আদিবাসী তরুণীকে পিটিয়ে হত্যা

শ্যামলীর বাড়ির নীরবতা ভাঙছে চোখের জল

প্রকাশ: ০২ সেপ্টেম্বর ২০১৮     আপডেট: ০২ সেপ্টেম্বর ২০১৮       প্রিন্ট সংস্করণ     

মাহমুদুর রহমান, পার্বতীপুর (দিনাজপুর)

চারপাশে আমন ধানের ক্ষেত। তারই এক কোণে চিরনিদ্রায় শুয়ে আছেন শ্যামলী হাসদা। বৃষ্টির কারণে ভেঙে পড়েছে দু'দিন আগের কবরটি। কবরের পাশে কান্না করছেন শ্যামলীর পালক পিতা চুনকা হাসদা ও মা ময়না হাসদা। সালিশের নামে নির্যাতনে মেয়েকে হারিয়ে বাকরুদ্ধ ওই দম্পতি। তাদের বাড়ির কাছেই দাফন করা হয়েছে শ্যামলীকে।

গতকাল শনিবার শ্যামলীর বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় সুনসান নীরবতা। আত্মীয়-স্বজন সবার চোখে পানি।

শ্যামলীর আশা ছিল নার্সিং ডিগ্রি নিয়ে সরকারি চাকরি করবেন। কিন্তু তার সেই স্বপ্ন চুরমার করে দিয়েছে গ্রাম্য মাতবর আর জনপ্রতিনিধিরা। শ্যামলী আত্মহত্যা করেছেন বলে তারা দাবি করলেও সংশ্নিষ্ট চিকিৎসক বলছেন, শ্যামলীকে আঘাতজনিত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন শ্যামলী। শুধু শ্যামলী নন, তার বন্ধু মোজাহার আলীকেও (২৮) বাঁশের খুঁটিতে বেঁধে নির্মমভাবে পিটিয়েছে গ্রামের মাতবর ও ইউপি সদস্য গোলজার হোসেন। তবে মোজাহারের কাছ থেকে ২৫ হাজার টাকা নিয়ে তাকে ছেড়ে দেয় সালিশকারীরা।

আলোচিত এ ঘটনাটি ঘটেছে গত রোববার দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলা শহর থেকে প্রায় ৩৫ কিলোমিটার দূরে হরিরামপুর ইউনিয়নের নিভৃত আদিবাসী পল্লী লক্ষ্মী হোসেনপুর গ্রামে। মোজাহারের বাড়ি পাশের পলীপাড়া গ্রামে। তিনি মাইক্রোবাস চালক।

চুনকা হাসদা জানান, ছোটবেলা থেকে শ্যামলীকে লালন-পালন করে আসছেন তিনি। শ্যামলী ২০১৫ সালে এসএসসি পাস করেন জয়পুরহাটের মিশনারি হাই স্কুল থেকে। এরপর স্থানীয় মধ্যপাড়া কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। পরে তাকে বিয়ে দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু শ্যামলী বিয়ে করবেন না বলে জানিয়ে দেন। তার নার্সিংয়ে পড়ার ইচ্ছা হলে তাকে বগুড়ায় নাসিং কলেজে ভর্তি করে দেওয়া হয়।

