বিদ্যালয়ের জমি নিয়ে জালিয়াতির অভিযোগ

শিবগঞ্জ

প্রকাশ: ১৩ জানুয়ারি ২০১৮      

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি



চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার বিনোদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৭ শতক জমি বিনোদপুর ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষে জাল করার অভিযোগ উঠেছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহা. সাবিরুদ্দিন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও বিনোদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনামুল হকের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ এনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন দপ্তরে এ-সংক্রান্ত আবেদন করেছেন।

শিবগঞ্জ উপজেলার অন্যতম প্রাচীন একটি বিদ্যালয় বিনোদপুর উচ্চ বিদ্যালয়, যার দুটি মার্কেটসহ ৬২ বিঘা সম্পত্তি রয়েছে। বিনোদপুর বাজার সংলগ্ন ইউপি ভবন ও স্কুলের জমি হওয়ায় ইউনিয়ন পরিষদের জমি বাড়াতে ও মার্কেট নির্মাণের জন্য এ জালিয়াতির আশ্রয় নেওয়া হয় বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

আবেদন সূত্রে জানা গেছে, প্রাচীন এ বিদ্যালয়টির গত বছরের ১০ মে শিবগঞ্জ সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে বিনোদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ১১ একর জমির মধ্য থেকে বিনোদপুর মৌজার ১৭ শতক জমি ৮নং বিনোদপুর ইউনিয়ন পরিষদের অনুকূলে হস্তান্তর করা হয়।

গত বছরের ২৫ সেপ্টেম্বর বিনোদপুর ইউনিয়ন পরিষদকে জমি  দেওয়ার জন্য ম্যানেজিং কমিটির সভার সিদ্ধান্ত গৃহীত হলে তা  অনুমোদনের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আবদেন করা হয়। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ১৮ নভেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব সালমা জাহান

স্বাক্ষরিত একটি আদেশের মাধ্যমে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জমি দান বা বিনিময় বা বিক্রয়ের কোনো বিধান নেই- এ-সংক্রান্ত একটি বিধিমালার উদ্ৃব্দতি দিয়ে জমি হস্তান্তরে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। কিন্তু গত বছরের মে মাসে জমি হস্তান্তর দেখানো হয়।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক সাবিরুদ্দিন নিজেকে নির্দোষ দাবি করে জানান, তার অগোচরে স্বাক্ষর জাল করে বেআইনিভাবে তাকে না জানিয়ে বিদ্যালয়ের নামের ১৭ শতক জমি জাল করার পর তা আইনসিদ্ধ করতে এর কয়েক মাস পর ম্যানেজিং কমিটিতে জমি হস্তান্তরের বিষয়টি পাস করানো হয়।

বিনোদপুর ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষে হস্তান্তরিত জমির মালিক বিনোদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও বিনাদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের গভর্নিং বডির সভাপতি এনামুল হক ও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সাবিরুদ্দিনকে ভূমি অফিসে বিষয়টি জানার জন্য ডাকা হলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কোনো জমি হস্তান্তর করেননি বলে জানান।

স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য আবু সায়েম এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং প্রয়োজনে জমি উদ্ধারে আন্দোলনে যাওয়ার ঘোষণা দেন।

আর অভিযুক্ত বিনোদপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও বিনোদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের গভর্নিং বডির সভাপতি মো. এনামুল হক প্রথমে কথা বলতে না চাইলেও পরোক্ষভাবে এ জালিয়াতির কথা স্বীকার করেন।

শিবগঞ্জ সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. বরমান হোসেন জানান, বিনোদপুর ইউপি চেয়ারম্যানের একটি জমির খারিজের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিনোদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আপত্তি জানানোয় তা শুনানির পর্যায়ে আছে। অভিযোগকারী আদালতে দলিলের নকল তুলে দলিল বাতিলের আবেদন করলে তা আদালতেই নিষ্পত্তি হবে।

পরবর্তী খবর পড়ুন : শীতার্তদের পাশে যারা

আসছে ভোট, প্রস্তুত ইসি

আসছে ভোট, প্রস্তুত ইসি

একাদশ সংসদ নির্বাচনের লক্ষ্যে নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে তফসিল ঘোষণা এবং ...

আজ শুভ বিজয়া দশমী

আজ শুভ বিজয়া দশমী

সব পূজামণ্ডপের বাতাসেই এখন বিষাদের ছায়া। হিন্দু ধর্মাবলম্বী মানুষের ঘরে ...

দেখা হবে গানেই

দেখা হবে গানেই

আইয়ুব বাচ্চুকে আর চোখে দেখব না; তার গান শুনব খোলা ...

খাসোগির সন্ধানে 'জঙ্গলে তল্লাশি' পুলিশের

খাসোগির সন্ধানে 'জঙ্গলে তল্লাশি' পুলিশের

সৌদি রাজপরিবারের কঠোর সমালোচক সাংবাদিক জামাল খাসোগির অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছে ...

প্রিয়াঙ্কা-নিকের বিয়ে ডিসেম্বরেই

প্রিয়াঙ্কা-নিকের বিয়ে ডিসেম্বরেই

১০ বছরের ছোট মার্কিন সংগীত শিল্পী নিক জোনাসের সঙ্গে বাগদান ...

১০০ আসনে ছাড় দিতে পারে বিএনপি

১০০ আসনে ছাড় দিতে পারে বিএনপি

নির্বাচন ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে জোট সম্প্রসারণেরও উদ্যোগ নিচ্ছে ক্ষমতাসীন ...

জসীমের উচ্ছেদ খেলায় নিঃস্ব মানুষ ফেরত চায় জমি

জসীমের উচ্ছেদ খেলায় নিঃস্ব মানুষ ফেরত চায় জমি

কালিয়াকৈরে মূর্তিমান আতঙ্কের নাম ছিল বনখেকো জসীম ইকবাল। পরে তার ...

তৃতীয় সাবমেরিন কেবলে যুক্ত হচ্ছে বাংলাদেশ

তৃতীয় সাবমেরিন কেবলে যুক্ত হচ্ছে বাংলাদেশ

তৃতীয় সাবমেরিন কেবলে সংযুক্ত হচ্ছে বাংলাদেশ। চট্টগ্রাম থেকে সিঙ্গাপুর পর্যন্ত ...