শরীয়তপুরে ভাঙন থামছে না একদিনে বাড়িসহ পদ্মার পেটে ৩০ স্থাপনা

প্রকাশ: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

শরীয়তপুর প্রতিনিধি

শরীয়তপুরে পদ্মার পেটে যাচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। গতকাল বুধবার ৩০টি বাড়ি, দোকানপাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ ফসলি জমি ও রাস্তাঘাট নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। বিশেষ করে নড়িয়ায় প্রমত্তা পদ্মার তীব্র ভাঙন থামছেই না। মুলফৎগঞ্জে ভাঙনের তীব্রতা কিছুটা কমলেও এখন বাঁশতলা এলাকায় নতুন করে তীব্র ভাঙন শুরু হয়েছে।

বুধবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বাঁশতলা, ও সাধুরবাজারসহ অন্যান্য এলাকায় কমপক্ষে ৩০টি কাঁচা-পাকা বাড়ি, পাঁচটি দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পদ্মার পেটে চলে গেছে। স্থানীয়রা জানান, ১৫ দিন আগে বাঁশতলা এলাকায় ভাঙনের তীব্রতা বেশি ছিল। কয়েক দফা ভাঙনের পর মাঝে বন্ধ ছিল। তবে বুধবার প্রচণ্ড ভাঙন শুরু হওয়ায় এলাকার লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ঘরবাড়িহারা লোকজন দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।

নড়িয়া উপজেলার মুলফৎগঞ্জ বাজার, বাঁশতলা বাজার ও সাধুরবাজারের প্রায় ৫০০ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ আট শতাধিক স্থাপনা পদ্মায় বিলীন হয়ে গেছে। ব্যাপক ভাঙনের ঝুঁকিতে আছে মুলফৎগঞ্জ বাজারের সহস্রাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। এতে আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটছে স্থানীয়দের।

বেসরকারি হিসাবমতে, এ বছর এসব এলাকায় ভাঙনে কমপক্ষে ৫ হাজার পরিবার গৃহহীন হয়ে পড়েছে। এর মধ্যে

অনেকেই খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবনযাপন করছে। ভাঙনের খবর ছড়িয়ে পড়ায় প্রতিদিন পদ্মার তীরে ভিড় করছে হাজারো উৎসুক জনতা। ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের দাবি, শিগগিরই বেড়িবাঁধ নির্মাণ না করলে পুরো এলাকা পদ্মার গ্রাসে হারিয়ে যাবে।

বাঁশতলা এলাকায় ভাঙন ঝুঁকিতে থাকা বাড়ির মালিক রতন খালাসী বলেন, 'সবাই এক এক করে ভাঙন আতঙ্কে তাদের ঘরবাড়ি সরিয়ে নিয়েছে। আমি সাহস করে এতদিন টিকে ছিলাম। কিন্তু শেষ রক্ষা হলো না। আজ ঘরবাড়ি ভেঙে সরিয়ে নিচ্ছি।' তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এই ভাঙনের করুণ দশার খবর কেউ যদি পৌঁছে দিতেন, তাহলে এই দুর্দশা থেকে বাঁচাতে তিনি নিশ্চয়ই কিছু না কিছু করতেন।

বাঁশতলা এলাকার জাকির হোসেন বলেন, টাকার অভাবে বসতঘর ভেঙে সরিয়ে নিতে পারছি না। যে কোনো মুহূর্তে নদীতে সব বিলীন হয়ে যাবে। একই এলাকার আলী আকবর জানান, তার ঘরবাড়ি পদ্মার পেটে চলে গেছে। এখন নদীপাড়েই কোনো রকম ছাপরা করে দিন কাটাচ্ছেন। পরিবার নিয়ে অর্ধাহারে-অনাহারে থাকতে হচ্ছে তাদের।

