এত শোক কেমনে সইবেন রিগেন দেওয়ান!

প্রকাশ: ১২ জুন ২০১৮     আপডেট: ১২ জুন ২০১৮      

বিশেষ প্রতিনিধি, চট্টগ্রাম ও রাঙামাটি অফিস

রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কে যাওয়ার পথে বুড়িঘাট ইউপি কার্যালয়। সেখান থেকে প্রায় তিন কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ধর্মচরণপাড়া। এখানেই থাকতেন রিগেন দেওয়ান। অভাব নিত্যসঙ্গী হওয়ায় এখানকার পাহাড়ের কোলেই গড়েছিলেন তিনি মাথা গোঁজার ঠাঁই। 

এতদিন যে পাহাড় ছিল তার আশ্রয়স্থল, মঙ্গলবার ভোররাতে সেই পাহাড়ই নিঃস্ব করল তাকে। মাটিচাপায় শেষ হয়ে গেছে রিগেন দেওয়ানের সংসার। 

মধ্যরাতের পাহাড় ট্র্যাজেডিতে তিনি হারিয়েছেন বৃদ্ধ মা ফুল দেবী চাকমা, ছোট বোন ইতি চাকমা, স্ত্রী স্মৃতি চাকমা ও ছেলে আয়ুব দেওয়ানকে। একসঙ্গে পরিবারের চারজনকে হারিয়ে এখন শোকে মুহ্যমান রিগেন দেওয়ান।

প্রিয়জনদের নানা স্মৃতি স্মরণে এনে করছেন তিনি আহাজারি। বলছেন, 'আমি এখন কারে নিয়ে বেঁচে থাকব। আমারে রেখে কেন চলে গেলে তোমরা সবাই।'

স্ত্রী-সন্তানের সঙ্গে এক ঘরেই ছিলেন রিগেন। তাই পাহাড় ট্র্যাজেডিতে লাশ হওয়ার কথা ছিল তারও। কিন্তু মাটি চাপার শব্দ কানে আসতেই ঘর ছেড়ে দৌড় দিতে পেরেছিলেন তিনি। এ কারণে প্রাণে বেঁচে গিয়েছেন তিনি। 

ঘটনার স্মৃতিচারণ করে রিগেন দেওয়ান বলেন, 'সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে অদ্ভুত ধরনের একটা আওয়াজ হয়। এরপর আমরা কে কোথায় রয়েছি জানি না। তবে আমি দৌড়ে যাওয়ার পরপর ছোট ভাই ইমন চিৎকার করে বলছিল, দাদা আমাকে বাঁচাও। এরপর দৌড়ে গিয়ে দেখি তার গলা পর্যন্ত মাটি এসে গেছে। অনেক কষ্টে তাকে উদ্ধার করি। কিন্তু উদ্ধার করতে পারলাম না মা, বোন, স্ত্রী ও ছেলেকে।' 

পাহাড় ট্র্যাজেডিতে প্রাণে বেঁচে যাওয়া রিগেন দেওয়ানের ভাই ইমন দেওয়ান জানান, ধর্মচরণপাড়ার একটি পাহাড়ের পাদদেশে মা, বোন, ভাইসহ থাকতেন তারা। মাটির ঘরে থাকলেও তাদের ছিল সুখের সংসার। চাষাবাদ করে সংসার চালাতেন তারা দুই ভাই। টানা বৃষ্টির কারণে তাদের মনে ভয় ছিল। কিন্তু এভাবে পাহাড় তাদের চাপা দেবে তা ভাবতে পারেননি কেউ। সোমবার মধ্যরাতে যখন পাহাড় মাটি চাপা দিয়েছিল, তখন তাকে উদ্ধার করেন ভাই রিগেন দেওয়ান। মাটির নিচে মা, বোন, ভাবি ও ভাতিজা আছে জানলেও তাদের উদ্ধারের কোনো সুযোগ পাননি দুই ভাই। ভোররাতে আশপাশের মানুষ এসে মাটির নিচ থেকে একে একে বের করে তাদের চারজনকে। 

পুলিশ জানে না খুনি কারা

পুলিশ জানে না খুনি কারা

রাজধানীর উপকণ্ঠ নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলায় তিন যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধারের ...

আস্থার প্রতিদান দিলেন ইমরুল-সাইফ

আস্থার প্রতিদান দিলেন ইমরুল-সাইফ

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুর্দান্ত সেঞ্চুরি করা ইমরুল কায়েস দলের অটোমেটিক চয়েস ...

বাংলাদেশেই চিরশায়িত বাংলার অকৃত্রিম বন্ধু

বাংলাদেশেই চিরশায়িত বাংলার অকৃত্রিম বন্ধু

ফাদার মারিনো রিগনের নিজ হাতে লাগানো 'সোনা ঝুড়ি' গাছটি ফুল ...

এবার সাদা ইয়াবা

এবার সাদা ইয়াবা

এবার সাদা রঙের ইয়াবা উদ্ধার হলো রাজধানীর রামপুরার উলন রোড ...

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে ইসির সাক্ষাৎ ১ নভেম্বর

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে ইসির সাক্ষাৎ ১ নভেম্বর

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচারে জীবন্ত কোনো প্রাণী ব্যবহার করা ...

সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আ' লীগ ১০ আসনও পাবে না: কাদের সিদ্দিকী

সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আ' লীগ ১০ আসনও পাবে না: কাদের সিদ্দিকী

বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেছেন, সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগ ১০টির ...

চার্জশিটের আগে গ্রেফতারে সরকারের অনুমতি লাগবে

চার্জশিটের আগে গ্রেফতারে সরকারের অনুমতি লাগবে

আদালতে চার্জশিট গ্রহণের আগে সরকারি কর্মচারিদের গ্রেফতারে অনুমতি নিতে হবে-এমন ...

রণবীর-দীপিকার বিয়ের তারিখ চূড়ান্ত

রণবীর-দীপিকার বিয়ের তারিখ চূড়ান্ত

সকল জল্পনার অবসান ঘটিয়ে শিগগিরই বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন বলিউডের দুই ...