নোয়াখালীতে ছাত্রলীগ কর্মীকে গুলি করে হত্যা

প্রকাশ: ১১ জানুয়ারি ২০১৮      

আনোয়ারুল হায়দার নোয়াখালী (উত্তর)

পূর্বশত্রুতার জেরে গত মঙ্গলবার রাতে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সদস্যকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। নিহত যুবক মো. শাকিল (২১) সোনাইমুড়ী উপজেলার দেওটি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সদস্য ও আমিরাবাদ গ্রামের আবুল হাসেম ওরফে খোকা মিয়ার ছেলে। একই গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে সন্ত্রাসী লিটনের বিরুদ্ধে এ খুনের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার পর থেকে লিটন ও তার পরিবার পলাতক। মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে দুই যুবককে আটক করা হয়েছে।

হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে ও খুনিদের গ্রেফতারের দাবিতে এলাকাবাসী বুধবার সোনাইমুড়ীর মুহুরীগঞ্জ-আমিশাপাড়া সড়কে বিক্ষোভ করে। এতে কয়েক ঘণ্টার জন্য যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোনাইমুড়ী উপজেলার আমিরাবাদ গ্রামের মো. মিলন মিয়ার ছেলে শাহেদের সঙ্গে একই গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে ও স্থানীয় সন্ত্রাসী আজগর বাহিনীর সদস্য লিটনের বিরোধ চলছিল গত রমজান মাস থেকে। মঙ্গলবার বিকেলে লিটন মোটরসাইকেলে যাওয়ার পথে শাহেদকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। রাত সাড়ে ৮টার সময় লিটন মোটরসাইকেল নিয়ে স্থানীয় দেওটি বাজারে এলে বিকেলের ঘটনা নিয়ে দু'জনের

মধ্যে কথা কাটাকাটি চলতে থাকে। এ সময় শাহেদের ভাতিজা শাকিল দৌড়ে এসে লিটনের জামার কলার চেপে ধরেন। কিছু বুঝে ওঠার আগেই লিটন তার কোমর থেকে পিস্তল বের করে শাকিলের বুকে গুলি চালিয়ে পালিয়ে যায়।

গুরুতর আহত অবস্থায় শাকিলকে উদ্ধার করে প্রথমে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল এবং সেখান থেকে পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। ঢাকা নেওয়ার পথে মারা যান শাকিল।

খবর পেয়ে সোনাইমুড়ি থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে অভিযান চালিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে মনির হোসেন আরমান (১৬) ও সাইফুল ইসলাম রাশেদ (২০) নামে ২ যুবককে আটক করে।

শাকিলের মৃত্যু সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। শাকিলের হত্যাকারীকে গ্রেফতারের দাবিতে মঙ্গলবার রাত থেকে রাস্তায় নামে হাজার হাজার মানুষ।

উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মাসুম বিল্লাহ বলেন, শাকিল এলাকার সবার প্রিয় ছিল। অত্যন্ত শান্ত স্বভাবের ও ছাত্রলীগের একনিষ্ঠ কর্মী ছিল শাকিল।

স্থানীয় দেওটি ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল আমিন শাকিল বলেন, খুনি লিটন এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও অস্ত্রবাজ। তিনি খুনিদের গ্রেফতারের দাবি জানান।

সোনাইমুড়ি থানার ওসি মো. ইসমাইল মিয়া বলেন, পূর্বশত্রুতার জেরে সন্ত্রাসী লিটন এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত ২ যুবককে আটক করা হয়েছে। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে আটকরা ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছে।

পুলিশ সুপারের দায়িত্বে থাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার একেএম জহিরুল ইসলাম সমকালকে বলেন, মূল খুনি লিটন ও তার সহযোগীদের গ্রেফতার করতে পুলিশ মঙ্গলবার রাতেই মাঠে নেমেছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুন

সবই কি 'চাষের মাছ'

সবই কি 'চাষের মাছ'

রাজধানীর মতিঝিলে বাংলাদেশ ব্যাংকের পাশের অস্থায়ী সান্ধ্য কাঁচাবাজারে এক মাছের ...

সম্পর্কে ঈর্ষা

সম্পর্কে ঈর্ষা

সম্পর্কে ঈর্ষা থাকবে, এটাই স্বাভাবিক। বিশেষ করে সঙ্গীর জন্য যদি ...

বিএনপির কোনো নীতি আদর্শ নেই: তোফায়েল

বিএনপির কোনো নীতি আদর্শ নেই: তোফায়েল

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, 'বিএনপির কোনো নীতি আদর্শ নেই। তারা ...

যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হবে 'বালিঘর'

যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হবে 'বালিঘর'

আরও একটি যৌথ প্রযোজনা চলচ্চিত্রের ঘোষণা এলো। কলকাতার বর্তমান সময়ের ...

নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আ'লীগের ভরাডুবি হবে: ফখরুল

নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আ'লীগের ভরাডুবি হবে: ফখরুল

নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন হলে এবং সব মানুষ ভোট দিতে ...

কুমারখালীতে ১৪৪ ধারা

কুমারখালীতে ১৪৪ ধারা

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে উপজেলা জাসদ ও ছাত্রলীগ একই স্থানে সভা ডাকায় ...

৮৮ বছর ধরে মাটি খাওয়া যার অভ্যাস

৮৮ বছর ধরে মাটি খাওয়া যার অভ্যাস

প্রতিদিন ভাত-রুটি না হলেও চলে কিন্তু মাটি না খেয়ে  একদিনও ...

পদ্মা সেতুর দ্বিতীয় স্প্যান বসতে পারে মঙ্গলবার

পদ্মা সেতুর দ্বিতীয় স্প্যান বসতে পারে মঙ্গলবার

চলতি সপ্তাহেই পদ্মা সেতুর দ্বিতীয় স্প্যান বসানোর অপেক্ষায় রয়েছে সেতু ...