প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী বিশেষ

'মেধাবী প্রজন্মই এগিয়ে নেবে দেশকে'

প্রকাশ: ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮     আপডেট: ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮       প্রিন্ট সংস্করণ     

সারোয়ার সুমন, চট্টগ্রাম

আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে প্রথম স্বর্ণজয়ী বাংলাদেশি আহমেদ জাওয়াদ চৌধুরী মা ও বোনের সঙ্গে - সমকাল

জন্মের পর সন্তানের মাথা দেখে ভড়কে গিয়েছিলেন আহমেদ আবু জুনায়েদ চৌধুরী ও সৈয়দা ফারজানা খানম। দেহের তুলনায় মাথাটা বড় হওয়ায় গিয়েছিলেন চিকিৎসকের কাছেও। কিন্তু অভয় দিলেন চিকিৎসক। মজা করে বললেন, 'মাথা যেহেতু বড়, বুদ্ধিও একটু বেশি হবে ওর।' ঠাট্টাচ্ছলে বলা সেই কথাটাই সত্য হয়েছে ১৮ বছর পর। গণিত অলিম্পিয়াডে দেশের হয়ে প্রথম স্বর্ণপদক জিতেছে সে। লালসবুজের পতাকাকে বিশ্বদরবারে তুলে ধরা এ ছেলেটির নাম আহমেদ জাওয়াদ চৌধুরী।

ছোটবেলায় জাওয়াদ জ্যোতির্বিজ্ঞানী হওয়ার স্বপ্ন দেখেছিল, কিন্তু কৈশোরে এসে দিশারি হলো গণিতের, 'ছোটবেলায় জ্যোতির্বিজ্ঞান খুব টানত আমাকে। এ বিষয়ক নানা বই পড়ে নিজেকে জ্যোতির্বিজ্ঞানী ভাবতাম আমি। কিন্তু ২০১১ সালে পাল্টে গেল আমার জীবনের গতিধারা। ক্যান্টনমেন্ট স্কুলের ইউনুস স্যারের মাধ্যমে খবর পেলাম গণিত অলিম্পিয়াড প্রতিযোগিতার। সেবার অংশ নিয়েই চট্টগ্রাম বিভাগে সেরা হয়েছিলাম। স্থানীয়ভাবে সেরার এ মুকুটটা অক্ষত আছে আট বছর ধরে। গণিতকে এতটা ভালোবেসেছিলাম বলেই এবার ধরা দিল স্বর্ণপদক।' চট্টগ্রামে খুলশীর বাসভবনে বসে গতকাল সোমবার বিকেলে জাওয়াদ যখন এ কথা বলছিলেন, তখন পাশের সোফায় বসে ছিলেন তার মা সৈয়দা ফারজানা খানম। তিনি বললেন, 'ছোটবেলা থেকেই অনুসন্ধিৎসু ছিল  জাওয়াদ। নতুন কিছু করার তাড়না আছে ওর  মধ্যে। এ জন্য ছোটবেলায় জ্যোতির্বিজ্ঞান পড়ে সে যখন আমাদের হাত দেখত, আমরা তখনও তাকে উৎসাহ দিতাম।'

আহমেদ জাওয়াদ চৌধুরী জানায়, ২০১৬ সালে তাদের আসিফ ই এলাহী এক পয়েন্টের জন্য মিস করেছিল স্বর্ণপদক। ২০১৭ সালে সে মিস করেছে দুই পয়েন্টের জন্য। এবার তাই আত্মবিশ্বাসী ছিল শুরু থেকেই। ধরা দিয়েছে সেই সাফল্য।

গণিতকে জয় করার মন্ত্র বলেছে আহমেদ জাওয়াদ চৌধুরী, 'আমার কাছে গণিত হলো খেলার মতো। প্রশিক্ষণ ও চর্চার মাধ্যমে ধরতে হবে তার মজা। এরপর অঙ্ক নিয়ে নামতে হবে মাঠে, স্থির রাখতে হয় মনোসংযোগ, থাকতে হবে আত্মবিশ্বাসও।'

'স্বর্ণ জেতার ব্যাপারটা বলবে?'

