শিক্ষকের পিটুনিতে ছাত্র হাসপাতালে

প্রকাশ: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

মাগুরা প্রতিনিধি

প্রশ্নের যথাযথ উত্তর দেওয়ার সময় উচ্চারণগত ত্রুটিসহ তোতলামি করায় ক্ষুব্ধ হয়ে মাগুরা সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের এক শিক্ষক নবম শ্রেণির অসুস্থ এক ছাত্রকে নির্দয়ভাবে পিটিয়ে আহত করেছেন। ওই ছাত্র বর্তমানে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। এ ঘটনায় প্রতিকার চেয়ে ছাত্রের বাবা জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অসুস্থ ছাত্র যায়েদ বিন জামানের বাবা মাগুরা শহরের আদর্শপাড়ার বাসিন্দা মুন্সী কায়েমুজ্জামান বলেন, আমার ছেলে দীর্ঘদিন ধরে টিস্যুজনিত দুর্বলতায় আক্রান্ত। এ কারণে তাকে নিয়মিত ফিজিওথেরাপি দিতে হয়। সঙ্গত কারণে আমি এ বছরের জুলাইয়ে লিখিত দরখাস্তের মাধ্যমে আমার সন্তানকে কোনো কারণেই মারধর করা থেকে বিরত থাকার আবেদন জানিয়েছিলাম। কিন্তু মঙ্গলবার ওই স্কুলের শিক্ষক মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী তার প্রশ্নের যথাযথ জবাব দিতে না পারায় আমার ছেলেকে নির্দয়ভাবে মারধর করেন। ছেলে মারধরের বিষয়টি আমাদের কাছে গোপন রাখা হয়। কিন্তু রাতে সে অসুস্থ হয়ে পড়লে আমরা বিষয়টি বুঝতে পেরে দ্রুত মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করি। বর্তমানে সে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় প্রতিকার চেয়ে ছাত্রের বাবা জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি ছাত্র যায়েদ বিন জামান বলে, আমি স্যারের মারের হাত থেকে বাঁচার জন্য পা জড়িয়ে ধরলেও তিনি আরও মারতে থাকেন, আর বলেন, আমি কখন হাসি, কখন রাগি, তা ওপর ওয়ালাও জানে না।

শিক্ষক মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী বলেন, ওই ছাত্রের কথাবার্তা আমার কাছে ব্যাঙ্গাত্মক বলে মনে হয়েছিল। এ কারণে তাকে শাসন করেছি। তবে সে যে গুরুতর অসুস্থ তা আমার জানা ছিল না। এ কারণে আমি দুঃখিত। আমি তাকে হাসপাতালে দেখতে এসেছি।

জেলা প্রশাসক আতিকুর রহমান জানান, ছাত্র মারধরের ঘটনায় তিনি লিখিত অভিযোগ পেয়েছেন। বিষয়টি তদন্তে একজন ম্যাজিস্ট্রেটকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।
সালাহ-ফিরমিনোয় হার নেইমার-এমবাপ্পেদের

সালাহ-ফিরমিনোয় হার নেইমার-এমবাপ্পেদের

সালাহ-সাদিও মানে-ফিরমিনো বনাম নেইমার-এমবাপ্পে-কাভানি! কিংবা সাবেক বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের দুই কোচ ...

হংকংয়ের বিপক্ষে কষ্টের জয় ভারতের

হংকংয়ের বিপক্ষে কষ্টের জয় ভারতের

হংকংয়ের ইনিংসের তখন ২৯ ওভার চলছে। কোন উইকেট না হারিয়ে ...

মুশফিক বিশ্রামে খেলবেন মুমিনুল

মুশফিক বিশ্রামে খেলবেন মুমিনুল

রুটি সেঁকতে গিয়ে শেষ পর্যন্ত না আবার হাতটাই পুড়ে যায়- ...

শিক্ষার্থীরা আশাবাদী, সন্দেহ যাচ্ছে না ছাত্রনেতাদের

শিক্ষার্থীরা আশাবাদী, সন্দেহ যাচ্ছে না ছাত্রনেতাদের

সাধারণ শিক্ষার্থীরা আশাবাদী। তবে কিছুটা সন্দেহ আর সংশয়ে আছে ক্যাম্পাসে ...

স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে বাড়ছে গড় আয়ু

স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে বাড়ছে গড় আয়ু

বাংলাদেশের মানুষের গড় আয়ু ক্রমশই বাড়ছে। ১০ বছর আগে ২০০৮ ...

৩০০ আসনে প্রার্থী দিতে প্রস্তুতি নিচ্ছে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য

৩০০ আসনে প্রার্থী দিতে প্রস্তুতি নিচ্ছে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য

চলমান রাজনীতিতে নতুন মাত্রা যোগ করেছে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য। আওয়ামী ...

'থাহনের জাগা নাই, পড়ালেহা করব ক্যামনে'

'থাহনের জাগা নাই, পড়ালেহা করব ক্যামনে'

ভিটেমাটির সঙ্গে শিশু নাসরিন আক্তারের স্কুলটিও গেছে পদ্মার গর্ভে। তীরে ...

রোগশোক ভুলে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে ওরা

রোগশোক ভুলে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে ওরা

হাটহাজারীর কাটিরহাট থেকে ছয় কিলোমিটার ইটবিছানো রাস্তার পর প্রায় এক ...