তার স্বপ্নের অনাথ আশ্রম হতেই হবে

প্রকাশ: ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

বেগম মুশতারী শফী

জন্ম থেকেই একজন সংগ্রামী মানুষ ছিলেন রমা চৌধুরী। সারাজীবন চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে অনাথ শিশুদের জন্য একটি অনাথ আশ্রম প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন ছিল তার। কিন্তু সে ইচ্ছা পূরণ হলো না একাত্তরের জননী রমা চৌধুরীর। মহান মুক্তিযুদ্ধে দুই ছেলেকে হারিয়েছেন। যুদ্ধের পর এক ছেলেকে হারান। তার তিন ছেলেকে হারানোর পর তিনি সারাজীবন স্বপ্ন দেখেছিলেন অনাথ আশ্রম করে শিশুদের মা হয়ে সন্তানের মতো তাদের লালন-পালন করবেন। কিন্তু অর্থ সংকটে তার সেই স্বপ্ন অধরা থেকে গেল। স্বপ্ন দেখতে দেখতেই তিনি চলে গেলেন পরপারে। বীরাঙ্গনা রমা চৌধুরী আমার স্মৃতিতে যখনই ভেসে ওঠে, তখনই আবেগপ্রবণ হয়ে যাই। গত ৩ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে মারা যাওয়ার পর চট্টগ্রাম শহীদ মিনারে ছুটে গিয়ে তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছি।

মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজাকাররা তার ওপর বর্বর অত্যাচার চালিয়েছিল। যুদ্ধের পর ভারত থেকে মাত্র কিছুদিন হলো দেশে ফিরে এসেছি। কিছুদিন পর খালি পায়ে আমার বাড়িতে আসেন রমাদি। এসে বলেন, তোমাকে দেখতে এসেছি। সে-ই তার সঙ্গে আমার পরিচয়। তিনি বলেছিলেন, এ দেশের জন্য ছেলে হারিয়েছি, সব হারিয়েছি। দেশ স্বাধীনের কিছুদিন পর স্বাধীনতাবিরোধী সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী তার বোয়ালখালীর বাড়ি ও আশ্রম ভেঙে দেয়। অনাথ আশ্রমটি ভেঙে দেওয়ার পর তিনি গ্রাম ছেড়ে শহরে চলে আসেন। তার আগে রমাদি দীর্ঘদিন শিক্ষকতা করেছেন গ্রামে। ১৯৬১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।  ১৯৫২ সালে মাত্র ১১ বছর বয়সে বোয়ালখালীর মুক্তকেশী গার্লস হাই স্কুল থেকে এসএসসি পাস করেন তিনি। এইচএসসি পাস করেন ১৯৫৬ সালে কানুনগোপাড়া কলেজ থেকে। ১৯৫৯ সালে চট্টগ্রাম কলেজ থেকে ডিগ্রি পাস করেন। এভাবে কিছুদিন গ্রামে আর কিছুদিন শহরে করে তার সংগ্রামী জীবন কেটেছে। তাকে রাষ্ট্রীয়ভাবে ও আমাদের সমাজ যেভাবে মূল্যায়ন করার প্রয়োজন ছিল, সেই সম্মানটুকু দেয়নি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে আর্থিক সহযোগিতা করতে চাইলেও তিনি তা নেননি। তিনি আত্মসম্মান নিয়ে বাঁচতে চেয়েছিলেন। তিনি তার অনাথ আশ্রমটি প্রতিষ্ঠা করে যেতে চেয়েছিলেন। বীরাঙ্গনা রমাদি সব সময় স্বাধীনতাবিরোধী, মৌলবাদী ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে সরব ছিলেন। আন্দোলন-সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা রমা চৌধুরী চার সন্তানের জনক। মুক্তিযুদ্ধে ছেলেদের হারিয়ে পাগলপ্রায় হয়ে গিয়েছিলেন। তিনি বিবাহিত হলেও যুদ্ধের আগেই তার স্বামী কলকাতা চলে যায়। তিনি রমাদি ও তার সন্তানদের আর কোনো খবর রাখেননি। তখন থেকেই তার জীবনে অন্ধকার নেমে আসে। পরে মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানি বাহিনী ও রাজাকাররা তার সবকিছু শেষ করে দেয়। যুদ্ধ-পরবর্তীকালে শিক্ষকতা ছেড়ে দেওয়ার পর তিনি জীবন চালাতে গিয়ে চরম অর্থকষ্টে ভোগেন; কিন্তু কারও কাছে হাত পাতেননি। তিনি অনেক বই লিখেছিলেন। সে বই বিক্রি করেই তিনি সংগ্রামী জীবনটা কাটিয়ে দিয়েছেন। নগরীর জামালখানস্থ চেরাগী পাহাড়ের লুসাই ভবনের একটি কক্ষে ছিল তার বসবাস। তিনি সনাতনী হলেও তার সেবা করত আলাউদ্দিন খোকন নামে এক মুসলিম ছেলে। তাদের মধ্যে ছিল খুবই অসাম্প্রদায়িক সম্পর্ক। শেষের জীবনটা মায়ের মতোই খোকন তার দেখাশোনা করেছেন। বীরাঙ্গনা রমা চৌধুরী আমাদের মাঝে আজ নেই। কিন্তু এই দেশ গঠনে তার অনেক অবদান রয়েছে। তার স্বপ্নের অনাথ আশ্রমটি প্রতিষ্ঠা পেলে অনাথ শিশুদের মাঝেই তিনি আমাদের কাছে বেঁচে থাকবেন। তিনি প্রবন্ধ, উপন্যাস ও কবিতা মিলিয়ে ১৮টি গ্রন্থ লিখেছেন। তার এসব মূল্যবান বইসহ অনেক জিনিসপত্র মুক্তিযুদ্ধের দলিল হিসেবে আগামী প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে সংরক্ষণ খুবই জরুরি। আমরা যদি এসব দলিল সংরক্ষণ করতে পারি, তাহলেই তিনি আমাদের মাঝে অনন্তকাল অমর হয়ে থাকবেন। সরকারের কাছেও দাবি থাকবে তার স্মৃতিভাণ্ডার সংরক্ষণে এগিয়ে আসার।