'এবার পরীক্ষার দিনও মজা করেছি আমরা। আইএমওর পরীক্ষার আধঘণ্টা আগে সাধারণত আমরা হলে ঢুকি। এবার এক ঘণ্টা আগেই ঢোকার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। বলা হয়েছিল, প্রথম আধঘণ্টা আমরা যা খুশি করতে পারব। এমন সুযোগ পেয়ে ফিনল্যান্ডের একটা দল হঠাৎ দুই সারির মাঝখানে লম্বা হয়ে শুয়ে পড়ল। তারপর ওরা পতাকা নিয়ে শুরু করল মিছিল। নিজ দেশের পতাকা নিয়ে এ মিছিলে যোগ দিয়েছিলাম আমরাও। কিছুক্ষণের জন্য মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলেছিলাম পরীক্ষা, গণিত, নম্বর, পদকসহ টেনশনের যাবতীয় বিষয়। নির্ভার থাকাতেই এবার পদক জিতেছি আমরা।'

আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডের (আইএমও) সুখস্মৃতি হাতড়ে জুনায়েদ বলল, আইএমওর ৬ প্রশ্ন যখন হাতে এলো তখন একটুও ভয় পাইনি এবার। বরং তিন নম্বরে আমার প্রিয় 'কম্বিন্যাটোরিকস'-এর অঙ্ক দেখে বেড়ে গিয়েছিল সাহস। দ্বিতীয় দিন এ সাহস আরও বাড়িয়ে দেয় রাফায়েল নামের এক গ্রিক ছেলে। সে জানতে চাইল, আমার দেশ এখন পর্যন্ত কয়টা স্বর্ণপদক পেয়েছে? আমি না জবাব দিতেই সে বলল, এবার থেকে মনে হয় এ প্রশ্নের উত্তরে একটি লিখতে পারবে তোমরা। তার এ কথায় মনোবল বেড়ে গিয়েছিল আমার।

চট্টগ্রাম থেকে আঞ্চলিক চ্যাম্পিয়ন হয়ে আট বছর ধরে জাতীয় উৎসবে অংশ নিচ্ছে আহমেদ জাওয়াদ চৌধুরী। তার দাদা আবু তালেব চৌধুরী ও নানা সৈয়দ মো. বেলাল ছিলেন চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির বনেদি ব্যবসায়ী। দাদি জাহানারা বেগম ও নানু মোমেনা খানমও ছিলেন উচ্চশিক্ষিত। তার মা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স ও মাস্টার্স করেছেন দর্শন বিষয়ে। আর বাবা অস্ট্রেলিয়ায় পড়াশোনা করে হয়েছেন জাহাজের ক্যাপ্টেন। এক ভাই, এক বোনের মধ্যে জাওয়াদ বড়। তার বোন রুদমিলা জান্নাত চৌধুরী পড়ে তৃতীয় শ্রেণিতে। ভাইয়ের অর্জনে গর্বিত সেও। ভাইয়ের বিভিন্ন ক্রেস্ট নিয়ে ছবির জন্য পোজ দিয়েছে তাই সেও।

