২২ বছরের সাজা থেকে বাঁচতে অভিনব প্রতারণা

প্রকাশ: ১৪ আগস্ট ২০১৮      

চট্টগ্রাম ব্যুরো

২০০৪ সালে অস্ত্র, বিস্ফোরকসহ পাঁচ আসামিকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এরমধ্যে একজন ছিলেন স্বপন দাস। কিন্তু তিনি র‌্যাবের কাছে নিজেকে পরিচয় দেন অমর দাস নামে। অমর তার আপন চাচাতো ভাই। ঠিকানাও দেন চাচাতো ভাইয়ের। এরপর জামিনে বের হয়ে লাপাত্তা হয়ে যান। 

এরমধ্যে দুই মামলায় ২২ বছরের সাজা হয় অমর দাসের। এক মাস আগে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর পুলিশের তদন্তে বেরিয়ে আসে আসল আসামি স্বপন দাসের পরিচয়। 

সোমবার রাতে নগরের কদমতলী এলাকা থেকে স্বপন দাসকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতার স্বপন দাস ওরফে ল্যাংড়া স্বপন চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার উত্তর ব্রাহ্মণডেঙ্গা উপেন্দ্র চৌকিদারের বাড়ির মৃত দেবেন্দ্র জলদাসের ছেলে। বর্তমানে সদরঘাট থানার মাঝিরঘাটের ইয়াকুব বস্তির সাহেবপাড়ায় থাকেন।

পুলিশ সূত্র জানায়, ২০০৪ সালের ১৬ আগস্ট তৎকালীন ডবলমুরিং থানার সানাই সিনেমা হলের সামনে ডাকাতির জন্য জড়ো হয় একদল লোক। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদের ঘেরাও করে র‌্যাব। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি হয়। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় স্বপন দাসসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। তাদের কাছ থেকে তিনটি দেশীয় তৈরি এলজি, ১২ রাউন্ড কার্তুজ, দুটি বন্দুক, ২ রাউন্ড গুলি, একটি ছোরা ও দশটি ককটেল উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারের পর র‌্যাবের কাছে নিজেকে রেবতী জলদাসের ছেলে অমর দাস হিসেবে পরিচয় দেন। এ ঘটনায় বিস্ফোরকদ্রব্য ও অস্ত্র আইনে দুটি মামলা হয়। দুই মামলায় ২২ বছর সাজা হয় পাঁচজনের। এরমধ্যে অমর দাসের নামে পরোয়ানা জারি হয়। গত ৫ জুলাই পতেঙ্গা থানার জেলেপাড়া রেবতী মোহনের বাড়ি থেকে রেবতী জলদাসের ছেলে অমর জলদাসকে গ্রেফতার করে সদরঘাট থানা পুলিশ। 

সদরঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নেজাম উদ্দিন সমকালকে বলেন, অমর দাসকে গ্রেফতার করা হলে তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন। কখনও র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার হননি বলে জানান। তার চাচাতো ভাই স্বপন দাস গ্রেফতার হয়েছিলেন বলে জানান। পরে বিষয়টি তদন্তের জন্য আদালতের অনুমতি চাওয়া হয়। আদালত অনুমতি দিলে ২০০৪ সালে গ্রেফতার অপর আসামি মতিনের মুখোমুখি করা হয় অমর দাসকে। এরপর রহস্য উদঘাটন হয়। 

সদরঘাট থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রুহুল আমীন সমকালকে বলেন, অমর দাস ও মতিনকে কারাগারে মুখোমুখি করা হলে তিনি অমর দাসকে চেনেন না বলে জানান। তাদের সঙ্গে যাকে গ্রেফতার করা হয়েছিল তার নাম স্বপন দাস ছিল বলে তথ্য দেন মতিন। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে স্বপন দাসকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রতারণার কথা স্বীকার করেন তিনি। নাম-পরিচয় গোপন করায় তার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ এনে দণ্ডবিধির ৪১৯ ধারায় মামলা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

শেষের রোমাঞ্চে হার আফগানদের

শেষের রোমাঞ্চে হার আফগানদের

এখন পর্যন্ত এশিয়া কাপের সবচেয়ে রোমাঞ্চকর ম্যাচ উপহার দিয়েছে পাকিস্তান-আফগানিস্তান। ...

বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা

বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা

বরিশালের উজিরপুর উপজেলার জল্লাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টুকে ...

দুবাই যাচ্ছেন সৌম্য-ইমরুল

দুবাই যাচ্ছেন সৌম্য-ইমরুল

ড্রেসিংরুম থেকেই জরুরি তলব ঢাকায়-ওপেনিংয়ে কিছুই হচ্ছে না। সৌম্য সরকারকে ...

খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ

খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা। ...

'নায়ক' গেলো সেন্সরে

'নায়ক' গেলো সেন্সরে

ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় নায়ক বাপ্পি ও নবাগতা অধরা খান জুটির ...

সোনাহাট স্থলবন্দরে শ্রমিকদের সংঘর্ষ, ১৪৪ ধারা জারি

সোনাহাট স্থলবন্দরে শ্রমিকদের সংঘর্ষ, ১৪৪ ধারা জারি

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলার সোনাহাট স্থলবন্দরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। ...

পাকিস্তানকে ভালো লক্ষ্য দিল আফগানরা

পাকিস্তানকে ভালো লক্ষ্য দিল আফগানরা

এশিয়া কাপে নিজেদের ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছে আফগানিস্তান। ভালো রান সংগ্রহ ...

চার জাতির টুর্নামেন্টে দর্শক মেসি

চার জাতির টুর্নামেন্টে দর্শক মেসি

আগামী মাসে সৌদি আরবে চার জাতির একটি টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে। ...