শ্বাসনালির সংক্রমণে করণীয়

প্রকাশ: ০৫ আগস্ট ২০১৮      

ডা. আবু রায়হান, সহযোগী অধ্যাপক, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ও মিটফোর্ড হাসপাতাল

শ্বাসযন্ত্রের ওপরের অংশ তথা নাক থেকে শুরু করে ব্রঙ্কাস পর্যন্ত অংশের সংক্রমণকে স্বল্পমেয়াদি শ্বাসনালির সংক্রমণ বলা হয়। সাধারণত এ জাতীয় সংক্রমণ ৭ দিন পর্যন্ত স্থায়ী হয়ে থাকে। তাই এদের স্বল্পমেয়াদি সংক্রমণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়ে থাকে। শ্বাসনালি অনেকগুলো অংশের সমন্বয়ে গঠিত। যেমন- নাক, ফ্যারিংস, ল্যারিংস, ট্রাকিয়া, ব্রঙ্কাস। এর সবগুলো স্বল্পমেয়াদি সংক্রমণের আওতায় পড়ে। সংক্রমণজনিত রোগগুলোর মধ্যে সাধারণ সর্দি-কাশি, স্বল্পমেয়াদি ফ্যারিনজাইটিস ও টনসিলাইটিস, ল্যারিনজাইটিস, সাইনোসাইটিস, ব্রঙ্কাইটিস অন্যতম। গঠনগত দিক থেকে এই অংশগুলোর মিল থাকায় সংক্রমণজনিত অংশগুলোর উপসর্গগুলোর মধ্যে অনেকটাই মিল দেখা যায়।

যে কোনো বয়সের নারী বা পুরুষ ব্রঙ্কাইটিস সংক্রমণে আক্রান্ত হতে পারে। তবে শিশু ও বৃদ্ধদের মধ্যে এ জাতীয় সংক্রমণের প্রকোপ সবচেয়ে বেশি। এ ছাড়া অন্য কোনো রোগে মারাত্মকভাবে অসুস্থ ব্যক্তিও সহজেই এ সংক্রমণে আক্রান্ত হতে পারে। ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস উভয় প্রকার জীবাণু দ্বারাই ব্রঙ্কাইটিস সংক্রমণ হতে পারে। তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রে ভাইরাসজনিত সংক্রমণই দায়ী। সবচেয়ে বেশি ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস এর জন্য দায়ী।

রোগী সাধারণত হাঁচি, নাক দিয়ে পানি পড়া, নাক বন্ধ হয়ে থাকা, দুর্বলতা বোধ করা, জ্বর জ্বর ভাব বা মাংসপেশির ব্যাথা নিয়ে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে পারে। পরে রোগীর কাশি শুরু হয়। কাশিতে সাধারণত শুস্ক বা অল্প কফ বের হতে পারে। অনেক সময় কফের সঙ্গে সামান্য রক্ত আসতে পারে, যা রোগীকে অনেক সময় আতঙ্কিত করে তোলে। তবে এ রোগে সাধারণত শ্বাসকষ্ট হয় না। যে কারণে বুক পরীক্ষা করলে তেমন সুনির্দিষ্ট কোনো সমস্যা পাওয়া যায় না।

অধিকাংশ ক্ষেত্রে রোগের লক্ষণগুলো বিচার করে স্বল্পমেয়াদি ব্রঙ্কাইটিস রোগ নির্ণয় করা যায়। অধিকাংশ সময়েই কোনো পরীক্ষা-নিরীক্ষার প্রয়োজন হয় না।

তবে কফের সঙ্গে রক্ত গেলে বুকের এক্সরে বা ব্রঙ্কোসকপির সাহায্যে রক্ত যাওয়ার কারণ নির্ণয়ের চেষ্টা করা উচিত। উপসর্গভিত্তিক চিকিৎসাই এ রোগের জন্য যথেষ্ট। যেমন- নাক দিয়ে পানি পড়া, শুস্ক কাশি, হাঁচি ইত্যাদি উপসর্গের জন্য কোডিন জাতীয় ওষুধ ভালো কাজ করে। বাজারে কফ প্রদায়ী যেসব সিরাপ আছে, সেগুলো এ রোগের চিকিৎসায় তেমন কোনো কাজে আসে না। তবে কাশির সঙ্গে হলুদ বা হলদেটে কফ গেলে অ্যান্টিবায়োটিকের সাহায্য নেওয়া ভালো। সর্বোপরি চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী রোগীর চিকিৎসা ও ওষুধ সেবন  করা উচিত।
ছাত্রী প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় মাকে কুপিয়ে হত্যা

ছাত্রী প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় মাকে কুপিয়ে হত্যা

চট্টগ্রামে ছাত্রী প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বাসায় ঢুকে তার ...

চীনে বিড়ম্বনায় ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’

চীনে বিড়ম্বনায় ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’

মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতায় সেরার মুকুট করে ঐশী এখন অংশ ...

চট্টগ্রামে রেকর্ডের সামনে সাকিব-মুশফিকরা

চট্টগ্রামে রেকর্ডের সামনে সাকিব-মুশফিকরা

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির সিরিজ গেছে টাইগারদের। শুরুতে সফরকারীদের কাছে টেস্ট ...

ঢাবিতে বিআরটিসি বাসের নিচ থেকে নবজাতক উদ্ধার

ঢাবিতে বিআরটিসি বাসের নিচ থেকে নবজাতক উদ্ধার

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের কার্জন হলের সামনের সড়কে পার্কিং করা বিআরটিসি ...

স্কাইপি আবার চালু

স্কাইপি আবার চালু

দেশে হঠাৎ করে বন্ধ হওয়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম স্কাইপি আবার ...

চট্টগ্রাম টেস্টে বাদ পড়ছেন কে?

চট্টগ্রাম টেস্টে বাদ পড়ছেন কে?

জিম্বাবুয়ে সিরিজের সপ্তাহখানেক বাদেই মাঠে নামছে বাংলাদেশ দল। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ...

নৌবাহিনীর ঘাঁটিতে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে নিহত ৩

নৌবাহিনীর ঘাঁটিতে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে নিহত ৩

খুলনা মহানগরীর খালিশপুরে নৌবাহিনীর তিতুমীর ঘাঁটিতে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে ...

বিয়ের প্রস্তাবের সাক্ষী একদল বেজিও!‍

বিয়ের প্রস্তাবের সাক্ষী একদল বেজিও!‍

জীবনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা বিয়ে। সেই বিয়ের প্রস্তাবকে স্মরণীয় করে ...