রাজীবের পর এবার বিচ্ছিন্ন হৃদয়ের হাত

প্রকাশ: ১৭ এপ্রিল ২০১৮     আপডেট: ১৭ এপ্রিল ২০১৮      

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

হাসপাতালে আহত হৃদয়- সমকাল

রাজধানীতে দুই বাসের চাপে এক হাত বিচ্ছিন্ন হওয়া যুবক রাজীব হোসেনের মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই এবার হাত বিচ্ছিন্ন হলো হৃদয় মিনার নামের এক বাস শ্রমিকের।

গোপালগঞ্জে বাসের সঙ্গে ট্রাকের সংঘর্ষে শরীর থেকে হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া হৃদয়কে (৩০) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার বেদগ্রাম নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে সমকালকে নিশ্চিত করেছেন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম।

দুর্ঘটনার পর বিকেলে বাগেরহাটের কাটাখালী থেকে গোপালগঞ্জ থানা পুলিশ ওই ট্রাকের চালক মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার পশ্চিম কাকৈড় গ্রামের নুরু শরীফের ছেলে জাকির হোসেনকে (৩২) গ্রেফতার করেছে।

আহত হৃদয় টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের চালকের সহকারী (হেলপার)। উপজেলার কাড়ারগাতী গ্রামের রবিউল মিনার ছেলে তিনি।

টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের যাত্রী প্রত্যক্ষদর্শী ঢাকা ইডেন কলেজের অনার্স শেষ বর্ষের ছাত্রী রাহিমা মনি জানান, পিরোজপুর থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের বাসের একেবারে পিছনের ডান পাশের ছিটে বসে ছিলেন হৃদয়।

তিনি জানান, বাসটি বেদগ্রাম পৌঁছালে অপরদিক থেকে আসা একটি ট্রাক পাশ কাটিয়ে যাওয়ার সময় বাস ও ট্রাকের পেছনের অংশে সংঘর্ষ হয়। ঘটনাস্থলেই হৃদয়ের ডান হাতটি বিচ্ছিন্ন হয়ে ,মাটিতে পড়ে যায়।

পরে তাকে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে হৃদয়ের অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা পাঠানো হয়।

হৃদয়ের বাবা রবিউল মিনা বলেন, রবিউল টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের চালকের সহকারী। সে টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের অন্য একটি গাড়িতে ডিউটি করে। দুর্ঘটনা কবলিত বাসে করে হৃদয় ঢাকা যাচ্ছিল।

ওসি মনিরুল জানান, ট্রাক চালককে আটক করে থানা আনা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

হৃদয় যখন গোপালগঞ্জে দুর্ঘটনায় পড়ে একটি হাত হারিয়েছেন; তার ঠিক কয়েক ঘণ্টা আগেই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন প্রায় একই ঘটনার শিকার তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী রাজীব।

গত ৩ এপ্রিল বিআরটিসি ও স্বজন পরিবহনের দুই বাসের প্রতিযোগিতার মাঝে পড়ে রাজধানীতে ডান হাতটি ছিঁড়ে যায় রাজীবের। তাৎক্ষণিকভাবে পান্থপথের একটি বেসরকারি হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয় তাকে।

রাজীব তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ার সময় মা এবং অষ্টম শ্রেণিতে পড়ার সময় তার বাবাকে হারান। যাত্রাবাড়ীতে খালার বাসায় থেকে কম্পিউটার দোকানে কাজ করে দুই ভাইয়ের লেখা পড়া করাচ্ছিলেন তিনি।

সোমবার গভীর রাতে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান রাজীব। তার মৃত্যুতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শোকের ছায়া নেমেছে; দেশজুড়ে নাড়া দিয়েছে এ খবর।


আরও পড়ুন

মাদক ব্যবসায়ী লিজাকে নিয়ে বিব্রত বিএনপি

মাদক ব্যবসায়ী লিজাকে নিয়ে বিব্রত বিএনপি

রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে তালিকাভুক্ত শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী লায়লা সুলতানা ...

নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানে সক্ষম: প্রধানমন্ত্রী

নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানে সক্ষম: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  দৃঢ় আস্থা প্রকাশ করে বলেছেন, চলতি বছরের ...

ফের অ্যাটর্নি জেনারেলকে হত্যার হুমকি

ফের অ্যাটর্নি জেনারেলকে হত্যার হুমকি

রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমকে হত্যার হুমকি ...

শর্তসাপেক্ষে শুক্রবার ঢাকায় বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি

শর্তসাপেক্ষে শুক্রবার ঢাকায় বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে শুক্রবার রাজধানীসহ ...

হুমায়ূন তীর্থে মানুষের ঢল

হুমায়ূন তীর্থে মানুষের ঢল

গাজীপুর সদরের পিরুজালী গ্রামের নুহাশপল্লীর লিচুতলায় চিরনিদ্রায় শায়িত বাংলা সাহিত্যের ...

ইমিগ্রেশন ব্যবস্থা নির্ভুল করতে চালু হচ্ছে ই-পাসপোর্ট

ইমিগ্রেশন ব্যবস্থা নির্ভুল করতে চালু হচ্ছে ই-পাসপোর্ট

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, সশস্ত্র বাহিনীর সহায়তায় ২০১০ সালে ...

কিছু পদক্ষেপের ফলে পাসের হার স্বাভাবিক হচ্ছে: রাশেদা কে চৌধূরী

কিছু পদক্ষেপের ফলে পাসের হার স্বাভাবিক হচ্ছে: রাশেদা কে চৌধূরী

উচ্চ মাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষায় এবার পাসের হার ও জিপিএ-৫ ...

আগামী নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হবে, আশা ইইউর

আগামী নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হবে, আশা ইইউর

বাংলাদেশে আগামী জাতীয় নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হবে বলে প্রত্যাশা করছে ইউরোপীয় ...