রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ছড়াচ্ছে ডিপথেরিয়া

তিন হাজারের বেশি আক্রান্ত শিশুসহ মৃত্যু ৩০ জনের

প্রকাশ: ০৯ জানুয়ারি ২০১৮      

মুহাম্মদ হানিফ আজাদ, উখিয়া (কক্সবাজার)

ফাইল ছবি


উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ৫ নম্বর মেডিকেল সেন্টারে পাঁচ বছরের ছেলে শফিউলের চিকিৎসার জন্য এসেছেন ফাতেমা বেগম (৩০) নামে এক রোহিঙ্গা নারী। তিনি জানান, ছেলেটি এক সপ্তাহ ধরে অসুস্থ। কিছুতেই তার জ্বর কমছে না। একই সঙ্গে সর্দি-কাশিও লেগে আছে। অনেকবার ডাক্তার দেখিয়েছেন। ওষুধ নিতে আবারও ডাক্তারের কাছে এসেছেন।

চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, শফিউল ডিপথেরিয়ায় আক্রান্ত। রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে শফিউলের মতো অনেকেই আক্রান্ত হচ্ছে এই ছোঁয়াচে রোগে। গত নভেম্বরে প্রথম ১০৮ জন ডিপথেরিয়া রোগী শনাক্ত করা হয় ক্যাম্পগুলোতে। এর পর থেকে এ পর্যন্ত সেখানে ডিপথেরিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা তিন হাজার ২০০ ছাড়িয়েছে। শিশুসহ মোট ৩০ জন মারা গেছে প্রাণঘাতী ডিপথেরিয়ায়। তাই আতঙ্ক বেড়েছে ক্যাম্পগুলোতে। তবে ডিপথেরিয়ার লক্ষণগুলো শীতজনিত অন্যান্য রোগের মতো বলে অনেকেই বুঝতে পারছে না, তারা ডিপথেরিয়ায় আক্রান্ত কি-না। ফলে চিকিৎসাসেবার আওতায় আসছে না অনেকেই।

শরণার্থী শিবিরগুলোতে ডিপথেরিয়া আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে জানিয়ে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নিকারুজ্জামান বলেন, ডিপথেরিয়ায় আক্রান্তদের চিকিৎসায় ব্রিটিশ ইমারজেন্সি মেডিকেল টিম কাজ করছে। উখিয়া ও টেকনাফের ১২টি ক্যাম্পে অনেক মেডিকেল ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। এসব ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের পাশাপাশি স্থানীয়দের চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছে। একই ভাবে উখিয়ার হাসপাতালেও রোহিঙ্গাদের জন্য বাড়তি আসনের ব্যবস্থা  করা হয়েছে।

কক্সবাজারের সিভিল সার্জন ডাক্তার আবদুস সালাম বলেন, 'এই রোগে নতুন করে যাতে কোনো রোহিঙ্গা ও স্থানীয় বাসিন্দা আক্রান্ত না হতে পারে, সেজন্য এরই মধ্যে দুই লাখ ৫০ হাজার ৬০৭ রোহিঙ্গাকে টিকা দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি ১ জানুয়ারি ৩০ হাজার স্থানীয়কে টিকা দেওয়া হয়েছে। একইভাবে ক্যাম্পের ভেতর ও পাশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষার্থীদেরও এই টিকা দেওয়া হচ্ছে। আরও ৩৫ হাজার শিক্ষার্থীকে ডিপথেরিয়ার টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে।'

কক্সবাজারের শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার কার্যালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল কালাম বলেন, 'টেকনাফ ও উখিয়ার ১২টি আশ্রয়কেন্দ্রে বর্তমানে সব মিলিয়ে প্রায় ১২ লাখ রোহিঙ্গা রয়েছে। এত বিপুলসংখ্যক শরণার্থীকে একসঙ্গে চিকিৎসাসেবা দেওয়া সত্যিই কঠিন। এর পরও কলেরা, হাম, ডায়রিয়া, ম্যালেরিয়াসহ নানা রোগের টিকা ও অন্যান্য চিকিৎসাসেবা দেওয়া হয়েছে। ডিপথেরিয়া রোধেও টিকা দেওয়া হচ্ছে।'

আরও পড়ুন

জালিয়াতি করে দখল-বিক্রি কমরেড ফরহাদের বাড়ি

জালিয়াতি করে দখল-বিক্রি কমরেড ফরহাদের বাড়ি

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির প্রয়াত সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ফরহাদের বাড়ি জালিয়াতির ...

আওয়ামী লীগে তৎপর অর্ধশত তরুণ আইনজীবী

আওয়ামী লীগে তৎপর অর্ধশত তরুণ আইনজীবী

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে নিজ নিজ এলাকায় গণসংযোগ ...

সেই বিপাশার বিয়ে শুক্রবার

সেই বিপাশার বিয়ে শুক্রবার

তখন কতই বা বয়স ছিল তার— ৮ কিংবা ৯ বছর। উদ্ভ্রান্তের ...

 বিদায় চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি!

বিদায় চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি!

এ যেন বিশ্বকাপের মেলা! ২০১৯ ও ২০২০ সালের পর ২০২১ ...

পিরোজপুরে স্ত্রী ও শ্বশুরকে কুপিয়ে হত্যা

পিরোজপুরে স্ত্রী ও শ্বশুরকে কুপিয়ে হত্যা

পিরোজপুরে ইন্দুরকানি উপজেলার পাড়েরহাটে স্ত্রী ও শ্বশুরকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে আপন ...

রোহিঙ্গা শিবিরে দোকান নিয়ে সংঘর্ষে নারী নিহত

রোহিঙ্গা শিবিরে দোকান নিয়ে সংঘর্ষে নারী নিহত

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় নিবন্ধিত রোহিঙ্গা শিবিরে দোকান নির্মাণকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে ...

মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা বাড়াবে ইইউ

মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা বাড়াবে ইইউ

রোহিঙ্গা নির্যাতনের জেরে মিয়ানমারের ওপর আরোপিত অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা আরও এক ...

নারীরা এখন আর পিছিয়ে নেই: স্পিকার

নারীরা এখন আর পিছিয়ে নেই: স্পিকার

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, নারীরা এখন আর ...