স্লিপ প্রকল্পের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

উত্তর বর্ণি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

প্রকাশ: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

বড়লেখা (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি

বড়লেখা উপজেলার উত্তর বর্ণি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের স্কুল লেভেল ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্টের (স্লিপ) ৪০ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা রুবিয়া বেগমের যোগসাজশে দেড় বছর আগে মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির সভাপতি রহিম উদ্দিন ও ছয় মাস আগে বদলি হয়ে যাওয়া প্রধান শিক্ষক আবদুল করিম গোপনে ব্যাংক থেকে এ টাকা তুলে আত্মসাৎ করেছেন বলে অভিযোগ বর্তমান স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিসহ অন্য সদস্য ও এলাকাবাসীর।

গত ১৭ ফেব্রুয়ারি স্কুলের প্রধান শিক্ষক আবদুল করিম বদলি হলে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকার দায়িত্ব পান তারই স্ত্রী সহকারী শিক্ষিকা রুবিয়া বেগম। আর প্রায় দেড় বছর আগে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ছিলেন রহিম উদ্দিন। তবে বর্তমান স্কুল ম্যানেজিং কমিটিকে অন্ধকারে রেখে তারা তিনজন গত ৩০ জুলাই ব্যাংক থেকে স্লিপের ৪০ হাজার টাকা উত্তোলন করেন। সোনালী ব্যাংক বড়লেখা শাখা তাদের তিনজনের স্বাক্ষরে টাকা উত্তোলনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তবে সরেজমিন গিয়ে স্লিপ প্রকল্পের টাকায় বিদ্যালয়ের কোনো উন্নয়ন কাজের অস্বিত্ব পাওয়া যায়নি। স্কুল ম্যানেজিং কমিটির বর্তমান সভাপতি আবদুল মোহিত জানান, তিনি শুনেছেন স্কুলের উন্নয়ন কাজের জন্য গত জুনে ৪০ হাজার টাকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে। এ টাকা উত্তোলনের জন্য ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকাকে বারবার তাগিদ দিলেও তিনি ব্যবস্থা নেননি।

এ ব্যাপারে স্কুল কমিটির সাবেক সভাপতি রহিম উদ্দিন বুদু জানান, আবদুল করিম গত ৩০ জুলাই ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা রুবিনা বেগমের নামে ৪০ হাজার টাকার একটি চেকে স্বাক্ষর নিতে তার কাছে গেলে তিনি স্বাক্ষর করে দেন। তিনি ব্যাংকে যাননি। তারাই টাকা তুলেছে। পরে টাকা দিয়ে তারা কী করেছে তা তিনি জানেন না।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা রুবিয়া বেগমের কাছে জানতে চাইলে তিনি অত্যন্ত মানসিক চাপে আছেন জানিয়ে কিছু বলতে রাজি হননি।

বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক আবদুল করিম টাকা আত্মসাতের বিষয় অস্বীকার করে জানান, চেকে তিনি স্বাক্ষর করেছেন তবে টাকা তুলেছেন বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা রুবিয়া বেগম। তিনি টাকাটা বিদ্যালয়ের কাজে ব্যয় করেছেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা (প্রাথমিক) রফিজ মিয়া বলেন, ফেব্রুয়ারি মাসে বদলি হওয়া প্রধান শিক্ষক ও দেড় বছর আগে মেয়াদ শেষ হওয়া কমিটির সভাপতির নামে এখনও স্কুলের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট বহাল এবং জুলাইয়ে টাকা তোলা আশ্চর্যজনক। তাদের স্বাক্ষরে স্কুলের টাকা উত্তোলন অবৈধ। তদন্তপূর্বক তিনি দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন।
স্বাধীনতার সুফল জনগণের ঘরে পৌঁছাতে কাজ করে যাচ্ছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী

স্বাধীনতার সুফল জনগণের ঘরে পৌঁছাতে কাজ করে যাচ্ছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলায় তার ...

শাহজালালে বিমান থেকে সাড়ে ৪ কেজি স্বর্ণ উদ্ধার

শাহজালালে বিমান থেকে সাড়ে ৪ কেজি স্বর্ণ উদ্ধার

ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করা একটি বিমান থেকে ...

ঢালাও নয়, বিএনপি সুস্পষ্ট অভিযোগ করেছে: ফখরুল

ঢালাও নয়, বিএনপি সুস্পষ্ট অভিযোগ করেছে: ফখরুল

'বিএনপি ঢালাও অভিযোগ করছে'— নির্বাচন কমিশনের এমন বক্তব্যের জবাবে বিএনপি ...

নেইমার-এমবাপ্পের চোট বড় নয়

নেইমার-এমবাপ্পের চোট বড় নয়

প্রীতি ম্যাচ খেলতে কাছাকাছি সময়ে মাঠে নেমেছিল ব্রাজিল এবং ফ্রান্স। ...

অজিদের কাছে হারে শুরু ভারতের

অজিদের কাছে হারে শুরু ভারতের

অস্ট্রেলিয়া সফর হার দিয়ে শুরু হলো ভারতের। টি২০ সিরিজ দিয়ে ...

'অতীত নিয়ে পড়ে নেই উইন্ডিজ'

'অতীত নিয়ে পড়ে নেই উইন্ডিজ'

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সর্বশেষ টেস্ট সিরিজটা ভালো যায়নি। ভারতের মাটিতে বড় ...

সন্দ্বীপে অপহৃত শিশুর খোঁজ মেলেনি ৩৬ ঘণ্টায়ও

সন্দ্বীপে অপহৃত শিশুর খোঁজ মেলেনি ৩৬ ঘণ্টায়ও

চট্টগ্রামের সন্দ্বীপে স্কুল ভ্যান থেকে নামিয়ে অপহরণ করা আট বছরের ...

প্রধানমন্ত্রীত্বকে জনগণের সেবা করার সুযোগ হিসেবে দেখি: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীত্বকে জনগণের সেবা করার সুযোগ হিসেবে দেখি: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের ধারা বজায় রাখার দৃঢ় সংকল্প ব্যক্ত ...