সবাই ভয়ে চিৎকার করছিল দোয়া পড়ছিল

প্রকাশ: ১৪ মার্চ ২০১৮      

সমকাল ডেস্ক

নেপালের ত্রিভুবন বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত ইউএস-বাংলার বিমানের বেঁচে যাওয়া যাত্রী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা বিধ্বস্ত হওয়ার মুহূর্তের বর্ণনা দিয়েছেন। তারা বলেছেন, হঠাৎ বিকট শব্দের পরই বিমানটি দুলতে শুরু করে। এ সময় যাত্রীরা কান্নাকাটি ও চিৎকার শুরু করেন। অনেকে দোয়া পড়তে থাকেন।

দুর্ঘটনার ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা বিবিসির কাছে বর্ণনা করেন বাংলাদেশ থেকে বেড়াতে যাওয়া শাহরীন আহমেদ। তার ভাষায়, বেলা আড়াইটার দিকে কাঠমান্ডু পৌঁছে পাইলট প্রথমে অবতরণের চেষ্টা করেন, কিন্তু পারেননি। পরে ঘুরে ঘুরে আবার যখন দ্বিতীয়বার চেষ্টা করেন, তখন বিমানের বাম দিকটা উঁচু হয়ে যায়। বললাম- বাম দিকটা উঁচু হলো কেন? আর তখনই বিধ্বস্ত হয়ে গেল বিমান।

শাহরীন বলেন, একটি দুর্ঘটনা ঘটতে  যাচ্ছে- এমন সতর্কবার্তা পাইলট, কেবিন ক্রু বা অন্য কেউ দেননি। তারা নিজেরাও কিছু বুঝতে পারেননি। তিনি বলেন, তখন সবাই ভয়ে চিৎকার করছিল আর আল্লাহর উদ্দেশে দোয়া পড়ছিল। শাহরীনের কাছে জানতে চাওয়া হয়, এর আগে কি তাদের কোনো আভাস দেওয়া হয়েছিল? কিছু টের পেয়েছিলেন কি-না? শাহরীন আহমেদ বলেন, একেবারে স্ব্বাভাবিকভাবেই বিমানটি নামছিল। হঠাৎ সবকিছু স্তব্ধ হয়ে গেল।

বন্ধুর সঙ্গে সোমবার নেপালে বেড়াতে গিয়েছিলেন ঢাকার একটি স্কুলের শিক্ষক ২৯ বছরের শাহরীন আহমেদ। শুক্রবারই তাদের ঢাকায় ফেরার কথা। তবে সেই বন্ধু দুর্ঘটনায় মারা গেছেন। প্রথমবারের মতো তারা নেপাল বেড়াতে এসেছিলেন। তাদের পোখারা যাওয়ার কথা ছিল। তিনি বলেন, আগুন লাগার আনুমানিক ২০ মিনিট পর সাহায্য আসে। সে পর্যন্ত আমি আর আরেকজন বিমানের ভেতরেই বসে ছিলাম। প্রচ ভয় লাগছিল আর 'হেল্প হেল্প' বলে চিৎকার করছিলাম। কারণ আমি জানতাম- আগুন লাগার পর অনেকে দম বন্ধ হয়েই মারা যায়।

উদ্ধারকারীরা আগুন নেভানোর পর উড়োজাহাজের একটি অংশ খুলে যায় আর বাইরে থেকে পরিস্কার বাতাস ভেতরে ঢুকতে শুরু করে। বাইরে আসার সময় তিনি দেখতে পান- আরেকজন কাছেই বিমানের ফ্লোরে পড়ে ছিলেন। তার হাত ঝুলছিল। তিনি বেঁচে আছেন কি-না, শাহরীনের তা জানা নেই। ওই দুর্ঘটনার পর পুরো সচেতন ছিলেন শাহরীন আহমেদ। লোকজন তাকে ধরে বাইরে নিয়ে আসেন। তিনি বলেন, ওই সময় আমি বলি- আমি হাঁটতে পারব। এমনকি অ্যাম্বুলেন্স পর্যন্ত হেঁটেও আসি। কিন্তু তখন পায়ে ব্যথা শুরু হয়। আসতে আসতে শুধু আগুন দেখতে পাই। তার শরীরের অনেক জায়গা আগুনে পুড়ে গেছে। বর্তমানে কাঠমান্ডুর মেডিকেল কলেজ টিচিং হাসপাতালে তিনি চিকিৎসাধীন। নিজে বেঁচে ফিরলেন, কিন্তু হাসপাতালের বিছানায় শুয়েও বন্ধুর জন্য তার দুঃখ রয়ে গেল।

অপর যাত্রী কেশব পাণ্ডে বিবিসিকে বলেন, বিধ্বস্ত হওয়ার পর আমি বিমানটি থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করি, তবে ব্যর্থ হই। আমার হাত-পা আটকে গিয়েছিল। আমার সিট ছিল জরুরি দরজার পাশে। সম্ভবত নিরাপত্তা বাহিনী এসে দরজাটি খোলার পর আমি বাইরে পড়ে যাই। এর পরের ঘটনা আর কিছু মনে নেই। বেহুঁশ হয়ে পড়ি।

সনম শাক্য নামে এক যাত্রী এএফপি'কে বলেন, বিমানটি দিজ্ঞ্বিদিক ছুটছিল। একবার ওপরে তো তারপরেই নিচে। একবার ডানে তো পরেই বামে। মনে করেছিলাম, এটা এয়ার ট্রাফিক সমস্যা। পরে তিনি জানালা ভেঙে বের হয়ে আসেন।

নিউইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, হঠাৎ উড়োজাহাজটি একটি শূন্য মাঠের ভেতর দিয়ে ছুটতে শুরু করে। এর পর রানওয়ের পাশে আগুন জ্বলতে দেখা যায়। একই সঙ্গে কু লী পাকিয়ে ধোঁয়া বের হতে থাকে। এ সময় চূর্ণ-বিচূর্ণ বিমানটির কাছে দৌড়ে যান উদ্ধারকারীরা। তখন নেপালি আরোহীরা 'আমাকে বাঁচাও, বাঁচাও আমাকে' বলে চিৎকার করছিলেন। আর বাংলাদেশি আরোহীরা ইংরেজিতে চিৎকার করে বলছিলেন, 'হেল্প মি, প্লিজ হেল্প মি।'

বিধ্বস্ত বিমানের যাত্রীরা এভাবেই নিজেদের জীবন বাঁচানোর আকুতি জানাচ্ছিলেন উদ্ধারকর্মীদের কাছে। দুর্ঘটনাকবলিত বিমানটির আরোহীদের উদ্ধারে দ্রুত বিমানটির দিকে ছুটে যান নেপালের সেনা সদস্য বালকৃষ্ণ উপাধ্যায়। বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়া ও এর ঠিক পরবর্তী মুহূর্তের বর্ণনা দিতে গিয়ে দ্য নিউইয়র্ক টাইমসের কাছে এমন অভিজ্ঞতার কথা জানান তিনি। ওই বিধ্বস্তের ঘটনাকে ভয়ঙ্কর বলেও মন্তব্য করেন এই সেনা সদস্য।

এর পরের মুহূর্তের বর্ণনা পাওয়া যায় নেপালি সাংবাদিক ভদ্র শর্মার কাছ থেকে। তিনি বলেন, 'বিমানবন্দরের গেটে পৌঁছে নুড়ি পাথরের একটা স্তূপে দাঁড়িয়ে দেখি, বিধ্বস্ত বিমানের ইঞ্জিন থেকে আগুন বেরুচ্ছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে পানি ছিটানো হচ্ছে। ঘটনাস্থলের চারপাশে তাকিয়ে দেখি, ঘাস থেঁতলে কালো হয়ে গেছে। এখানে সেখানে ছেঁড়া কাগজ, সিটের ছিন্নভিন্ন টুকরো, পানির বোতল ইত্যাদি পড়ে রয়েছে। বিধ্বস্ত বিমানটির দিকে তাকিয়ে দেখি এটি টুকরো টুকরো হয়ে গেছে। বেশিরভাগ অংশই পুড়ে গেছে। তবে এর লেজ তখনও অক্ষত ছিল। লেজ থেকে ধোঁয়া বের হচ্ছিল।'

বিমানবন্দরের একটি জ্বালানি কোম্পানিতে কাজ করেন কৈলাস অধিকারী। বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার সময় তিনি ঘটনাস্থলেই ছিলেন। তার ভাষায়, পরপর দুইবার বিকট শব্দ হয়। শব্দের উৎসের খোঁজে এদিক-ওদিক তাকিয়ে বুঝতে পারি, বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। এর প্রায় ১৫ মিনিট পর অগ্নিনির্বাপকরা ঘটনাস্থলে আসেন। যদি তারা আরও আগে আসতে পারতেন, তবে আরও বেশি মানুষকে বাঁনো যেত।
নেইমারের অভিনয় ধরা পড়লো ভিডিওতে

নেইমারের অভিনয় ধরা পড়লো ভিডিওতে

নেইমারও ম্যাচের নায়ক হয়েছেন। কিন্তু পার্শ্ব নায়ক। তবে ম্যাচের ৭৮ ...

সেই ৬ জেব্রা এখন বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে

সেই ৬ জেব্রা এখন বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে

কক্সবাজারের চকরিয়ার বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক পেল আফ্রিকান ৬টি জেব্রা। শুক্রবার ...

বরিশালে গ্রিনলাইন-৩ বিকল

বরিশালে গ্রিনলাইন-৩ বিকল

বরিশাল-ঢাকা নৌপথের ওয়াটার ওয়েজ গ্রিনলাইন-৩ বিকল হয়ে পড়েছে। এতে করে ...

গণগ্রেফতার বন্ধের দাবি হাসান সরকারের

গণগ্রেফতার বন্ধের দাবি হাসান সরকারের

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটের পরিবেশ নির্বিঘ্ন করতে গণগ্রেফতার বন্ধের ...

দুর্দান্ত এক গোলে এগিয়ে গেল নাইজেরিয়া

দুর্দান্ত এক গোলে এগিয়ে গেল নাইজেরিয়া

ভোলগোগ্রাদে শুক্রবার রাত ন'টার ম্যাচে নাইজেরিয়ার জয় আর আইসল্যান্ডের হার ...

জিততে গিয়ে বদনাম যেন না হয়: প্রধানমন্ত্রী

জিততে গিয়ে বদনাম যেন না হয়: প্রধানমন্ত্রী

স্থানীয় সরকারের নির্বাচনসহ সংসদের উপনির্বাচনগুলোকে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠানে ...

বরিশাল থেকে ১৭ রুটে বাস ধর্মঘট চলছে

বরিশাল থেকে ১৭ রুটে বাস ধর্মঘট চলছে

ঝালকাঠি জেলা বাস মালিক সমিতির সঙ্গে বরিশাল, পটুয়াখালী ও বরগুনা ...

রাষ্ট্রপতিকে নন-এমপিও শিক্ষকদের স্মারকলিপি

রাষ্ট্রপতিকে নন-এমপিও শিক্ষকদের স্মারকলিপি

প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের দাবিতে রাষ্ট্রপতি ...