গত ২১ আগস্ট ঈদের ছুটিতে বাড়িতে আসেন শ্যামলী। ২৬ আগস্ট সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মোজাহার আলী তার বাড়িতে আসেন। বাবা-মাসহ সবার উপস্থিতিতে শ্যামলী তার সঙ্গে ঘরে বসে কথা বলছিলেন। এ সময় গ্রামের মাতবর সোম হাসদা ও তার ছেলে লিলু হাসদার নেতৃত্বে ৬-৭ যুবক বাড়িতে প্রবেশ করে শ্যামলী ও মোজাহার আলীকে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যায়। তারা সোম হাসদার বাড়িতে নিয়ে তাদের দু'জনকে রশি দিয়ে বাঁশের খুঁটিতে বেঁধে মারধর করতে থাকে। দিনভর প্রচণ্ড রোদের মধ্যে মারধরের ফলে তার মেয়ে এক পর্যায়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। ঘটনা শুনে স্থানীয় ইউপি সদস্য গোলজার হোসেন ছুটে আসেন। তবে সালিশের নামে তিনিও দু'জনকে মারধর করেন। সন্ধ্যায় ২৫ হাজার টাকার বিনিময়ে মোজাহার আলীকে ছেড়ে দেওয়া হয়। রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্থানীয় ইউপি সদস্য ও মাতবররা শ্যামলীকে বাড়িতে দিয়ে যায়। এ সময় শ্যামলী হাঁটতে পারছিলেন না। দরজায় এসেই শ্যামলী জ্ঞান হারিয়ে লুটিয়ে পড়েন। রাত ৯টার দিকে স্থানীয় বাজারে গ্রাম্য ডাক্তার দেখিয়ে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। পরদিন শ্যামলী গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে পার্শ্ববর্তী ফুলবাড়ী উপজেলা হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে দিনাজপুর আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে ২৮ আগস্ট রাত ১১টার দিকে মারা যান শ্যামলী।

শ্যামলীর বন্ধু মোজাহার আলীকে বাড়িতে পাওয়া যায়নি। মোবাইল ফোনে তিনি সমকালকে বলেন, শ্যামলীর সঙ্গে আমার কোনো প্রেমের সম্পর্ক ছিল না। বন্ধুত্বের সম্পর্ক ছিল। শ্যামলী বগুড়া থেকে বাড়িতে এসেছে শুনে আমি তার বাড়িতে যাই। পরিবারের সবার উপস্থিতিতে আমি তার সঙ্গে কথা বলছিলাম। এ সময় সোম হাসদার নেতৃত্বে ছয়-সাত যুবক এসে তাদের দু'জনকে বেঁধে নিয়ে যায়। তাদের দু'জনকে মারধর করে। স্থানীয় ইউপি সদস্য গোলজার হোসেন এসেও দু'জনকে মারধর করে। পরে ইউপি সদস্য ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে তাকে ছেড়ে দেয়। পরে ব্যক্তিগতভাবে আরও ৫ হাজার টাকা নেয় ওই ইউপি সদস্য। বিকেলে মধ্যপাড়া ফাঁড়ির এএসআই মুকুল এসেও তাদের উদ্ধার না করে চলে গেছেন।

নিহত শ্যামলীর বাবা শিবচরণ হাসদা ও শ্যামলীর বড় বোন সেলিনা হাসদা বলেন, নির্যাতনের সংবাদ শুনে ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান শাহ, ইউপি সদস্য গোলজার হোসেন ও পুলিশ কর্মকর্তারা এলেও তারা শ্যামলীকে উদ্ধারে কোনো ব্যবস্থাই নেননি।

গোলজার হোসেন সালিশ বৈঠকের কথা স্বীকার করলেও মারপিটের ঘটনা অস্বীকার করেন। তবে স্থানীয় যুবকদের ধারণ করা ভিডিওচিত্রে দেখা যায়, শ্যামলী ও তার বন্ধু মোজাহার আলীকে বাঁশের খুঁটিতে বেঁধে মারপিট করছেন গোলজার হোসেন আর উৎসুক নারী-পুরুষ ও শিশুরা ঘিরে ধরে আছে তাদের।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে গ্রামের মাতবর সোম হাসদা বলেন, অনৈতিক সম্পর্কের কারণে তাদের আটক করা হয়েছিল। শ্যামলীর আত্মীয়-স্বজনরাই তাদের মারধর করেছে। সালিশ বৈঠক করে শ্যামলীর বন্ধু মোজাহারকে ছেড়ে দেওয়া হয়। আর শ্যামলীকে তাদের বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এখানে ইউপি সদস্যও ছিল। শ্যামলীর চিকিৎসার জন্য মোজাহারের কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা নেওয়া হয়েছিল। শ্যামলী বাড়িতে গিয়ে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে দাবি করেন তিনি।

চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান নির্যাতনের কথা স্বীকার করে বলেন, ইউপি সদস্য গোলজার হোসেনের নেতৃত্বে মাতবর সোম হাসদার মেয়েটিকে কোনো চিকিৎসা ছাড়াই আটক রেখে রফাদফার মাধ্যমে ছেড়ে দেয়। কোনো চিকিৎসা না করে শ্যামলীকে আটকে রেখে বিচার-সালিশ করায় মেম্বারকে শাসিয়েছেন বলেও দাবি করেন তিনি।

দিনাজপুর আবদুর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ার্ড মাস্টার মাসুদ জানান, শ্যামলীকে আহত অবস্থায় হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগে ভর্তি করা হয়েছিল। তিনি মেডিসিন বিশেষজ্ঞ নুরুজ্জামান সরকারের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন ছিলেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শ্যামলী মারা যান। পুলিশ কেস হওয়ায় তার ময়নাতদন্ত করা হয়। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ডা. নুরুজ্জামান বলেন, কাগজপত্র না দেখে কিছু বলা সম্ভব নয়।

শ্যামলীর বড়ভাই মামুন হাসদা জানান, হত্যাকারীরা তাদের পরিবারকে মামলা না করার জন্য হুমকি দিচ্ছে। এ ছাড়াও মেম্বার গোলজার হোসেনও হত্যাকারীদের পক্ষ নিয়ে মীমাংসা করার জন্য তাদের হুমকি দিচ্ছে। তবে তারা মামলা করবেন।

পার্বতীপুর মডেল থানার ওসি হাবিবুল হক প্রধান জানান, 'আমাকে এ ব্যাপারে ঘটনার আগে ও পরে কেউ কখনও অবহিত করেনি। আমি শ্যামলী নির্যাতনের বিষয়ে মীমাংসা করার নির্দেশ দেইনি কাউকে। নিহতের ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। শ্যামলীর পরিবারকে থানায় ডাকা হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।'

জাতীয় আদিবাসী পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রবীন্দ্রনাথ সরেন সমকালকে বলেন, শ্যামলীর নির্যাতনকারীদের তিনি দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান। অবিলম্বে তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করবেন।

আরও পড়ুন

বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা

বরিশালে ইউপি চেয়ারম্যানকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা

বরিশালের উজিরপুর উপজেলার জল্লাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টুকে ...

দুবাই যাচ্ছেন সৌম্য-ইমরুল

দুবাই যাচ্ছেন সৌম্য-ইমরুল

ড্রেসিংরুম থেকেই জরুরি তলব ঢাকায়-ওপেনিংয়ে কিছুই হচ্ছে না। সৌম্য সরকারকে ...

খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ

খালেদা জিয়ার সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা। ...

'নায়ক' গেলো সেন্সরে

'নায়ক' গেলো সেন্সরে

ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় নায়ক বাপ্পি ও নবাগতা অধরা খান জুটির ...

সোনাহাট স্থলবন্দরে শ্রমিকদের সংঘর্ষ, ১৪৪ ধারা জারি

সোনাহাট স্থলবন্দরে শ্রমিকদের সংঘর্ষ, ১৪৪ ধারা জারি

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলার সোনাহাট স্থলবন্দরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। ...

পাকিস্তানকে ভালো লক্ষ্য দিল আফগানরা

পাকিস্তানকে ভালো লক্ষ্য দিল আফগানরা

এশিয়া কাপে নিজেদের ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছে আফগানিস্তান। ভালো রান সংগ্রহ ...

চার জাতির টুর্নামেন্টে দর্শক মেসি

চার জাতির টুর্নামেন্টে দর্শক মেসি

আগামী মাসে সৌদি আরবে চার জাতির একটি টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে। ...

নির্বাচনের আগে সিনহা অপপ্রচারে উসকানি না দিলেও পারতেন: কাদের

নির্বাচনের আগে সিনহা অপপ্রচারে উসকানি না দিলেও পারতেন: কাদের

সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা নির্বাচনের আগে বই প্রকাশ ...