খালেদা জিয়া সরকারের স্বৈরাচারী শাসনের বড় শিকার: আমীর খসরু

প্রকাশ: ১৪ মার্চ ২০১৮      

চট্টগ্রাম ব্যুরো

ফাইল ফটো

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া সরকারের একদলীয়, ফ্যাসিবাদী ও স্বৈরাচারী শাসনের বড় শিকার বলে মন্তব্য করেছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। 

বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম নগর বিএনপির নাসিমন ভবনস্থ কার্যালয় প্রাঙ্গণে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই মন্তব্য করেন। সকালে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন জামিনে মুক্ত হওয়ার পর তাৎক্ষণিক এই সভার আয়োজন করা হয়।

আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, বিএনপির রাজনীতি গণতান্ত্রিক, নিয়মতান্ত্রিক ও বাংলাদেশের জনগণের পক্ষে। আর একদলীয় শাসক ফ্যাসিস্ট ও স্বৈরাচারী ধারার রাজনীতি করছে।তারা অব্যাহতভাবে ক্ষমতা দখলের পাঁয়তারা করছে। এজন্য নিপীড়ন, গুম-খুন ও মিথ্যা মামলা দিয়ে ভয়ভীতি সৃষ্টি করতে চায়। এর শিকার ডা. শাহাদাত। সবচেয়ে বড় শিকার দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া।

এসময় বৃহস্পতিবার লালদীঘিতে সমাবেশের বিষয়ে জানতে চাইলে আমীর খসরু সাংবাদিকদের বলেন, অনুমতি অবশ্যই পাব। না পাওয়ার কোনো কারণ নেই। সমাবেশ করা আমাদের সাংবিধানিক অধিকার। এটা কেউ হরণ করতে পারে না। বিরোধী দল সভা করতে পারবে না দেশে এমন কোনো আইন নেই। আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দায়িত্ব জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার সংরক্ষণ করা।

সদ্যমুক্ত ডা. শাহাদাত সংবর্ধনা সভায় বলেন, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার জন্য গুম-গুপ্তহত্যা, হামলা-মামলার বিরুদ্ধে লড়াই করে যেতে হবে।এখন মামলা ইমপোর্ট করা হচ্ছে। দেশনেত্রীর চার মাসের জামিন হওয়ার পরও চৌদ্দগ্রাম থেকে মামলা আমদানি করা হচ্ছে। আমি চট্টগ্রামে অথচ ফেনীতে আমার বিরুদ্ধে মামলা হয়ে যাচ্ছে।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নগর বিএনপির সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান। প্রধান বক্তা ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শামীম। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন শ্রমিক দলের কেন্দ্রীয় সভাপতি আনোয়ার হোসেন এবং নগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম প্রমুখ।

বিষয় : খালেদা জিয়া আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী

পরবর্তী খবর পড়ুন : প্রথম ধাপে ৩৭৪ রোহিঙ্গাকে ফেরত নিতে চায় মিয়ানমার

আরও পড়ুন

টঙ্গীতে আগুনে পুড়ল ২৫ দোকানসহ বসতঘর

টঙ্গীতে আগুনে পুড়ল ২৫ দোকানসহ বসতঘর

টঙ্গীতে ২৫টি দোকান ও ৬টি বসতঘর আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে ...

যশোরে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে অডিট বিভাগের কর্মকর্তা নিহত

যশোরে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে অডিট বিভাগের কর্মকর্তা নিহত

যশোরে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে অডিট বিভাগের কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন। বুধবার ভোরে ...

ছেলে নেতা হবে, তাই নাম ঠিক করতে ভোটের আয়োজন!

ছেলে নেতা হবে, তাই নাম ঠিক করতে ভোটের আয়োজন!

সন্তান জন্মের পর প্রত্যেক বাবা-মা’ই চান তার একটি সুন্দর নাম ...

মুক্তাগাছায় মাইক্রোবাস-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ৩

মুক্তাগাছায় মাইক্রোবাস-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ৩

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় মাইক্রোবাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মধ্যে সংঘর্ষে তিনজন নিহত ...

১১ লাখ রোহিঙ্গার চাপ বাংলাদেশের কাঁধে

১১ লাখ রোহিঙ্গার চাপ বাংলাদেশের কাঁধে

কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফে অবস্থান করছে ১১ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা। ...

শেষ ষোলোয় রাশিয়া, বিদায় মিসরের

শেষ ষোলোয় রাশিয়া, বিদায় মিসরের

তাকে ভব্যিতের সেরা ফুটবলার বলা হয়। ফুটবলবোদ্ধারা মনে করেন মেসি-রোনালদো ...

নতুন কৌশলে আর্জেন্টিনা

নতুন কৌশলে আর্জেন্টিনা

লিওনেল মেসি বলেই পেনাল্টি মিসের ঘটনাটা চোখে লেগেছে বেশি। চারদিকের ...

রোহিঙ্গারা সসম্মানে ও নিরাপদে ফিরে যাক

রোহিঙ্গারা সসম্মানে ও নিরাপদে ফিরে যাক

সাবেক রাষ্ট্রদূত ও কূটনীতি বিশ্নেষক হুমায়ুন কবির বলেছেন, এর আগে ...