্রেনে কাটা পড়ে অন্তত ৫০ জন নিহত হয়েছে।অমৃতসরের যোধা ...

নিরাপত্তার স্বার্থেই ঐক্যফ্রন্টকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি: কাদের

নিরাপত্তার স্বার্থেই ঐক্যফ্রন্টকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি: কাদের

ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের নিরাপত্তার স্বার্থেই সিলেটে নবগঠিত জোটের প্রথম সমাবেশের অনুমতি ...