শহীদজায়া

পরবর্তী খবর পড়ুন : বিখ্যাতদের কুসংস্কার

রাজশাহী খুলনা বরিশাল ও রংপুরের ৮১ আসনে আ'লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত

রাজশাহী খুলনা বরিশাল ও রংপুরের ৮১ আসনে আ'লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত

রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল ও রংপুর বিভাগের কমপক্ষে ৮১ আসনে দলীয় ...

এমপি হতে চান ১২ হাজার!

এমপি হতে চান ১২ হাজার!

আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে এমপি হতে চান ১২ হাজারের বেশি নেতা। ...

শিক্ষকদের ভোটের 'ভেট'

শিক্ষকদের ভোটের 'ভেট'

নির্বাচনের আগেই সারাদেশের সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষকরা পেলেন বেশ কিছু ...

শেকড়ের টান উপেক্ষা করা যায় না

শেকড়ের টান উপেক্ষা করা যায় না

ইউরোপে যখন রক আর টেকনো নিয়ে মাতামাতি চলছে, ঠিক সেই ...

নতুন মুখ আসতে পারে বগুড়ার তিন আসনে

নতুন মুখ আসতে পারে বগুড়ার তিন আসনে

বগুড়ায় এবার অন্তত তিনটি আসনে ধানের শীষ প্রতীকে নতুন প্রার্থী ...

জয়পুরহাটে লেভেল ক্রসিংয়ে অল্পের জন্য বাঁচলো ৪৮ বাস যাত্রী

জয়পুরহাটে লেভেল ক্রসিংয়ে অল্পের জন্য বাঁচলো ৪৮ বাস যাত্রী

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর পৌর এলাকার পশ্চিম আমুট্ট (মহিলা কলেজ সংলগ্ন) এলাকায় ...

সিডরে নিখোঁজের ১১ বছর পর প্রত্যাবর্তন

সিডরে নিখোঁজের ১১ বছর পর প্রত্যাবর্তন

প্রলংয়করী ঘূর্ণিঝড় সিডরে নিখোঁজের ১১ বছর পর বাড়ি ফিরেছেন শরণখোলা ...

সরকারি কাজে বাধা দেয়ায় রাবি ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতির জেল

সরকারি কাজে বাধা দেয়ায় রাবি ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতির জেল

সরকারি কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক ...