আটক হচ্ছে চুনোপুঁটি রাঘববোয়ালরা অধরা

প্রকাশ: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

মাহবুবুর রহমান টিপু, দোহার ও মো. ইব্রাহীম খলিল, নবাবগঞ্জ (ঢাকা)

সারাদেশে মাদকবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে দোহার ও নবাবগঞ্জ উপজেলায় অভিযান জোরদার হলেও শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীরা থেকে যাচ্ছে আড়ালেই। ধরা পড়ছে শুধু মাদকসেবী ও খুচরা বিক্রেতারা। মাসখানেক ধরে দুই উপজেলায় মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশের বিশেষ অভিযান চলছে। গত জুলাই থেকে এখন পর্যন্ত র‌্যাব-পুলিশের অভিযানে দোহারে অর্ধশতাধিক এবং নবাবগঞ্জে শতাধিক ব্যবসায়ী ও সেবনকারী গ্রেফতার হলেও পুলিশের তালিকার শীর্ষ কোনো ইয়াবা বা মাদক ব্যবসায়ী আটক হয়নি।

দুই উপজেলায় বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা ও র‌্যাব-পুলিশ মাদক ব্যবসায়ীদের আলাদাভাবে তালিকা তৈরি করে। এসব তালিকায় দোহার ও নবাবগঞ্জ উপজেলার উল্লেখযোগ্য বেশ কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ীর নাম রয়েছে। অনুসন্ধানে জানা যায়, দোহার-নবাবগঞ্জে ডজনখানেক শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী থাকলেও অভিযানে ধরা পড়ছে চুনোপুঁটি। সম্প্রতি ইকরাশির চক এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী সজল ও আসলামকে ১২৬ পিস ইয়াবাসহ আটকের সময় তাদের ছিনিয়ে নিতে অন্য মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এ সময় পুলিশ তিন রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়লে হামলাকারী মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় তিন পুলিশ সদস্য আহত হন।

আইনি ত্রুটি, রাজনৈতিক প্রভাব এবং পুলিশের তদন্তের দুর্বলতার কারণে মাদক ব্যবসায়ীরা জামিনে মুক্তি পেয়ে যায়। এমনকি মামলা থেকে খালাসও পায়। অপরাধীরা বারবার জামিন পাওয়ার পর প্রভাব খাটিয়ে মামলার সাক্ষীদের আদালতে হাজির হওয়া থেকে বিরত রাখা হয়। এভাবে অপরাধীরা শেষ পর্যন্ত খালাস পেয়ে যায়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন রাজনৈতিক কর্মী জানান, সম্প্রতি রাজনৈতিক দলের স্থানীয় পর্যায়ের কিছু প্রভাবশালী নেতার মদদে দোহার-নবাবগঞ্জে মাদকের কারবার চলছে। দোহার ও নবাবগঞ্জ উপজেলার কয়েকজন রাজনৈতিক পরিচয় ব্যবহার করে মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। মাদক নিয়ে লক্ষ্মীপ্রসাদ ও ইকরাশি এলাকায় আধিপত্য বিস্তারে হামলা-মামলার ঘটনাও ঘটছে।

এদিকে ঢাকার লালবাগ ও কামরাঙ্গীরচর এলাকার শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ীরা দোহারের জয়পাড়া ও চৌধুরীপাড়া এলাকায় আস্তানা গড়ে তুলেছে। আবার দোহার-নবাবগঞ্জে রাতারাতি গজিয়ে উঠা মাদকবিরোধী সংগঠনের সদস্য হয়ে অনেক মাদক ব্যবসায়ী সমাজে নিজেকে ভালো মানুষ হিসেবে প্রচারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দোহারের রাইপাড়া, জামালচর, শিলাকোঠা, বাহ্রা, নাগেরকান্দা, করিমগঞ্জ, চরকুশাই, খানবাজার, পালামগঞ্জ, পোদ্দারবাড়ী, লক্ষ্মীপ্রসাদ, লটাখোলাবিলেরপাড়, বেলদারপট্টি, চরজয়পাড়া, ওয়ানব্যাংক সড়ক, অবকাশ সিনেমা হলের গলি, ভূতের গলি, থানার মোড়, ঋষিপাড়া, ইকরাশি চটপটির দোকানের সামনে, চালনাই সড়ক, খাড়াকান্দা, উত্তর জয়পাড়া চৌধুরীপাড়া, ঝনকি, মালিকান্দা শ্মশানঘাট, মধুরচর, বিলাসপুর, মৈনট ঘাট, সুতারপাড়া, নিকড়া, নারিশা, উত্তর শিমুলিয়া, দক্ষিণ শিমুলিয়া, ফুলতলা, মুকসুদপুরসহ বেশ কয়েকটি স্থানে মাদকের কয়েকটি সিন্ডিকেট রয়েছে।

দোহার উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আলমাছ উদ্দিন বলেন, বড় বড় মাদক ব্যবসায়ী বা গডফাদাররা ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছে। তারা যাদের ব্যবহার করে, তারাই শুধু ধরা পড়ছে। বিচারের আওতার বাইরে থাকে মূল কারবারিরা। আবার যাদের গ্রেফতার করা হচ্ছে, তারাও আইনের ফাঁক দিয়ে জামিনে বেরিয়ে যাচ্ছে।

দোহার থানার ওসি মো. সাজ্জাত হোসেন বলেন, কাউকে ছাড় দিয়ে নয়, সব মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে অভিযান চালানো হচ্ছে। মাদক ব্যবসায় জড়িতরা যত ক্ষমতাধর হোক না কেন তাদের গ্রেফতার করা হবে। প্রথমে নিচের দিক থেকে গ্রেফতার করা হচ্ছে। পরে প্রমাণের ভিত্তিতে ওপরের দিকে গ্রেফতার করা হবে। নবাবগঞ্জ থানার ওসি মোস্তফা কামাল বলেন, নবাবগঞ্জে শতাধিক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে। তাদের মাদক আইনে মামলা দিয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। মাদক ব্যবসায়ী যেই হোক না কেন, তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

পরবর্তী খবর পড়ুন : ১৬ পুলিশ সুপার বদলি

লক্ষ্যের দিকে এগোচ্ছে ভারত

লক্ষ্যের দিকে এগোচ্ছে ভারত

ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশ সুপার ফোরে নিজেদের প্রথম ম্যাচের শুরুটা ভালো ...

বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা

বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা

বরিশালের উজিরপুর উপজেলার জল্লাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টুকে ...

খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ

খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা। ...

'নায়ক' গেলো সেন্সরে

'নায়ক' গেলো সেন্সরে

ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় নায়ক বাপ্পি ও নবাগতা অধরা খান জুটির ...

সোনাহাট স্থলবন্দরে শ্রমিকদের সংঘর্ষ, ১৪৪ ধারা জারি

সোনাহাট স্থলবন্দরে শ্রমিকদের সংঘর্ষ, ১৪৪ ধারা জারি

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলার সোনাহাট স্থলবন্দরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। ...

পাকিস্তানকে ভালো লক্ষ্য দিল আফগানরা

পাকিস্তানকে ভালো লক্ষ্য দিল আফগানরা

এশিয়া কাপে নিজেদের ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছে আফগানিস্তান। ভালো রান সংগ্রহ ...

চার জাতির টুর্নামেন্টে দর্শক মেসি

চার জাতির টুর্নামেন্টে দর্শক মেসি

আগামী মাসে সৌদি আরবে চার জাতির একটি টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে। ...

নির্বাচনের আগে সিনহা অপপ্রচারে উসকানি না দিলেও পারতেন: কাদের

নির্বাচনের আগে সিনহা অপপ্রচারে উসকানি না দিলেও পারতেন: কাদের

সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা নির্বাচনের আগে বই প্রকাশ ...