৩৩ বছরেও উৎপাদন নেই মৎস্যবীজ কেন্দ্রে

প্রকাশ: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

বিপুল দাশ, মিরসরাই (চট্টগ্রাম)

মিরসরাইয়ে উন্নতজাতের মাছের পোনা উৎপাদন কেন্দ্রটি ৩৩ বছরেও উৎপাদনের মুখ দেখেনি। ২০১৩ সালে তৎকালীন মৎস্য প্রতিমন্ত্রী আবদুল হাই উৎপাদন কেন্দ্রটি পরিদর্শন করে ফের চালু করার ঘোষণা দিলে সেটিও কোনো কাজে আসেনি। দীর্ঘদিন অযত্ন-অবহেলায় পড়ে থাকার পর ২০১৫-১৬ অর্থবছরে নতুন করে কেন্দ্রটি সংস্কার করা হলেও এখন বিদ্যুৎ সংযোগ জটিলায় উৎপাদনে যেতে পারছে না বলে দাবি করছে উপজেলা মৎস্য অফিস। এদিকে উৎপাদন কেন্দ্রটিতে ৬ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী থাকার কথা থাকলেও বর্তমানে একজনও নেই।

উপজেলা মৎস্য অফিস সূত্রে জানা গেছে, গলদা চিংড়ি, রুই, কাতলা, মৃগেলসহ বিভিন্ন মাছের উন্নতজাতের পোনা উৎপাদনের লক্ষ্য নিয়ে সরকারি ব্যবস্থাপনায় উৎপাদন কেন্দ্রটি প্রায় ৩৩ বছর আগে যাত্রা শুরু করে। কিন্তু বছর দুয়েক না যেতেই প্রয়োজনীয় পানি সংকটের অজুহাতে এক সময় উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়। এর পর রক্ষণাবেক্ষণ না করায় হ্যাচারির পোনা উৎপাদন কাজের জন্য বসানো নলকূপের বিভিন্ন অংশ, হ্যাচারির জেনারেটর, মোটর, ভবনের জানালার লোহার গ্রিল, পাইপসহ লাখ লাখ টাকার বিভিন্ন যন্ত্রাংশ চুরি হয়ে যায়। নষ্ট হয়ে যায় উৎপাদন কেন্দ্রের তিনটি ভবন। প্রায় পাঁচ একরের জমিতে থাকা ১০টি পুকুর পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকে। ২০১৫-১৬ অর্থবছরে সরকার হ্যাচারিটিকে উৎপাদনমুখী করতে প্রায় ৩৬ লাখ টাকা ব্যয়ে সংস্কার করে। এর পরও দুই বছর ধরে বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকায় পানি উত্তোলন ও পোনা উৎপাদন করা সম্ভব হচ্ছে না বলে দাবি করেন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা।

সরেজমিন মৎস্যবীজ উৎপাদন কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে, মৎস্যবীজ উৎপাদন কেন্দ্রটির তিনটি ভবনের কার্প জাতীয় মাছের পোনা উৎপাদনের ভবনটি ঝোপ-জঙ্গলে ঘিরে আছে। প্রায় অকেজো হয়ে যাওয়া ভবনটি থেকে ইট-বালু খসে পড়ছে, চুরি হয়ে গেছে ভবনের লোহার গ্রিলসহ লোহার যন্ত্রাংশ। ২০০৭ সালে ৪৩ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয় গলদা চিংড়ি হ্যাচারি ভবন। ওই ভবনটি ২০১৬ সালে ফের সংস্কার করে চিংড়ি হ্যাচারি বাদ দিয়ে কার্প জাতীয় মাছের পোন উৎপাদনের জন্য রূপান্তরিত করা হয়। ভবনের ভেতরে পোনা উৎপাদনের জন্য ৮টি বোতল হ্যাচারি, ৪টি সার্কুলার হ্যাচারি, ৪টি ক্রেকট্যাংগুলার হ্যাচারি নির্মাণসহ বিভিন্ন যন্ত্রাংশ বসানো হয়। কিন্তু সংস্কারের পর উৎপাদনে যেতে না পারায় এবং রক্ষণাবেক্ষণ না করায় বর্তমানে সেগুলোও নষ্ট হয়ে যেতে বসেছে।

উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী জানান, বিদ্যুতের লাইনের জন্য চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩-এর চাহিদা অনুযায়ী টাকা জমা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তারা নানা অজুহাতে লাইন না দেওয়ায় কেন্দ্রটি উৎপাদনে যেতে পারছে না। এদিকে কেন্দ্রটিতে ৬টি পদের একটিতেও কোনো লোক নেই। ফলে এটির বিভিন্ন যন্ত্রাংশ রক্ষণাবেক্ষণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩-এর এজিএম একরাম হোসেন জানান, পোনা উৎপাদন কেন্দ্রটিতে খুঁটি লাগানো হয়েছে। তার টানানোর জায়গায় গাছ থাকার কারণে তার টানানো যায়নি। কয়েক দিনের মধ্যে তার টানিয়ে উৎপাদন কেন্দ্রে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হবে।
রির্কালিসনের গোলে ক্যামেরুনকে হারাল ব্রাজিল

রির্কালিসনের গোলে ক্যামেরুনকে হারাল ব্রাজিল

ম্যাচের ৪৫ মিনিটের মাথায় এভারটনের তরুণ তারকা রির্কালিসনের গোলে জয় ...

ইনজুরি নিয়ে মাঠ ছাড়লেন নেইমার

ইনজুরি নিয়ে মাঠ ছাড়লেন নেইমার

ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ক্যামেরুনের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচে বড় দুঃসংবাদ পেয়েছে ব্রাজিল ...

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বি. চৌধুরী ও জিএম কাদেরের বৈঠক

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বি. চৌধুরী ও জিএম কাদেরের বৈঠক

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে আকস্মিক বৈঠক ...

অর্ধশত আসনে আসছে বিএনপির নতুন মুখ

অর্ধশত আসনে আসছে বিএনপির নতুন মুখ

আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনে অর্ধশত আসনে বিএনপির নতুন মুখ আসছেন। ...

মহাজোটের মনোনয়নে জাপার ৯ এমপি বাদ

মহাজোটের মনোনয়নে জাপার ৯ এমপি বাদ

খসে পড়তে পারেন জাতীয় পার্টির (জাপা) নয়জন এমপি। কারণ এলাকায় ...

আ'লীগের মনোনয়ন চান তিন শতাধিক নারী

আ'লীগের মনোনয়ন চান তিন শতাধিক নারী

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীর তালিকায় রয়েছে তিন ...

বিএনপির শতাধিক নারী নেত্রী মনোনয়নপ্রার্থী

বিএনপির শতাধিক নারী নেত্রী মনোনয়নপ্রার্থী

একাদশ জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপির শতাধিক নারী নেত্রী দলীয় ...

'নিখোঁজ' ইলিয়াসের আসনে মনোনয়ন চান স্ত্রী লুনা

'নিখোঁজ' ইলিয়াসের আসনে মনোনয়ন চান স্ত্রী লুনা

সিলেট-২ আসনে বিএনপির ভরসা সাড়ে ছয় বছর আগে 'নিখোঁজ' ইলিয়াস ...