'নাট্যদলগুলোতে বেসরকারি বিনিয়োগ প্রয়োজন'

প্রকাশ: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

মঞ্চসারথি আতাউর রহমান। লেখক, অভিনেতা ও নির্দেশক। সম্প্রতি তিনি মহিদুল ইসলাম স্মৃতিপদক অর্জন করেন। এই সম্মানসূচক অর্জন এবং নাটকের বর্তমান প্রেক্ষাপট নিয়ে কথা হলো তার সঙ্গে-

সৈয়দ মহিদুল ইসলাম স্মৃতিপদক কতটা অনুপ্রেরণা জাগাবে?

পদক প্রাপ্তি সবসময় আনন্দের। অল্পবয়সে মুনীর চৌধুরী পুরস্কার পেলাম। এর ধারাবাহিকতায় একসময় একুশে পদকও অর্জন করলাম। জীবনবাদী মানুষ হিসেবে স্বীয় কর্মের জন্য সম্মানিত হলে অবশ্যই ভালো লাগা কাজ করে। সৈয়দ মহিদুল ইসলাম প্রথিতযশা অভিনেতা ও নির্দেশক ছিলেন। প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামা থেকে স্নাতকোত্তর অর্জন করেন। ভারত থেকে দেশে ফিরেও তিনি নিমগ্নচিত্তে নাট্যচর্চা করে গেছেন। যে কোনো শিল্পেই সফলতার জন্য নিমগ্ন থাকা গুরুত্বপূর্ণ। মহিদুল ইসলামের সঙ্গে তার জীবদ্দশায় সবসময় হৃদ্যতার সম্পর্ক ছিল। এ সম্মাননা তাই অনেক ভালো লাগার ব্যাপার।

লেখক, অভিনেতা ও নির্দেশক। তিনটি আলাদা সত্তার মেলবন্ধন কীভাবে হলো?

এখন পর্যন্ত আমার ১৭-১৮টি বই প্রকাশিত হয়েছে। 'মঞ্চসারথির কাব্যগাথা' শিরোনামে একটি কবিতার বইও বেরিয়েছে। সামনে আরও কিছু বই প্রকাশ হবে। সম্প্রতি অনেক কবিতা লিখলেও ব্যক্তিগতভাবে নির্দেশনায় বেশি আনন্দ পাই। নতুন কিছু দেখলেই প্রবল জানার কৌতূহল এখনও আমার আছে। আমি বৈচিত্র্য সন্ধানী মানুষ। শিল্পের যে মাধ্যমেই কাজ করি না কেন সবসময় জীবনের গভীরতর সত্যকে প্রকাশ করতে চাই। শিল্প যদি মানুষকে না ভাবায়, তাৎক্ষণিকভাবে ভুলে যায়, তাহলে সেটির মধ্যে কোনো প্রাপ্তি থাকে না। আমার নির্দেশিত নাটক 'রুদ্র রবি ও জালিয়ানওয়ালাবাগ' বাংলার মাটি বাংলার জল, 'নারীগণ' প্রভৃতি নাটকে এ বিষয়টির প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে।

অভিনয় জীবনের প্রাপ্তি ও অপ্রাপ্তির কথা বলুন?

আমার কোনো অপ্রাপ্তি নেই। প্রত্যাশার চেয়ে পেয়েছি অনেক বেশি। একুশে পদকসহ নানা সম্মাননা পেয়েছি। আর সব থেকে যেটি বড়, মানুষের আকুণ্ঠ ভালোবাসা এখনও ভালো কাজের জন্য নিজের মধ্যে অনুপ্রেরণা জোগায়।

থিয়েটারে করপোরেট প্রতিষ্ঠানের কতটুকু প্রয়োজন বলে মনে করেন?

