হার্ডডিস্ক নষ্ট হওয়ার লক্ষণ

প্রকাশ: ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

টেকলাইন প্রতিবেদক

ডিজিটাল কনটেন্ট যেমন- ফটো, মুভি, গেম, সফটওয়্যার; যা আমরা সবসময় সংরক্ষণ করতে চাই। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এসব কনটেন্ট বৃদ্ধি পেতে পেতে কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক স্পেস সীমিত হয়ে আসে। ফলে এক্সটার্নাল হার্ডডিস্ক ব্যবহারের প্রয়োজন পড়ে। ইন্টারনাল বা এক্সটার্নাল হার্ডডিস্ক ব্যবহারের নির্দিষ্ট মেয়াদ থাকে। কম্পিউটারের ইন্টারনাল হার্ডডিস্কের মেয়াদ সাধারণত গড়ে পাঁচ থেকে ১০ বছর হয়ে থাকে আর এক্সটার্নাল হার্ডডিস্কের ক্ষেত্রে তা তিন থেকে পাঁচ বছর হয়ে থাকে; তাপমাত্রা, আর্দ্রতা বা অন্যান্য বাহ্যিক পরিপ্রেক্ষিত ছাড়া।

তবে এক্সটার্নাল হার্ডডিস্ক সহজে বহনযোগ্য হওয়ায় নিয়মিত ব্যবহারে মেয়াদ আরও কমতে পারে। হার্ডড্রাইভ বা হার্ডডিস্ক নষ্ট হওয়ার আগে কিছু পূর্ব লক্ষণ দেখা যায়। এসব লক্ষণ দেখলে মূল্যবান ডাটা সংরক্ষণে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিন।

ষ হার্ডডিস্ক নষ্ট হওয়ার সম্ভাব্য লক্ষণের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে, কম্পিউটার ধীরগতি হয়ে পড়া, বারবার হ্যাং করা কিংবা কম্পিউটার চালুর পর নীল স্ট্ক্রিনে সতর্কবার্তা পাওয়া। এই লক্ষণ সবসময় যে কেবল হার্ডডিস্কের কার্যক্ষমতা কমে যাওয়ায় হবে তা নয়, অন্য কারণেও হতে পারে। কিন্তু নতুন ইনস্টলেশন বা উইন্ডোজ সেফ মোডেও এ লক্ষণ দেখা গেলে নিশ্চিতভাবে তা হার্ডডিস্ক সমস্যার ইঙ্গিত।

ষ কোনো ঝামেলা ছাড়া ফাইল সেভ করা হলেও, ফাইল ওপেন করতে না পারা কিংবা ফাইল করাপ্ট হয়ে যাওয়া অথবা ফাইল উধাও হয়ে যাওয়া হচ্ছে হার্ডডিস্ক নষ্ট হওয়ার আরেকটি লক্ষণ।

ষ প্রচুর ব্যাড সেক্টর থাকা হার্ডডিস্ক ধীরে ধীরে নষ্ট হয়ে যাওয়ার আরেকটি ইঙ্গিত। হার্ডডিস্কের সেক্টরগুলোয় অপারেটিং সিস্টেম স্বয়ংক্রিয়ভাবে ব্যাড সেক্টর চেক করে। কিন্তু ডিস্ক বেশি ব্যবহূত থাকলে, ব্যাড সেক্টর শনাক্ত কঠিন হয়ে পড়ে। আপনি চাইলে ম্যানুয়ালি ব্যাড সেক্টর চেক করতে পারেন।

ষ হার্ডডিস্ক থেকে অদ্ভুত ধরনের সাউন্ডের পুনরাবৃত্তি হতে থাকলে ধরে নিতে পারেন আপনার ডিভাইস নষ্ট হওয়ার দ্বারপ্রান্তে রয়েছে।

হার্ডডিস্ক নষ্ট হওয়ার মতো ঘটনায় আমাদের সাধারণত পূর্ব প্রস্তুতি থাকে না। তাই গুরুত্বপূর্ণ ডাটা হারানো এড়াতে আগেভাগেই অন্য একটি হার্ডডিস্কে ডাটা ব্যাকআপ রাখা উচিত। কারণ একসঙ্গে একাধিক হার্ডডিস্ক নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা কম। ক্লাউড স্টোরেজেও ডাটা ব্যাকআপ রাখতে পারেন।

পরবর্তী খবর পড়ুন : অনলাইনে আয় সেরা ১০ উপায়

তপ্ত দুবাইয়ে আরও উত্তপ্ত ম্যাচ

তপ্ত দুবাইয়ে আরও উত্তপ্ত ম্যাচ

বাংলাদেশি ট্যাক্সিচালক জামিল জানালেন, বাইরে এখন ৪৬ ডিগ্রি তাপমাত্রা। পরিচয় ...

দুর্গাপূজা উপলক্ষে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও নজরদারি

দুর্গাপূজা উপলক্ষে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও নজরদারি

দুর্গাপূজা উপলক্ষে সারাদেশে পর্যাপ্ত নিরাপত্তার পাশাপাশি যাতে কোনো গোষ্ঠী সাম্প্রদায়িক ...

আফজাল শরীফের চিকিৎসায় ২০ লাখ টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

আফজাল শরীফের চিকিৎসায় ২০ লাখ টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

দীর্ঘ ৪ বছর ধরে মেরুদণ্ড, কোমর ও হাড়ের ব্যথায় ভুগছেন ...

শহিদুলের জামিনের শুনানি হতে পারে আগামী সপ্তাহে

শহিদুলের জামিনের শুনানি হতে পারে আগামী সপ্তাহে

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলায় গ্রেফতার আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের ...

সালমান শাহকে স্মরণ করে যা বললেন ঋতুপর্ণা

সালমান শাহকে স্মরণ করে যা বললেন ঋতুপর্ণা

'নায়ক সালমান শাহ বাংলা ছবির অমর নায়ক। তাকে নিয়ে অনেক ...

রাজপথের মাধ্যমেই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে: মওদুদ

রাজপথের মাধ্যমেই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে: মওদুদ

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ বলেছেন, রাজপথের মাধ্যমেই দলের ...

লেবাননের জালে ৮ গোল বাংলাদেশের মেয়েদের

লেবাননের জালে ৮ গোল বাংলাদেশের মেয়েদের

এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ বাছাইপর্বের ম্যাচে কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোহাম্মদ মোস্তফা ...

শিশু আকিফা হত্যা মামলায় বাসচালক ২ দিনের রিমান্ডে

শিশু আকিফা হত্যা মামলায় বাসচালক ২ দিনের রিমান্ডে

শিশু আকিফা হত্যা মামলার প্রধান আসামি গঞ্জেরাজ পরিবহনের বাসের চালক ...