রুপার অভাব পূরণে প্রাণপণ চেষ্টা করছেন পপি

প্রকাশ: ১৪ জুন ২০১৮      

এম আতিকুল ইসলাম বুলবুল, তাড়াশ

পপির দেওয়া ঈদ উপহারের সামনে পরিবারের সদস্যরা

টাঙ্গাইলের মধুপুরে চলন্ত বাসে আলোচিত গণধর্ষণের পর হত্যার শিকার সিরাগঞ্জের তাড়াশের আসানবাড়ি গ্রামের জাকিয়া সুলতানা রুপা খাতুনের  বাড়িতে শোককে বুকে চেপে আসন্ন  ঈদ উদযাপনে আয়োজন চলছে। 

মেধাবী তরুণী রুপা তার জীবদ্দশায় অভাব অনাটনের সংসারে পড়ালেখার পাশাপাশি খণ্ডকালীন চাকরি করে যা উপার্জন করতেন, তার সবই ভাইবোনদের জন্য ব্যয় করতেন অকাতরে। বিশেষ করে ঈদে দুই ভাই হাফিজুর ও উজ্জল প্রামাণিক, হাফিজুরের একমাত্র মেয়ে হুমাইরা, মা হাসনা হেনা, ছোট বোন পপি আর দুই ভাবি সম্পা ও টুম্পার জন্য অবশ্যই ঈদের নতুন পোশাক কিনে দিতেন।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে পপি বলেন, অনেক সময় রুপা আপু ঈদে আমাদেরকে খুশি রাখতে তার উপার্জিত সব টাকা খরচ করে নিজের জন্য কিছুই কিনত না। তারপরও মুখ ভরা প্রাণবন্ত হাসিতে সব সময়ই বাড়িটা ভরিয়ে রাখত।  

বৃহস্পতিবার সরেজমিনে রুপাদের বাড়িতে গিয়ে দেখা মেলে পরিবারের সবাই একত্রে বাড়ির বারান্দায় বসে আছেন। সামনে রাখা ঈদ উপলক্ষে পরিবারের সবার জন্য পপির আনা জামা, জুতা, শাড়িসহ বিভিন্ন ঈদ সামগ্রী। রুপার অকাল মৃত্যুর পরে থেকেই তার অভাব পূরণে প্রাণপণ চেষ্টা করছেন  পপি।

রুপার মৃত্যুর পর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম পপিকে বগুড়ায় অবস্থিত  রাষ্ট্রায়াত্ত্ব ওষুধ কোম্পানি এসেনশিয়াল ড্রাগে অফিসার পদে চাকরি দেন। পপি জানান, সেই চাকরির বেতন ও ঈদ বোনাসের টাকা দিয়ে বগুড়া থেকে মায়ের জন্য শাড়ি, ভাতিজির জন্য জামা-জুতা, দুই ভাবির জন্য শাড়ি এবং ঈদের দিন খরচের জন্য বড় ভাই হাফিজুর রহমান প্রামাণিক ও উজ্জল প্রামাণিকের হাতে নগদ টাকা তুলে দিয়েছেন। 

পপি বলেন, প্রায় ১০ মাস হতে চললো, তারপরও আদরের বোনের মর্মান্তিক মৃত্যুর শোক এখনও প্রতিনিয়ত আমাদের তাড়িয়ে বেড়াচ্ছে। তারপরও আমরা স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের প্রতি  কৃতজ্ঞ। আজ তার দেয়া চাকরির বেতন পেয়েই পরিবারের সবাইকে নিয়ে ভালোভাবে ঈদ উদযাপনের  চেষ্টা করছি। সেই সাথে রুপার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি। 

এদিকে বাড়ির বারান্দায় বসে থাকা মা হাসনা হেনা রুপার জন্য অঝরে কাঁদতে থাকেন। তার কাঁন্না দেখে পরিবারের অন্য সদস্যরাও চোখে পানি আটকাতে পারছিলেন না। হাসনা হেনা জানান, দেশের  বিচার বিভাগের প্রতি তাদের আস্থা ও বিশ্বাস রয়েছে। তিনি তার জীবদ্দশায়  মেয়ের ধর্ষক হত্যকারীদের ফাঁসি কার্যকর দেখে যেতে চান।   

