শতবর্ষী গাছগুলো রেখেই অক্টোবরে শুরু হচ্ছে যশোর রোডের উন্নয়ন

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮     আপডেট: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

যশোর অফিস

যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের দুই পাশে গাছের সারি- ফাইল ছবি

দুই পাশের ‘শতবর্ষী’ গাছগুলো না কেটেই অক্টোবর মাসের শেষের দিকে শুরু হচ্ছে যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের পুননির্মাণ কাজ। দুই লেনের এ মহাসড়কের কাজ শুরুর প্রায় সব প্রক্রিয়া এরই মধ্যে সম্পন্ন হয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত এই মহাসড়ক এক সময় যশোর রোড নামে পরিচিত ছিল। এই সড়ক ধরেই ভারতে যান হাজার হাজার বাংলাদেশি শরণার্থী। এ সড়কে শরণার্থীদের ঢল নিয়ে ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’ কবিতা লিখেছিলেন মার্কিন কবি অ্যালান গিন্সবার্গ।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের যশোরের নির্বাহী প্রকৌশলী এস এম মোয়াজ্জেম হোসেন সমকালকে জানান, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি রক্ষায় এ মহাসড়কের পাশের প্রাচীন গাছ রেখেই উন্নয়ন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তিনি আরো জানান, যশোর শহরের দড়াটানা থেকে বেনাপোল বন্দরের বাংলাদেশ অংশের নো-ম্যান্স ল্যান্ড পর্যন্ত ৩৮ কিলোমিটারের এ মহাসড়কটি নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে তিন শ’ ২৮ কোটি টাকা। দুটি প্যাকেজের মাধ্যমে কাজ চলবে।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্র জানায়, ইতিমধ্যে এ মহাসড়কের পুননির্মাণ কাজের দরপত্রপ্রাপ্তির পর তা মূল্যায়নের জন্যে ক্রয় কমিটিতে পাঠানো হয়েছে। এবার অনুমোদন পেলেই কাজ শুরু হবে। এ প্রক্রিয়া শেষ হয়ে কাজ শুরু হতে অক্টোবরের প্রায় শেষ সময় পর্যন্ত লেগে যাবে। ২০১৯ সালের শেষে এ মহাসড়কের পুননির্মাণ কাজ শেষ হবে বলে আশা করছে সড়ক বিভাগ।

উল্লেখ্য, গত বছরের মাঝামাঝি দেশের গুরত্বপূর্ণ এ মহাসড়কটি পুননির্মাণের কাজ শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সড়ক পাশের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত শতবর্ষী গাছগুলো কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত হওয়ায় এ নিয়ে আন্দোলন হয়। এক সময় তা আদালত পর্যন্ত গড়ায়। ফলে পেরিয়ে যায় অনেক সময়। অবশেষে গাছ রেখেই সড়ক উন্নয়নের সিদ্ধান্ত হয়। তারপর এ নিয়ে দরপত্র আহ্বান করা হয়।

সড়ক বিভাগ জানায়, দুই লেনের এ মহাসড়কের প্রস্থ হবে সর্বোচ্চ ৩৪ ফুট। গাছ থাকার কারণে কোথাও কোথাও তা কমবে। সাড়ে চার থেকে পাঁচ ফুট গর্ত করে তা প্রথমে বালি এবং পরে বালি ও খোয়া, পাথর-বালি ও তারপর বিটুমিনাস সারফেস হবে। বিটুমিনাস সারফেসের পুরত্ব হবে ১২০ মিলিমিটার বা প্রায় ৫ ইঞ্চি।

দু'দিনের মধ্যেই জানা যাবে কে খাসোগির হত্যাকারী: ট্রাম্প

দু'দিনের মধ্যেই জানা যাবে কে খাসোগির হত্যাকারী: ট্রাম্প

সৌদি আরবের সমালোচক হিসেবে পরিচিত সাংবাদিক জামাল খাসোগির হত্যাকারী কে ...

ক্রিসমাসের বোনাস হিসেবে বন্দুক উপহার!

ক্রিসমাসের বোনাস হিসেবে বন্দুক উপহার!

ক্রিসমাসের বোনাস হিসেবে কর্মীদের অভিনব উপহার দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিনের একটি ...

সিরিয়ায় মার্কিন জোটের বিমান হামলায় নিহত ৪০

সিরিয়ায় মার্কিন জোটের বিমান হামলায় নিহত ৪০

পূর্ব সিরিয়ার ইসলামিক স্টেট (আইএস) নিয়ন্ত্রিত একটি এলাকায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ...

টঙ্গীতে কিশোরকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা

টঙ্গীতে কিশোরকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা

টঙ্গীর নদী বন্দর এলাকায় হাবিব (১৬) নামের এক কিশোরকে চাপাতি ...

বাসের অপেক্ষায় থাকা দু'জনকে পিষে মারল বেপরোয়া পিকআপ

বাসের অপেক্ষায় থাকা দু'জনকে পিষে মারল বেপরোয়া পিকআপ

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলায় বাসস্টপে দাঁড়িয়ে বাসের অপেক্ষায় থাকা অন্তত চারজনকে ...

সকালে গ্রেফতার, রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

সকালে গ্রেফতার, রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ফরিদ আলম ওরফে ডাকাত আলম ...

ক্ষমতায় এলে সংসদ ভেঙে নির্বাচনকালীন সরকার

ক্ষমতায় এলে সংসদ ভেঙে নির্বাচনকালীন সরকার

আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতায় এলে সংসদ ভেঙে 'নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ ...

রাজশাহী খুলনা বরিশাল ও রংপুরের ৮১ আসনে আ'লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত

রাজশাহী খুলনা বরিশাল ও রংপুরের ৮১ আসনে আ'লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত

রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল ও রংপুর বিভাগের কমপক্ষে ৮১ আসনে দলীয় ...