নাজমা জেসমিন চৌধুরী স্মারক বক্তৃতা

মানুষের জীবনের নিরাপত্তা ক্রমাগত নিম্নমুখী

প্রকাশ: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

'দেশের মানুষের জীবনের নিরাপত্তা ক্রমাগত নিম্নমুখী হচ্ছে। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ছিনতাই, চাঁদাবাজি, দুর্ঘটনা ও যৌন নির্যাতনে মানুষ অকালে প্রাণ হারাচ্ছে। উন্নয়নের নামে মুনাফার উন্মাদনা ও প্রশাসনিক বৈকল্যের বড় দৃষ্টান্ত অবিরাম সড়ক দুর্ঘটনা।' গতকাল বুধবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক ভাষা শিক্ষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে 'প্রাণ প্রকৃতি বাংলাদেশ' শীর্ষক ২৮তম নাজমা জেসমিন চৌধুরী স্মারক বক্তৃতায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান। স্বাগত বক্তব্য দেন আধুনিক ভাষা শিক্ষা ইনস্টিটিউটের পরিচালক শিশির ভট্টাচার্য। অনুষ্ঠানে বিদেশি শিক্ষার্থীদের মধ্যে আয়োজিত 'নাজমা জেসমিন রচনা প্রতিযোগিতায়' বিজয়ী দক্ষিণ কোরিয়ার সু জিন পার্ককে পুরস্কার দেওয়া হয়।

স্মারক বক্তৃতায় আনু মুহাম্মদ বলেন, সর্বশেষ ঈদুল আজহার সময় ১৩ দিনে দুই শতাধিক মানুষ সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন। কর্মস্থলে নিরাপত্তাহীনতার কারণে শ্রমিক নিহতের ঘটনা বাড়ছে। অন্যদিকে

বেড়েছে আটক বাণিজ্য, গুম, ক্রসফায়ারের নামে রাষ্ট্রীয় হত্যাকাণ্ড। সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনাও বেড়েছে। এসব খুন, গুম ও ক্রসফায়ার সম্পর্কে সরকারের ভাষ্য একঘেয়ে, অসত্য।

আনু মুহাম্মদ বলেন, প্রাণ প্রকৃতি বিনাশ করে জিডিপির প্রবৃদ্ধি মর্যাদাপূর্ণ কর্মসংস্থানের সুযোগ তো নয়ই, অতি সাধারণ কাজের সুযোগও চাহিদা অনুযায়ী বাড়াতে পারছে না। তিনি বলেন, বাংলাদেশে পুঁজি সংবর্ধনের যে প্রক্রিয়া চলছে, তাতে প্রাণ প্রকৃতির এক অভূতপূর্ব বিপর্যয় ঘটেছে। কারণ, এই উন্নয়নের মূল কথাই হলো প্রকৃতিকে নির্বিচারে শোষণ ও দখল করা।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, নাজমা জেসমিন চৌধুরীর সৃজনশীল কর্ম থেকে মৌলিক শিক্ষা নিতে হবে। চিন্তাশীল লেখনীর মাধ্যমে সমালোচনার পাশাপাশি ইতিবাচক দিকও তুলে ধরতে হবে।

ডক্টর নাজমা জেসমিন চৌধুরী (১৯৪০-১৯৮৯) প্রধানত সাহিত্যগবেষক ছিলেন। ছিলেন নাট্যকার, প্রাবন্ধিক ও কথাসাহিত্যিক। একই সঙ্গে তিনি সংগঠকও ছিলেন। নাটক করেছেন শিশুদের নিয়ে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর স্ত্রী নাজমা জেসমিন চৌধুরী গ্রন্থ সম্পাদনাতেও বিশেষ দক্ষতার স্বাক্ষর রেখে গেছেন।



মিরপুরের কালশি বস্তিতে মাদকবিরোধী অভিযান

মিরপুরের কালশি বস্তিতে মাদকবিরোধী অভিযান

রাজধানীর মিরপুরের কালশী বস্তিতে মাদকবিরোধী অভিযান শুরু করেছে যৌথবাহিনী। রোববার ...

ছোট ভাইকে হাতুড়িপেটা করে মারল বড় ভাই!

ছোট ভাইকে হাতুড়িপেটা করে মারল বড় ভাই!

পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায় পারিবারিক বিরোধের জের ধরে ছোট ভাইকে হাতুড়ি-বাটাল ...

২৬ বছরের অভিনেত্রীর সঙ্গে ৭০ বছরের মহেশ ভাটের প্রেম!

২৬ বছরের অভিনেত্রীর সঙ্গে ৭০ বছরের মহেশ ভাটের প্রেম!

এক তরুণ অভিনেত্রীর কাঁধে মাথা রেখেছেন খ্যাতিমান পরিচালক মহেশ ভাট। ...

ইরানে সামরিক কুচকাওয়াজে হামলা: ৩ রাষ্ট্রদূতকে তলব

ইরানে সামরিক কুচকাওয়াজে হামলা: ৩ রাষ্ট্রদূতকে তলব

ইরাক সীমান্তের কাছে ইরানের সামরিক কুচকাওয়াজে নির্বিচারে গুলি চালিয়ে শিশু ...

ফেঁসে যেতে পারেন যুক্তরাষ্ট্রে গ্রিন কার্ড আবেদনকারীরা

ফেঁসে যেতে পারেন যুক্তরাষ্ট্রে গ্রিন কার্ড আবেদনকারীরা

যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন একটি প্রস্তাবনা দিয়েছে যার ফলে ...

বগুড়ায় রেলসেতুর মেরামত কাজ সন্ধ্যা নাগাদ শেষ হতে পারে

বগুড়ায় রেলসেতুর মেরামত কাজ সন্ধ্যা নাগাদ শেষ হতে পারে

বগুড়ায় দেবে যাওয়া রেলসেতুর মেরামত কাজ শেষ না হওয়ায় রোববার ...

সাতক্ষীরায় পুলিশের বিশেষ অভিযানে আটক ৬৩, ইয়াবা-ফেনসিডিল উদ্ধার

সাতক্ষীরায় পুলিশের বিশেষ অভিযানে আটক ৬৩, ইয়াবা-ফেনসিডিল উদ্ধার

সাতক্ষীরা জেলাব্যাপী পুলিশের বিশেষ অভিযানে জামায়াত-শিবিরের ছয় নেতাকর্মীসহ ৬৩ জনকে ...

জলাতঙ্ক থেকে বাঁচার উপায়

জলাতঙ্ক থেকে বাঁচার উপায়

র‌্যাবিসকে বাংলায় জলাতঙ্ক বলা হয়। অর্থাৎ জলে যার আতঙ্ক। এই ...