নিহত রুপা

এর আগে ২০১৭ সালের ২৭ আগস্ট  টাঙ্গাইলে মধুপুরের পঁচিশ মাইল এলাকায় চলন্ত বাসে গণধর্ষণের পর হত্যা করা হয় মোছা. জাকিয়া সুলতানা রুপাকে। ওই দিন রাত সাড়ে ১১টার দিকে মধুপুর থানা পুলিশ পঁচিশ মাইল এলাকার সুমী নার্সারির নিকট রাস্তার পাশ থেকে অজ্ঞাত হিসেবে তার লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় মধুপুর থানায় একটি হত্যামামলা দায়ের করে পুলিশ। পরে ময়নাতদন্ত শেষে বেওয়ারিশ হিসেবে টাঙ্গাইলের কেন্দ্রীয় কবরস্থানে রুপার লাশ দাফন করা হয়। ঘটনার তিনদিন পর ছবি দেখে রুপার লাশ শনাক্ত করেন বড় ভাই মো. হাফিজুর রহমান।

পরে চলতি বছরের ১২ ফেব্রুয়ারি রপা হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করা হয়। এতে ৪ আসামির ফাঁসি ও ১ জনের ৭ বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও আর্থিক জরিমানা করা হয়। 

রুপার বড় ভাই হাফিজুর রহমান প্রামাণিক জানান, বর্তমানে ফাঁসির দণ্ড পাওয়া চার আসামিসহ অন্যরা রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করেছেন। এখনও আপিলের শুনানি শুরু হয়নি। তার দাবি, বিচারটি প্রক্রিয়াটি দ্রুত নিষ্পত্তি করে ঘাতকদের ফাঁসিতে ঝোলানো হোক।  

আরও পড়ুন

যৌতুকের মিথ্যা মামলায় পাঁচ বছর জেল

যৌতুকের মিথ্যা মামলায় পাঁচ বছর জেল

যৌতুকের অভিযোগে দায়েরকৃত মামলা মিথ্যা প্রমাণিত হলে পাঁচ বছরের জেল ...

ছয় কেন্দ্রে ইভিএম, তিন কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা

ছয় কেন্দ্রে ইভিএম, তিন কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ছয়টি কেন্দ্রে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ...

মিশরকে এগিয়ে দিলেন সালাহ

মিশরকে এগিয়ে দিলেন সালাহ

এই ম্যাচের ফলাফল এবারের বিশ্বকাপে কোনো প্রভাব ফেলবে না। তবে ...

ইন্টারনেট ব্যবহারে ভ্যাট কমছে

ইন্টারনেট ব্যবহারে ভ্যাট কমছে

অবশেষে ইন্টারনেট ব্যবহারে গ্রাহকের কাঁধ থেকে ভ্যাটের বোঝা কমছে। সোমবার অর্থমন্ত্রী ...

শুরুতেই দুই গোলে এগিয়ে উরুগুয়ে

শুরুতেই দুই গোলে এগিয়ে উরুগুয়ে

'এ' গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন নির্ধারণী ম্যাচে মাঠে নেমেছে উরুগুয়ে ও রাশিয়া। ...

নেইমারদের এড়াতে যা করতে হবে জার্মানি-মেক্সিকো-সুইডেনকে

নেইমারদের এড়াতে যা করতে হবে জার্মানি-মেক্সিকো-সুইডেনকে

ঘটন-অঘটনের রাশিয়া বিশ্বকাপ প্রথম রাউন্ড শেষ হতে চললো। তবে এখন ...

আর্জেন্টিনা দলে যেসব পরিবর্তন হতে পারে

আর্জেন্টিনা দলে যেসব পরিবর্তন হতে পারে

ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে বড় ব্যবধানে হারের পর আর্জেন্টিনার দ্বিতীয় রাউন্ড পড়ে ...

বেতন দিয়ে চোর পোষেন ইদু মামা!

বেতন দিয়ে চোর পোষেন ইদু মামা!

ইদু মিয়া ওরফে হাতকাটা ইদু। চট্টগ্রামের অপরাধ জগতে তার পরিচিতি ...