জাওয়াদের মা জানান, ছোটবেলা থেকেই সন্তানদের আবৃত্তি, বক্তৃতা, বিতর্কসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে নিয়োজিত রেখেছেন তিনি। তার এ কথার সত্যতা মিলল ড্রইং রুমেই। খুলশী রেললাইন ধরে পলিটেকনিকের দিকে যেতেই পড়ে খুলশী গ্রিন হাউজিং সোসাইটি। এ সোসাইটির প্রধান সড়ক ধরে সোজা গেলেই ওয়ান/জে নম্বর বাসা। এ বাসারই চারতলায় থাকে জাওয়াদের পরিবার। তাদের বিশাল ড্রইং রুমের এক কোনায় আছে কাচঘেরা একটি শোকেস। ছয় তাকের এ শোকেসের প্রতিটি ধাপে আছে জাওয়াদের মেধার স্বাক্ষর। গণিত অলিম্পিয়াডের স্বর্ণপদক ছাড়াও এতে সাজানো আছে আইএমও ২০১৭ সালের ব্রোঞ্জ পদক, ২০১৭ সালে ডিবেট ফেস্টিভ্যালের চ্যাম্পিয়ন ক্রেস্টসহ অন্তত অর্ধশত মেডেল।

গণিত অলিম্পিয়াডে পদকজয়ীদের ঘটা করে দেওয়া হয়েছিল সংবর্ধনা। এতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেছিলেন, 'গণিত অলিম্পিয়াডে বাংলাদেশের স্বর্ণপদক অর্জন প্রমাণ করে এদেশের তরুণ প্রজন্ম অত্যন্ত মেধাবী। তারাই এ দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে।' জাওয়াদের চোখেমুখে সেই কথারই দ্যোতনা ছেয়ে থাকে সারাক্ষণ।

ঠিক চলে আসার আগে ঝট করে বলা হয়, 'স্কুলের পরীক্ষায় কতবার গণিতে ১০০ তে ১০০ পেয়েছিলে?'

'গণিতে কখনও ১০০তে ১০০ পেয়েছি বলে মনে পড়ে না আমার। আসলে স্কুলের পরীক্ষাটাকে আমি কখনই ধ্যানজ্ঞান মনে করিনি। চারপাশটা জানার দিকেই মনোযোগী ছিলাম। তাই হাইস্কুলে রোল নম্বর তিন-চারের ঘরে থেকেছে, এক হয়নি। এ জন্য কখনও আফসোসও করিনি আমি।'

আরও পড়ুন

শ্রীনগরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

শ্রীনগরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মো. তাজেল (৩৫) নামে এক ...

খাঁটি দুধ চেনার ঘরোয়া উপায়

খাঁটি দুধ চেনার ঘরোয়া উপায়

ভেজাল দুধের ভিড়ে খাঁটি দুধ চেনা যেন দুষ্কর। কোথাও দুধে ...

নেইমারের গোলে উরুগুয়েকে হারাল ব্রাজিল

নেইমারের গোলে উরুগুয়েকে হারাল ব্রাজিল

ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দিয়েছে পেনাল্টি। না হলে আসল ব্যবধান ব্রাজিলের ...

মেক্সিকোর বিপক্ষে সহজ জয় আর্জেন্টিনার

মেক্সিকোর বিপক্ষে সহজ জয় আর্জেন্টিনার

ম্যাচের তখন দুই মিনিট। বার কাঁপানো এক শট নেয় মেক্সিকো। ...

ভরসার প্রতীক সেই নৌকা-ধানের শীষ

ভরসার প্রতীক সেই নৌকা-ধানের শীষ

নির্বাচনী বৈতরণী পার হতে নিজের প্রতীক ছেড়ে আওয়ামী লীগের নৌকা ...

রংপুর বিভাগের ১১ আসনে আ'লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত

রংপুর বিভাগের ১১ আসনে আ'লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত

আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ...

চট্টগ্রামে জাপা শরিকদের স্বপ্নভঙ্গ

চট্টগ্রামে জাপা শরিকদের স্বপ্নভঙ্গ

বিএনপি ভোটে না এলে ১০০ আসন ছেড়ে দেবে আওয়ামী লীগ- ...

ভোটের মাঠে একঝাঁক তারকা

ভোটের মাঠে একঝাঁক তারকা

বিভিন্ন অঙ্গনের তারকাদের রাজনীতিতে অংশগ্রহণ নতুন নয়। বিশেষত উপমহাদেশে এই ...