চরজুজিরা, মুলফৎগঞ্জ ও নড়িয়ায় ভাঙনকবলিত এলাকা ঘুরে ক্ষতিগ্রস্তদের সঙ্গে আলাপ করে জানা যায়, নড়িয়া উপজেলার মুক্তারের চর, কেদারপুর ইউনিয়ন ও নড়িয়া পৌরসভায় মাত্র একদিনে পদ্মার ভাঙনে সাধুরবাজারের হজরত বেলাল (রা.) জামে মসজিদ, বাঁশতলা এলাকায় নজরুল ইসলাম নজু ঢালী, কাদের ঢালী, মো. ফিরোজ, গনি ব্যাপারি, সোবাহান মাল, সাগর দেওয়ান, জমিস খান, রফিক ঢালী, জামাল ব্যাপারিসহ অন্যদের ৩০টি বসতঘর নদীতে হারিয়ে গেছে। গনি ব্যাপারির পানের বরজ, ফিরোজ মিয়ার একটি কলাবাগানসহ কয়েক একর ফসলি জমি পদ্মায় বিলীন হয়ে গেছে। গত দুই মাসে পদ্মার অব্যাহত ভাঙনে নড়িয়া উপজেলার দেওয়ান ক্লিনিক, রওশনারা শপিং মল, হেলথ কেয়ার ক্লিনিক, গাজী কালুর ভবন, নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নতুন ভবন, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানসহ সহস্রাধিক স্থাপনা বিলীন হয়েছে। ওয়াপদা বাজার ও সাধুরবাজারের কমপক্ষে ২০০ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। এদিকে ৫০ শয্যাবিশিষ্ট নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মূল ভবন নদীতে বিলীন হওয়ার পর ওই হাসপাতালের অন্য ১২টি ভবন যে কোনো মুহূর্তে বিলীন হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে। এখন স্বাস্থ্যসেবা নিয়েও আতঙ্কে রয়েছে উপজেলার মানুষ।
সালাহ-ফিরমিনোয় হার নেইমার-এমবাপ্পেদের

সালাহ-ফিরমিনোয় হার নেইমার-এমবাপ্পেদের

সালাহ-সাদিও মানে-ফিরমিনো বনাম নেইমার-এমবাপ্পে-কাভানি! কিংবা বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের সাবেক দুই কোচ ...

হংকংয়ের বিপক্ষে কষ্টের জয় ভারতের

হংকংয়ের বিপক্ষে কষ্টের জয় ভারতের

হংকংয়ের ইনিংসের তখন ২৯ ওভার চলছে। কোন উইকেট না হারিয়ে ...

মুশফিক বিশ্রামে খেলবেন মুমিনুল

মুশফিক বিশ্রামে খেলবেন মুমিনুল

রুটি সেঁকতে গিয়ে শেষ পর্যন্ত না আবার হাতটাই পুড়ে যায়- ...

শিক্ষার্থীরা আশাবাদী, সন্দেহ যাচ্ছে না ছাত্রনেতাদের

শিক্ষার্থীরা আশাবাদী, সন্দেহ যাচ্ছে না ছাত্রনেতাদের

সাধারণ শিক্ষার্থীরা আশাবাদী। তবে কিছুটা সন্দেহ আর সংশয়ে আছে ক্যাম্পাসে ...

স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে বাড়ছে গড় আয়ু

স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে বাড়ছে গড় আয়ু

বাংলাদেশের মানুষের গড় আয়ু ক্রমশই বাড়ছে। ১০ বছর আগে ২০০৮ ...

৩০০ আসনে প্রার্থী দিতে প্রস্তুতি নিচ্ছে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য

৩০০ আসনে প্রার্থী দিতে প্রস্তুতি নিচ্ছে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য

চলমান রাজনীতিতে নতুন মাত্রা যোগ করেছে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য। আওয়ামী ...

'থাহনের জাগা নাই, পড়ালেহা করব ক্যামনে'

'থাহনের জাগা নাই, পড়ালেহা করব ক্যামনে'

ভিটেমাটির সঙ্গে শিশু নাসরিন আক্তারের স্কুলটিও গেছে পদ্মার গর্ভে। তীরে ...

রোগশোক ভুলে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে ওরা

রোগশোক ভুলে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে ওরা

হাটহাজারীর কাটিরহাট থেকে ছয় কিলোমিটার ইটবিছানো রাস্তার পর প্রায় এক ...