শিল্পকলা একাডেমির হল বরাদ্দ কমিটির বয়োজ্যেষ্ঠ হিসেবে দায়িত্বে আছি। প্রথম দিকে করপোরেট কোম্পানি 'গ্রে' যখন হলের জন্য আবেদন করে তখন আমরা আপত্তি জানাই। এরপর আরেক প্রতিষ্ঠান 'বিটুপী' যখন আবেদন করেছিল তখনও তাদের হল বরাদ্দ দিইনি। কারণ দেশে এতগুলো থিয়েটার, তারাই যেখানে হল পাচ্ছে না, সেখানে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানকে কীভাবে সুযোগ দিব। এরপর তো 'আইডিএলসি' নাট্যউৎসব করল। প্রথম দিকে এ উৎসবটির প্রতি আমার সমর্থন ছিল না। এর পেছনে নিজস্ব কিছু যুক্তিও ছিল। শিল্পকলায় যদি হ্যামলেটের প্রদর্শনী হয় তাহলে উত্তরার একজন দর্শক যানজটজনিত সমস্যার কারণে কীভাবে তা উপভোগ করবেন। কিন্তু বাংলার মাটি বাংলার জল প্রদর্শনীর সময় দেখলাম সাধারণত যেসব দর্শক মঞ্চনাটক দেখতে আসে না তারাই প্রদর্শনী দেখতে এসেছে। এটি ভীষণ ইতিবাচক দিক। তবে ব্যক্তিগতভাবে মনে করি করপোরেট প্রতিষ্ঠানগুলো শুধু প্রদর্শনী করার জন্য বিনিয়োগ না করে নাট্যদলগুলোর জন্যও যদি অর্থলগ্নি করত তাহলে আরও বেশি সুফল পাওয়া যেত। তাই 'আইডিএলসি' উৎসব নিয়ে অনেকের ভিন্নমত থাকলেও বৃহৎ অর্থে চিন্তা করলে এ উৎসব নেতিবাচক কিছু না।

পরবর্তী খবর পড়ুন : জাহানারার লড়াই

ভারতের শ্বাস রুদ্ধ করে ’টাই’ আফগানদের

ভারতের শ্বাস রুদ্ধ করে ’টাই’ আফগানদের

ভারত 'বধ' করেই ফেলেছিল আফগানিস্তান। কিন্তু ম্যাচটা শেষ পর্যন্ত টাই ...

পল্টন-সোহরাওয়ার্দী কোনোটাই পাচ্ছে না বিএনপি

পল্টন-সোহরাওয়ার্দী কোনোটাই পাচ্ছে না বিএনপি

আগামীকাল বৃহস্পতিবার প্রথমে রাজধানীতে জনসভা করার ঘোষণা দিয়েছিল বিএনপি। ওইদিন ...

শীর্ষ চার রুশ ব্লগার বাংলাদেশে

শীর্ষ চার রুশ ব্লগার বাংলাদেশে

বাংলাদেশের পর্যটন সম্ভাবনাকে রাশিয়ার জনগণের সামনে তুলে ধরা এবং দ্বিপক্ষীয় ...

ভূমিহীনের জন্য বরাদ্দ জমিতে বড়লোকের পুকুর

ভূমিহীনের জন্য বরাদ্দ জমিতে বড়লোকের পুকুর

মুক্ত জলাশয়ে মাছ ধরে তা বিক্রি করে সংসার চলতো ভূমিহীন ...

জাতীয় ঐক্যকে চাপে রাখবে আ'লীগ ও ১৪ দলীয় জোট

জাতীয় ঐক্যকে চাপে রাখবে আ'লীগ ও ১৪ দলীয় জোট

শুরুতে স্বাগত জানালেও জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া গঠন এবং সরকারবিরোধীদের নিয়ে ...

জিততেই হবে আজ

জিততেই হবে আজ

অতীতের ভুল তারা কখনোই স্বীকার করে না। মানতে চায় না ...

প্রশাসনে নির্বাচনী রদবদল

প্রশাসনে নির্বাচনী রদবদল

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রশাসন সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছে ...

বিএনপির সমাবেশের পর ঐক্যের লিয়াজো কমিটি

বিএনপির সমাবেশের পর ঐক্যের লিয়াজো কমিটি

আগামী শনিবার বিএনপির সমাবেশের পর 'বৃহত্তর জাতীয় ঐক্যের' লিয়াজো কমিটি ...