জয়পুরহাট বিসিকে জমি সংকট

প্রকাশ: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

শাহারুল আলম, কালাই (জয়পুরহাট)

জয়পুরহাট বিসিক শিল্পনগরীতে জায়গা সংকটের কারণে বিনিয়োগ করতে পারছেন না উদ্যোক্তারা। এতে রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার। ১২ বছর আগে ১৫ একর জমির ওপর ব্যবসায়ীদের জন্য সরকারি উদ্যোগে গড়ে তোলা হয়েছে বিসিক শিল্পনগরী। বর্তমানে ওই স্থানে নতুন নতুন শিল্প কারখানা গড়ে ওঠায় জায়গার সংকট দেখা দিয়েছে। ফলে নতুন উদ্যোক্তারা জায়গা না পেয়ে বিনিয়োগ করতে পারছেন না এবং নতুন কোনো শিল্প কারখানা গড়ে উঠছে না।

বিসিক শিল্পনগরী জয়পুরহাট শহর থেকে প্রায় ৩ কিলোমিটার দূরে দাদড়া জন্তিগ্রাম এলাকায় ১২ বছর আগে ১৫ একর জমির ওপর গড়ে ওঠে। ওই পরিমাণ জমিতে ১১১টি প্লট তৈরি করে তা উদ্যোক্তাদের মাঝে বরাদ্দ দেওয়াও হয়েছে। শুরুর দিকে প্লট আকারে বিক্রি না হলেও পোলট্র্রি শিল্প সম্প্রসারণ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সম্ভাবনা বুঝতে পেরে জেলার অনেক ব্যবসায়ী কারখানা তৈরি করতে আগ্রহী হন। ফলে ২০০৭ সালের মধ্যে বরাদ্দকৃত সবক'টি প্লট মুহূর্তেই শেষ হয়ে যায়। বর্তমানে এ শিল্পনগরীতে ছোট-বড় মিলে ৪৭টি শিল্প কারখানা আছে। পোলট্র্রি ফিড, হ্যাচারি, জৈবসার কারখানা, পোলট্র্রি মেডিসিন কারখানা, মুড়ি তৈরির মিল, বস্তা তৈরিসহ বেশ কয়েক ধরনের শিল্প কারখানা গড়ে উঠেছে এই বিসিক শিল্পনগরীতে।

শহর থেকে একটু দূরে তাই কোলাহলমুক্ত, উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা, বিদ্যুৎ সুবিধাসহ উপযোগী পরিবেশ হওয়ায় অধিকাংশ ব্যবসায়ী এখন এ বিসিক শিল্পনগরীতে কারখানা তৈরি করতে আগ্রহী। কিন্তু জায়গা সংকটের কারণে নতুন উদ্যোক্তারা উদ্যোগ নিতে পারছেন না। তাদের দাবি, সরকারি উদ্যোগে জায়গার সংকট দূর করে দ্রুত বিসিক শিল্পনগরীকে সম্প্রসারণ করতে হবে এবং নতুন উদ্যোক্তাদের প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে সহযোগিতার পাশাপাশি এলাকার শিক্ষিত বেকার কর্মসংস্থান সৃষ্টি করে তাদের যুক্ত করতে হবে।

জেলা শহরের ব্যবসায়ী আবদুল বারী জানান, তারা ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা হিসেবে ছোট ছোট শিল্পকারখানা তৈরি করতে চান কিন্তু বিসিকে নতুন প্লট বা জায়গা না পাওয়ায় সেই উদ্যোগ নিতে পারছেন না।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিসিক এলাকায় ইতিমধ্যে যারা শিল্প কারখানা তৈরি করছেন তাদের কারখানা সম্প্রসারণের জন্য আরও প্লট দরকার। তাদের সংকট পূরণ তো করতেই পারছে না, আবার নতুনদেরও জায়গা হচ্ছে না। এ কারণে কারখানা সম্প্রসারণ এবং যুক্ত করা আদৌ সম্ভব হবে কি-না তা নিয়ে বিপাকে পড়েছেন উদ্যোক্তারা।

