পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়

ভর্তিযুদ্ধ ২০১৮-১৯

প্রকাশ: ০৫ আগস্ট ২০১৮      

গোলাম কিবরিয়া

ভর্তিযুদ্ধ ২০১৮-১৯

শুরু হচ্ছে ভর্তিযুদ্ধ, শেষ সময়ের প্রস্তুতি কাজে লাগিয়ে এগিয়ে চলুন স্বপ্নের পথে ...-৭ ছবি : রাজিব পাল

শিক্ষার্থীদের সামনে এখন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিযুদ্ধ। স্বপ্নের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে এখনই সর্বশক্তি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। একাগ্রতা ও কঠোর পরিশ্রমেই আসতে পারে কাঙ্ক্ষিত সাফল্য।

আপনার লক্ষ্য

আমাদের দেশে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা সাধারণত মেডিকেল কলেজ বা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে চায়। কিন্তু বাস্তবে অধিকাংশের ঠিকানা হয় বিবিএ, আইন, সামাজিক বিজ্ঞান, অর্থনীতি, সাহিত্য, ইতিহাস, আন্তর্জাতিক সম্পর্কের মতো বিষয়গুলোতে। তাই দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন আনা প্রয়োজন। সামাজিক বা পারিবারিক চাপের কাছে হার না মেনে বরং প্রথমেই ঠিক করে নিন আপনার পছন্দের বিষয়টি। তারপর খুঁজে দেখুন, বাংলাদেশের কোন কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে সে বিষয়টি পড়ার সুযোগ রয়েছে। তাহলেই তৈরি হয়ে যাবে আপনার স্বপ্নের তালিকা।

পরিকল্পনা

ভর্তিযুদ্ধের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে প্রথমেই দরকার একটি সুন্দর পরিকল্পনা। যথার্থ পরিকল্পনার অভাবে অনেকের ভালো প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও শেষমেশ হতাশ হতে হয়। কয়েকটি বিষয়ে ভর্তিচ্ছুদের লক্ষ্য রাখা জরুরি।ভর্তিযুদ্ধের শুরুতেই অনেক শিক্ষার্থী বুঝে উঠতে পারে না কী পড়বে আর কী পড়বে না। অনেক পরীক্ষার্থীকেই দেখা যায় প্রথম অধ্যায়টা খুব মন দিয়ে পড়ছে; কিন্তু শেষের দিকের অংশটুকু রয়ে গেছে অধরা। তাই কলেজ জীবনে যে অধ্যায়গুলো ভালো করে পড়া হয়নি, এখন সেই অংশতেই দিতে হবে মনোযোগ। কোনো অংশ বাদ পড়ে গেলে তা লাল কলমে চিহ্নিত করে রাখুন। পরীক্ষার আগের দিনগুলোতে সেগুলো গুরুত্বসহকারে পড়তে পারবেন। ভর্তি পরীক্ষার জন্য আপনার বোর্ডের পাঠ্যবইগুলো হবে সবচেয়ে বড় সহায়ক। হাল ছেড়ে দেওয়া চলবে না। অনেকেই অন্য বন্ধুদের ভালো প্রস্তুতি এবং সাফল্য দেখে হতাশ হয়। তাই হতাশ না হয়ে চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে।

পরীক্ষার হল সতর্কতা

পরীক্ষার হলে ক্যালকুলেটর ব্যবহার, প্রশ্নের মানবণ্টন, উত্তরপত্রে সেটকোড লেখার মতো বিষয়গুলোতে ভুল করলে স্বপ্ন ভঙ্গ হয়ে যেতে পারে। তাই পরীক্ষা-প্রক্রিয়ার সবকিছু জানতে হবে। প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের মানবণ্টন, সময়, নিয়ম-কানুন কিছুটা ভিন্ন। সংশ্নিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে সেই তথ্য এখনই সংগ্রহ করে রাখুন।

অনুশীলন

অনুশীলনই সৃষ্টি করে আত্মবিশ্বাস। পরীক্ষার অনুরূপ প্রশ্নপত্রে নিয়মিত বাসায় বসে পরীক্ষা দিতে থাকলে পরীক্ষার হল সম্পর্কে একটা ভালো ধারণা তৈরি হয়ে যায়। সুস্থ থাকার জন্য আলাদা নজর দিতে হবে। এখন গ্রীষ্ফ্মকালে ভাইরাসজনিত অসুখ-বিসুখ ছড়িয়ে পড়বে, বিশেষ করে খাবার পানির ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে। দৈনিক আট ঘণ্টা নিরবচ্ছিন্ন ঘুম ভর্তিযুদ্ধের জন্য খুবই দরকার।

মাথায় রাখবেন
 
-যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে আগ্রহী, প্রথমেই সেগুলোর একটি তালিকা করে ফেলা দরকার।
 
