২২ বছরের সাজা থেকে বাঁচতে অভিনব প্রতারণা

প্রকাশ: ১৪ আগস্ট ২০১৮      

চট্টগ্রাম ব্যুরো

২০০৪ সালে অস্ত্র, বিস্ফোরকসহ পাঁচ আসামিকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এরমধ্যে একজন ছিলেন স্বপন দাস। কিন্তু তিনি র‌্যাবের কাছে নিজেকে পরিচয় দেন অমর দাস নামে। অমর তার আপন চাচাতো ভাই। ঠিকানাও দেন চাচাতো ভাইয়ের। এরপর জামিনে বের হয়ে লাপাত্তা হয়ে যান। 

এরমধ্যে দুই মামলায় ২২ বছরের সাজা হয় অমর দাসের। এক মাস আগে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর পুলিশের তদন্তে বেরিয়ে আসে আসল আসামি স্বপন দাসের পরিচয়। 

সোমবার রাতে নগরের কদমতলী এলাকা থেকে স্বপন দাসকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতার স্বপন দাস ওরফে ল্যাংড়া স্বপন চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার উত্তর ব্রাহ্মণডেঙ্গা উপেন্দ্র চৌকিদারের বাড়ির মৃত দেবেন্দ্র জলদাসের ছেলে। বর্তমানে সদরঘাট থানার মাঝিরঘাটের ইয়াকুব বস্তির সাহেবপাড়ায় থাকেন।

পুলিশ সূত্র জানায়, ২০০৪ সালের ১৬ আগস্ট তৎকালীন ডবলমুরিং থানার সানাই সিনেমা হলের সামনে ডাকাতির জন্য জড়ো হয় একদল লোক। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদের ঘেরাও করে র‌্যাব। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি হয়। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় স্বপন দাসসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। তাদের কাছ থেকে তিনটি দেশীয় তৈরি এলজি, ১২ রাউন্ড কার্তুজ, দুটি বন্দুক, ২ রাউন্ড গুলি, একটি ছোরা ও দশটি ককটেল উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারের পর র‌্যাবের কাছে নিজেকে রেবতী জলদাসের ছেলে অমর দাস হিসেবে পরিচয় দেন। এ ঘটনায় বিস্ফোরকদ্রব্য ও অস্ত্র আইনে দুটি মামলা হয়। দুই মামলায় ২২ বছর সাজা হয় পাঁচজনের। এরমধ্যে অমর দাসের নামে পরোয়ানা জারি হয়। গত ৫ জুলাই পতেঙ্গা থানার জেলেপাড়া রেবতী মোহনের বাড়ি থেকে রেবতী জলদাসের ছেলে অমর জলদাসকে গ্রেফতার করে সদরঘাট থানা পুলিশ। 

সদরঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নেজাম উদ্দিন সমকালকে বলেন, অমর দাসকে গ্রেফতার করা হলে তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন। কখনও র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার হননি বলে জানান। তার চাচাতো ভাই স্বপন দাস গ্রেফতার হয়েছিলেন বলে জানান। পরে বিষয়টি তদন্তের জন্য আদালতের অনুমতি চাওয়া হয়। আদালত অনুমতি দিলে ২০০৪ সালে গ্রেফতার অপর আসামি মতিনের মুখোমুখি করা হয় অমর দাসকে। এরপর রহস্য উদঘাটন হয়। 

সদরঘাট থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রুহুল আমীন সমকালকে বলেন, অমর দাস ও মতিনকে কারাগারে মুখোমুখি করা হলে তিনি অমর দাসকে চেনেন না বলে জানান। তাদের সঙ্গে যাকে গ্রেফতার করা হয়েছিল তার নাম স্বপন দাস ছিল বলে তথ্য দেন মতিন। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে স্বপন দাসকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রতারণার কথা স্বীকার করেন তিনি। নাম-পরিচয় গোপন করায় তার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ এনে দণ্ডবিধির ৪১৯ ধারায় মামলা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

জেনে-শুনে মন্তব্য করা উচিত: দুদক চেয়ারম্যান

জেনে-শুনে মন্তব্য করা উচিত: দুদক চেয়ারম্যান

'তদন্ত করলে দুদকেও দুর্নীতি বেরুবে'- জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যানের ওই ...

আগাম প্রচার সামগ্রী সরানো না হলে জরিমানা: ইসি

আগাম প্রচার সামগ্রী সরানো না হলে জরিমানা: ইসি

জাতীয় নির্বাচন উপলক্ষে আগাম প্রচার সামগ্রী যারা সরাননি, তাদের জরিমানা ...

পুরুষের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠার দাবি

পুরুষের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠার দাবি

'বৈষম্য নয় পুরুষের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠিত হোক' প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ...

উচ্চশিক্ষায় নতুন কারিকুলাম প্রণয়ন করবে ইউজিসি

উচ্চশিক্ষায় নতুন কারিকুলাম প্রণয়ন করবে ইউজিসি

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) উচ্চশিক্ষায় সক্ষমতা বৃদ্ধি, দক্ষ স্নাতক ...

টমটমের ধাক্কায় প্রাণ গেল প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার্থীর

টমটমের ধাক্কায় প্রাণ গেল প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার্থীর

চট্টগ্রামে প্রাথমিক সমাপনী (প্রাইমারি এডুকেশন সার্টিফিকেট-পিইসি) পরীক্ষা দিতে যাওয়ার পথে ...

বাংলা একাডেমির ৪ পুরস্কার: বিজয়ীদের নাম ঘোষণা

বাংলা একাডেমির ৪ পুরস্কার: বিজয়ীদের নাম ঘোষণা

বাংলা একাডেমি পরিচালিত চারটি পুরস্কারের বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। ...

প্রয়োজনে আদালতের আশ্রয় নেওয়া হবে: তারেক প্রসঙ্গে কাদের

প্রয়োজনে আদালতের আশ্রয় নেওয়া হবে: তারেক প্রসঙ্গে কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ভিডিও ...

গণফোরামে সাবেক ১০ সামরিক কর্মকর্তা

গণফোরামে সাবেক ১০ সামরিক কর্মকর্তা

গণফোরামে যোগ দিয়েছেন সেনা ও বিমান বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত ১০ কর্মকর্তা। ...