যুক্তরাষ্ট্রের হুমকিতে টলবে না আইসিসি

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

সমকাল ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার হুমকিতে টলবে না আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত (আইসিসি)। আফগানিস্তানে যুদ্ধাপরাধ সংঘটনের দায়ে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাদের বিচার করা হলে দেশটির নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন যে নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকি দিয়েছেন, তাতে ভীত নয় তারা। গতকাল মঙ্গলবার এ হুমকি উপেক্ষা করে আইসিসি জানিয়ে দিয়েছে, তারা তাদের কাজে অনড় থাকবে। খবর রয়টার্স ও এএফপির।

মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে হেগভিত্তিক এ আদালতের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, এটি স্বাধীন ও নিরপেক্ষ প্রতিষ্ঠান। ১২৩টি দেশের সমর্থন তাদের সঙ্গে রয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়, 'আইনের শাসনে পরিচালিত আদালত হিসেবে আইসিসি অবিচলভাবে কাজ করে যাবে। আইনের শাসনের ধারণা ও নীতিমালার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে কাজ করা হবে।' ২০০১ সালে যুক্তরাষ্ট্রে নাইন-ইলেভেন সন্ত্রাসী হামলার পর যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের নির্দেশে আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের অভিযান শুরু হয়। আনুষ্ঠানিকভাবে আফগানিস্তানে তালেবানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধাভিযান শেষ হয় ২০১৪ সালে। তবে যুক্তরাষ্ট্রে বিশেষ বাহিনী এখনও আফগান সেনাদের সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। গত বছর আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) প্রসিকিউটর ফাতৌ বেনসুদা বলেছিলেন, আফগানিস্তানে যে যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধ সংঘটিত হয়েছে তা 'বিশ্বাস করার মতো যৌক্তিক ভিত্তি' রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের সশস্ত্র বাহিনী ও গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএর সদস্যরাসহ আফগানযুদ্ধে লিপ্ত সব পক্ষের সংশ্নিষ্টতা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি। যুক্তরাষ্ট্র আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের সদস্য রাষ্ট্র নয়। গত সোমবার ওয়াশিংটনে রক্ষণশীল গোষ্ঠী ফেডারেলিস্ট সোসাইটিতে দেওয়া এক বক্তব্যে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতকে অবৈধ আখ্যা দেন। এ আদালতে মার্কিন সেনাদের বিচার প্রক্রিয়া শুরু করলে সেখানকার বিচারপতি ও প্রসিকিউটরদের ওপর যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপেরও হুমকি দেন তিনি।
ধানমণ্ডির সেই উন্মুক্ত স্থানে গড়ে উঠছে বহুতল ভবন

ধানমণ্ডির সেই উন্মুক্ত স্থানে গড়ে উঠছে বহুতল ভবন

গণপূর্ত বিভাগের নকশায় প্রথমে জায়গাটি ছিল দৃষ্টিনন্দন উন্মুক্ত স্থান। এই ...

সাকা পরিবার কোণঠাসা

সাকা পরিবার কোণঠাসা

গভীর সংকট অতিক্রম করছে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ফাঁসি হওয়া চট্টগ্রামের ...

মুস্তাফিজকে ছেড়ে দিল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স

মুস্তাফিজকে ছেড়ে দিল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স

ইন্ডিয়ার প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) দল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স তাদের দল থেকে ...

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বাংলাদেশকে দৃঢ় সমর্থন সুইস প্রেসিডেন্টের

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বাংলাদেশকে দৃঢ় সমর্থন সুইস প্রেসিডেন্টের

সুইজারল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট আঁলা বেরসে রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বাংলাদেশকে জোরালো সমর্থন ...

অনশন ভেঙেই পুনরায় পরীক্ষা চাইলেন আখতার

অনশন ভেঙেই পুনরায় পরীক্ষা চাইলেন আখতার

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত 'ঘ' ইউনিটে ফাঁস হওয়া প্রশ্নের ...

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমন্বয় ও স্টিয়ারিং কমিটি গঠন

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমন্বয় ও স্টিয়ারিং কমিটি গঠন

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমন্বয় ও স্টিয়ারিং কমিটি গঠন করা হয়েছে।রাজধানীর ধানমণ্ডিতে ...

ভারতে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত অন্তত ৫০

ভারতে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত অন্তত ৫০

ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের অমৃতসরে ট্রেনে কাটা পড়ে অন্তত ৫০ জন নিহত হয়েছে।অমৃতসরের যোধা ...

নিরাপত্তার স্বার্থেই ঐক্যফ্রন্টকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি: কাদের

নিরাপত্তার স্বার্থেই ঐক্যফ্রন্টকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি: কাদের

ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের নিরাপত্তার স্বার্থেই সিলেটে নবগঠিত জোটের প্রথম সমাবেশের অনুমতি ...