-প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষায় স্বতন্ত্র কিছু নিয়ম মেনে চলে। কাজেই বিশ্ববিদ্যালয় ভেদে প্রস্তুতি খানিকটা আলাদা হওয়া বাঞ্ছনীয়।
 
-ভর্তির ক্ষেত্রে নিজের আগ্রহকে প্রাধান্য দেওয়া উচিত সবচেয়ে আগে। অনেককেই দেখা যায় নিজের ইচ্ছার চেয়ে বাবা-মা-আত্মীয়-স্বজনদের ইচ্ছাকে প্রাধান্য দেয়। মনের বিরুদ্ধে প্রস্তুতি নিলে তাতে সাফল্য নাও আসতে পারে।
 
-বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা বেশি দোটানায় ভোগেন। পরিবারের কেউ হয়তো তাকে ভবিষ্যতে চিকিৎসক হিসেবে দেখতে চান। কেউবা আবার ইঞ্জিনিয়ার। তাদের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানের বিষয়গুলোতেও পড়ার সুযোগ থাকে। অনেককে দেখা যায় একই সঙ্গে একাধিক বিষয়ে ভর্তির প্রস্তুতি নিতে। এতে হিতে বিপরীত হওয়ার আশঙ্কা থাকে।
 
-ভালো গাইডলাইন অবশ্যই অনুসরণ করতে হবে। তা না হলে প্রস্তুতিতে বড় রকমের ঘাটতি থেকে যায়।
 
-নিজের সামর্থ্যের যাচাই করে লক্ষ্য ঠিক করা উচিত। লক্ষ্য অনুযায়ী পরিকল্পনা সাজিয়ে অগ্রসর হলে সাফল্য অর্জনের পথ সহজ হয়।

শেষ কথা

আমাদের আশপাশেই অনেক সফল মানুষ আছেন যারা পছন্দের প্রতিষ্ঠানে পড়তে পারেননি। কিন্তু জীবনে ঠিকই সফল হয়েছেন। কারণ তারা যে বিষয়ে ভর্তি হয়েছেন তা উপভোগ করেছেন। নিজের লক্ষ্যের দিকে এক মনে ছুটেছেন। পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে না পারলেই জীবনের সবকিছু শেষ হয়ে যায় না। এই বিষয়টা মাথায় রেখে অধ্যবসায় চালিয়ে যেতে হবে। প্রতিটি শিক্ষার্থী এগিয়ে যাক নিজ লক্ষ্য অর্জনে রইল এই শুভকামনা।
শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নির্বাচনে যেতে চায় বিএনএ

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নির্বাচনে যেতে চায় বিএনএ

বিএনপির সাবেক মন্ত্রী ও তৃণমূল বিএনপির চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার নাজমুল হুদার ...

কালাইয়ে বেড়েছে কিডনি বিক্রি

কালাইয়ে বেড়েছে কিডনি বিক্রি

জয়পুরহাটের কালাই উপজেলায় অভাবী মানুষের কিডনি বেচাকেনা আবারও বেড়েছে। অভাবের ...

চট্টগ্রামে মহড়া, অস্ত্রধারী ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার

চট্টগ্রামে মহড়া, অস্ত্রধারী ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার

চট্টগ্রাম কলেজে ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণাকে কেন্দ্র করে গত বুধবার দু'পক্ষের ...

জেএমবিকে অর্থ জোগাচ্ছে জঙ্গি শায়খের পরিবার

জেএমবিকে অর্থ জোগাচ্ছে জঙ্গি শায়খের পরিবার

নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামা'আতুল মুজাহিদীন অব বাংলাদেশকে (জেএমবি) চাঙ্গা ...

রাত ১১টার পর ফেসবুক বন্ধ করে দেয়া উচিত: রওশন

রাত ১১টার পর ফেসবুক বন্ধ করে দেয়া উচিত: রওশন

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক রাত ১১টার পর বন্ধ করে দেয়া ...

আফগানদের কাছে বড় হার বাংলাদেশের

আফগানদের কাছে বড় হার বাংলাদেশের

আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটা বাংলাদেশ প্রস্তুতি হিসেবে নিচ্ছে। এমন একটা কথা ...

বিশ্বে প্রতি ৫ সেকেন্ডে ১ শিশুর মৃত্যু: জাতিসংঘ

বিশ্বে প্রতি ৫ সেকেন্ডে ১ শিশুর মৃত্যু: জাতিসংঘ

ইউনিসেফ, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও), জাতিসংঘের জনসংখ্যা বিভাগ ও বিশ্ব ...

বাবাকে বাঁচাতে গিয়ে ৬ বছরের শিশুর মৃত্যু

বাবাকে বাঁচাতে গিয়ে ৬ বছরের শিশুর মৃত্যু

লিজা আক্তার। বয়স মাত্র ৬ বছর। চোখের সামনে বাবা ট্রেনে ...