জয়পুরহাট চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালক বেদারুল ইসলাম বেদিন ও নিউ সওদাগর ফার্মেসির মালিক বাবু সওদাগর জানান, বিসিকে জায়গা সংকটের কারণে ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও অনেক নতুন উদ্যোক্তা শিল্প কারখানা করতে পারছেন না। বাধ্য হয়ে অনেকেই বিসিকের পাশে জমি কিনে শিল্প কারখানা তৈরি করছেন। এতে সরকার মোটা অঙ্কের রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। জায়গার সংকট দূর করতে তারা অনেক আগে থেকেই সরকারের ওপর মহলে জানিয়েছেন কিন্তু কাজ হয়নি।

জয়পুরহাট বিসিকের উপ-ব্যবস্থাপক (ভারপ্রাপ্ত) আকতারুল আলম চৌধুরী জানান, বিসিকে প্লট না থাকায় নতুন উদ্যোক্তারা শিল্প কারখানা গড়ে তুলতে পারছেন না আবার পুরাতনরাও সম্প্রসারণ করতে পারছেন না। জায়গা সংকটের বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। এ ছাড়া জয়পুরহাট-বগুড়া সড়কের বটতলী এলাকায় আরও একটি শিল্প নগরী তৈরির সুপারিশও করা হয়েছে।

পরবর্তী খবর পড়ুন : সংবাদ সংক্ষেপ

ভারতের শ্বাস রুদ্ধ করে ’টাই’ আফগানদের

ভারতের শ্বাস রুদ্ধ করে ’টাই’ আফগানদের

ভারত 'বধ' করেই ফেলেছিল আফগানিস্তান। কিন্তু ম্যাচটা শেষ পর্যন্ত টাই ...

পল্টন-সোহরাওয়ার্দী কোনোটাই পাচ্ছে না বিএনপি

পল্টন-সোহরাওয়ার্দী কোনোটাই পাচ্ছে না বিএনপি

আগামীকাল বৃহস্পতিবার প্রথমে রাজধানীতে জনসভা করার ঘোষণা দিয়েছিল বিএনপি। ওইদিন ...

শীর্ষ চার রুশ ব্লগার বাংলাদেশে

শীর্ষ চার রুশ ব্লগার বাংলাদেশে

বাংলাদেশের পর্যটন সম্ভাবনাকে রাশিয়ার জনগণের সামনে তুলে ধরা এবং দ্বিপক্ষীয় ...

ভূমিহীনের জন্য বরাদ্দ জমিতে বড়লোকের পুকুর

ভূমিহীনের জন্য বরাদ্দ জমিতে বড়লোকের পুকুর

মুক্ত জলাশয়ে মাছ ধরে তা বিক্রি করে সংসার চলতো ভূমিহীন ...

জাতীয় ঐক্যকে চাপে রাখবে আ'লীগ ও ১৪ দলীয় জোট

জাতীয় ঐক্যকে চাপে রাখবে আ'লীগ ও ১৪ দলীয় জোট

শুরুতে স্বাগত জানালেও জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া গঠন এবং সরকারবিরোধীদের নিয়ে ...

জিততেই হবে আজ

জিততেই হবে আজ

অতীতের ভুল তারা কখনোই স্বীকার করে না। মানতে চায় না ...

প্রশাসনে নির্বাচনী রদবদল

প্রশাসনে নির্বাচনী রদবদল

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রশাসন সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছে ...

বিএনপির সমাবেশের পর ঐক্যের লিয়াজো কমিটি

বিএনপির সমাবেশের পর ঐক্যের লিয়াজো কমিটি

আগামী শনিবার বিএনপির সমাবেশের পর 'বৃহত্তর জাতীয় ঐক্যের' লিয়াজো কমিটি ...